ঢাকা বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৭ ফাল্গুন ১৪২৫

যখন পড়বে না মোর পায়ের চিহ্ন এই ঘাটে


গো নিউজ২৪ | স্পোর্টস ডেস্ক প্রকাশিত: জুলাই ১১, ২০১৮, ০৯:৩১ এএম আপডেট: জুলাই ১১, ২০১৮, ০৯:৪১ এএম
যখন পড়বে না মোর পায়ের চিহ্ন এই ঘাটে

যখন পড়বে না মোর পায়ের চিহ্ন এই বাটে,
আমি বাইব না মোর খেয়াতরী এই ঘাটে,
চুকিয়ে দেব বেচা কেনা,
মিটিয়ে দেব গো, মিটিয়ে দেব লেনাদেনা।

গতকাল থেকে কবিগুরুর কথাগুলো খুব করে মনে বাজছে। নয়টি বছর একটি ঘরে থাকার পর আলাদা হওয়ার কষ্টটা হয়তো হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। হয়তো কখনো সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে দেখা যাবে না তার আইকনিক সেলিব্রেশন। নিশ্চিত মাদ্রিদের ওই স্টেডিয়ামে হাজার হাজার মাদ্রিদিস্তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে 'ক্রিস্টিয়ানো, ক্রিস্টিয়ানো' রবে কোরাস গাওয়া হবেনা আর। কারণ তুমিই তো ইচ্ছা করে মাদ্রিদকে দূরে ঠেলে দিলে এক নিমিষে।

তবে যাওয়ার আগে এক আবেগী বার্তায় কাঁদালেন সমর্থকদের। সেখানেই সবাইকে বোঝানোর চেষ্টা করেছেন কেন এ কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছে— 

‘মাদ্রিদ শহর ও রিয়াল মাদ্রিদে কাটিয়ে যাওয়া এ বছরগুলো সম্ভবত আমার জীবনের সবচেয়ে আনন্দময় সময়।’

‘এই ক্লাব, ক্লাবের সমর্থক, এই শহরের প্রতি ভীষণ কৃতজ্ঞ। আমাকে তারা যেভাবে ভালোবেসেছে, আমার প্রতি যে আবেগ দেখিয়েছে সবাইকে শুধুই ধন্যবাদ দিতে পারি।’

‘যা হোক, আমি বিশ্বাস করি জীবনের নতুন ধাপে পা রাখার সময় হয়েছে। এ কারণে ক্লাবকে বলেছিলাম আমাকে চলে যাওয়ার অনুমতি যেন তারা দেয়। আমি এর জন্য ক্ষমাপ্রার্থী। সবাইকে বলি বিশেষ করে ক্লাবের সমর্থকদের, দয়া করে আমাকে বোঝার চেষ্টা করুন।’

‘নয়টা অসাধারণ বছর, নয়টা তুলনাহীন বছর। আমার কাছে রোমাঞ্চকর সময় ছিল এটা। আমার কাছে রিয়াল মাদ্রিদের অনেক প্রত্যাশা থাকায় সময়টা কঠিনও ছিল। তবে এটা নিয়ে সব সময়ই সচেতন ছিলাম। এখানে অসাধারণ ফুটবল খেলা যতটা উপভোগ করেছি, কখনোই ভুলব না।’

‘ড্রেসিংরুম ও মাঠে অসাধারণ সব সঙ্গী পেয়েছি। দুর্দান্ত সব সমর্থকের যে আবেগ সেটা সব সময় টের পেয়েছি। এবং সবাই মিলে আমরা টানা তিনটি চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছি এবং পাঁচ বছরে চারটি ট্রফি জিতেছি। এটা ছাড়াও, ব্যক্তিগতভাবে চারটি ব্যালন ডি’অর ও তিনটি গোল্ডেন বুট জিতেছি। এসবই আমার ক্যারিয়ারে যোগ হয়েছে এই বিশাল ও অসাধারণ এক ক্লাবে খেলেছি বলেই।’

‘রিয়াল মাদ্রিদ আমার হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছে। আমার পরিবারের হৃদয়েও জায়গা করে নিয়েছে। আর এ কারণেই অন্য যে কোনো সময়ের চেয়েও বেশি করে বলতে চাই, ধন্যবাদ। ক্লাব সভাপতিকে ধন্যবাদ, বোর্ডকে ধন্যবাদ, আমার সতীর্থদের ধন্যবাদ, সব কোচ, ফিজিও এবং ক্লাবের অসাধারণ সব কর্মীদেরও ধন্যবাদ, যারা ক্লান্তিহীনভাবে সবকিছু সচল রাখছেন, ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র বিষয়েও নজর রাখছেন।’

‘সব সমর্থক ও স্প্যানিশ ফুটবলের প্রতি আবারও অসংখ্য ধন্যবাদ। এ নয় বছরে আমি বিশ্বের সেরা কিছু খেলোয়াড়ের বিপক্ষেও খেলেছি। আমি তাদের প্রতি আমার সম্মান ও শ্রদ্ধা জানাচ্ছি।’

‘আমি অনেক লম্বা সময় নিয়ে ভেবেছি এবং এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, জীবনে নতুন কিছু শুরু করার সময় এসেছে। আমি এ জার্সি ছেড়ে যাচ্ছি কিন্তু যেখানেই থাকি না কেন এই ক্লাব ও সান্তিয়াগো বার্নাব্যু আমার অংশ হয়ে থাকবে।’

‘সবাইকে ধন্যবাদ। এবং এ স্টেডিয়ামে নয় বছর আগে প্রথমবার যেমন বলেছিলাম, হালা মাদ্রিদ!’
গোনিউজ২৪/এআর
 

খেলা বিভাগের আরো খবর
ভারত বন্ধ করার ২ দিনের মধ্যেই সম্প্রচার পেল পিএসএল 

ভারত বন্ধ করার ২ দিনের মধ্যেই সম্প্রচার পেল পিএসএল 

বার্সেলোনা আজও পারল না

বার্সেলোনা আজও পারল না

২ রানে বাংলাদেশের শেষ ৩ উইকেট

২ রানে বাংলাদেশের শেষ ৩ উইকেট

প্রথম আইপিএল ফাইনালে চেন্নাই দলের সদস্যরা কে কোথায়

প্রথম আইপিএল ফাইনালে চেন্নাই দলের সদস্যরা কে কোথায়

অস্ট্রেলিয়ার সর্বকালের সেরা টেস্ট একাদশ বাছলেন রোহিত শর্মা

অস্ট্রেলিয়ার সর্বকালের সেরা টেস্ট একাদশ বাছলেন রোহিত শর্মা

রোষের মুখে পাক ক্রিকেটাররা, চরম অসম্মান প্রকাশ্যে

রোষের মুখে পাক ক্রিকেটাররা, চরম অসম্মান প্রকাশ্যে