ঢাকা শনিবার, ০৬ মার্চ, ২০২১, ২১ ফাল্গুন ১৪২৭

সিলেটের শীর্ষ শিল্প উদ্যোক্তাদের নিয়ে একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ


গো নিউজ২৪ | বিএস প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৭, ২০২০, ০৪:৫০ পিএম আপডেট: ডিসেম্বর ৭, ২০২০, ০৫:০৩ পিএম
সিলেটের শীর্ষ শিল্প উদ্যোক্তাদের নিয়ে একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

হঠাৎ করেই সিলেটের শীর্ষ শিল্প উদ্যোক্তাদের সাথে সাক্ষাতের সুযোগ হল। যেহেতু আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ঢাকাতে তাই সিলেটের শীর্ষস্থানীয় শিল্প উদ্যোক্তাদের সাথে সাধারনভাবে আমার সাক্ষাতের সুযোগ ছিল না। তারপরও সেটা সম্ভব হল শিক্ষক বন্ধু শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস এডমিনেস্ট্রেশন বিভাগের প্রফেসর ড. ফজলে এলাহী মোহাম্মদ ফয়সালের ব্যক্তি পর্যায়ে এক ব্যতিক্রমী উদ্যোগের কারনে। এই উদ্যোগের পটভূমি মুলত সিলেটের শির্ষস্থানীয় ১১টি শিল্পপ্রতিষ্ঠান নিয়ে বন্ধু ড. ফয়সালের গবেষণালব্ধ প্রতিবেদন। ড. ফয়সাল গত নভেম্বরের শেষের দিকে আমাকে জানালো যে সিলেটের শীর্ষ ১১টি শিল্প প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালকগণ নিজেদের মধ্যে পরিচিত হওয়া এবং ঘনিষ্ঠতা বৃদ্ধির জন্য ২৮ নভেম্বর সন্ধ্যায় হোটেল লা ভিসতায় একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে এবং সেখানে আমাকে আমন্ত্রণ জানালো। আমিও তখন সাথে সাথেই এই অনুষ্ঠানে থাকার সম্মতি জানালাম। যদিও এটি ছিল একটি অনানুষ্ঠনিক আয়োজন, তারপরও  এই বৃহৎ শিল্প উদ্যোক্তাদের মাঝে আমার উপস্থিতি ছিল অনেক সম্মানের।

অনুষ্ঠানের কলেবর অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের উপস্থিতির কারনে। অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন স্যার আমার প্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অত্যন্ত জনপ্রিয় শিক্ষক। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির চারবারের নির্বাচিত সভাপতি ছিলেন, তিনি ছিলেন বাংলাদেশ শিক্ষক ফেডারেশনেরও সভাপতি।

অনুষ্ঠানটির আয়োজনে ছিল সিলেটের শীর্ষ শিল্প প্রতিষ্ঠান আলিম ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলীমুল এহছান চৌধুরী এবং বারাকা পাওয়ার লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফাহিম আহমেদ চৌধুরী। সঞ্চালনায় ছিল প্রফেসর ড. ফজলে এলাহী মোহাম্মদ ফয়সাল। তিনি আগত অতিথিদের উদ্দেশ্যে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে সিলেটের অর্থনীতিতে প্রভাববিস্তারকারী ১১টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করেন। সৌভাগ্যক্রমে উপরোক্ত তিন জন এবং আমি এসএসসিতে একই ব্যাচের ছাত্র। ফলে পুরো অনুষ্ঠানটি আমার কাছে ছিল খুবই প্রাণবন্ত, ছিল বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশ।

যেই ১১টি শিল্প প্রতিষ্ঠান নিয়ে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন সেগুলি হচ্ছে আলিম ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, বারাকা পাওয়ার লিমিটেড, সিলকো ফার্মাসিটিক্যালস্ লিমিটেড, এম. আহমেদ টি এবং ল্যান্ডস কোম্পানী লিমিটেড, খাদিম সিরামিক্স লিমিটেড, গোল্ডেন হারভেষ্ট ফুডস্ লিমিটেড, প্রিমিয়াম ফিশ এবং এ্যাগরো ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেড, সানটেক এনার্জি লিমিটেড এবং সানটেক টায়ার লিমিটেড, কুশিয়ারা ব্রিকস্ লিমিটেড, অয়েস্টার পোলট্রি এবং ফিশারিজ লিমিটেড, এবং সিলেট টি কোম্পানী লিমিটেড। অনুষ্ঠানে ১১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৭টি প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।  আগত অতিথিদের মধ্যে ছিলেন সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি আবু তাহের মোহাম্মদ শোয়েব, সিলেট প্রেস ক্লাবের সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী, বিটিসিএল এর মহাব্যবস্থাপক আব্দুস সামাদ, শাবিপ্রবি’র ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের (আই.পি.ই) অধ্যাপক ড. আহমেদ সায়েম। সাংবাদিক প্রতিনিধি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মিরর পত্রিকার সম্পাদক আহমেদ নূর, দৈনিক জালালাবাদ পত্রিকার সম্পাদক মুক্তাবিস উন নূর, সিলেটের ডাক পত্রিকার চিফ রিপোর্টার ও ঢাকা ট্রিবিউন সিলেট প্রতিনিধি মোঃ সিরাজুল ইসলাম, সিলেটের ডাক পত্রিকার চিফ ফটোগ্রাফার আব্দুল বাতিন ফয়সল প্রমুখ।

৭টি শিল্প প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিগণ ছিলেন আলিম ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলীমুল এহছান চৌধুরী, বারাকা পাওয়ার লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফাহিম আহমেদ চৌধুরী, সিলকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. মোঃ বদরুল হক রোকন, এম আহমেদ টি এন্ড ল্যান্ডস কোম্পানী লিমিটেডের ডিরেক্টর মার্কেটিং তেহসিন চৌধুরী, কুশিয়ারা অটো ব্রিকস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম মতিউর রহমান, অয়েস্টার পোলট্রি এন্ড ফিশারিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ ইমরান হোসেন, গোল্ডেন হারভেস্ট ডেইরী লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মইনুল ইসলাম চৌধুরী। এই বৃহৎ শিল্প উদ্যোক্তাদের সাথে মেগাস্টার বাংলাদেশ লিমিটেডের চেয়ারম্যান হিসাবে উপস্থিত থাকার সৌভাগ্য হয়েছিল আমারও।

অনুষ্ঠানে শাবিপ্রবির ভিসিসহ বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তারা নিজ নিজ পরিচয়সহ বক্তব্য প্রদান করেন। তারা প্রত্যেকে নিজ নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পরিচিতি তুলে ধরেন। তারা প্রত্যেকে একে অন্যের সাথে কুশল বিনিময় করেন, পরিচিত হন। ব্যাপারটি ছিল আসলেই ব্যতিক্রমধর্মী এবং অনুকরণীয় এক উদ্যোগ। প্রত্যেক শিল্প উদ্যোক্তারাই স্ব স্ব ক্ষেত্রে সফল, প্রতিষ্ঠিত এবং ক্ষুদ্র অনেক ব্যবসায়ীর জন্যই দৃষ্টান্তস্বরূপ। তাই তাদের একত্রিত হওয়া ব্যবসায়িক মহলে ঘনিষ্ঠতা বৃদ্ধি করবে, তাদেরকে একতাবদ্ধ করবে, নতুন নতুন ব্যবসায়িক কর্মকান্ডের দ্বার উন্মোচন হবে। সামগ্রিকভাবে দেশের অর্থনীতির গতি বৃদ্ধি পাবে, আর্ত-সামাজিক বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড হবে।

দেশের অর্থনীতির চাকা চলমান আছে ব্যবসায়ীদের কারনেই, তারাই সমস্ত অর্থনৈতিক কর্মকান্ডের মূল শক্তি। সাধারনত আমরা দেখি সমজাতীয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তাদের মধ্যে বিভিন্ন সংগঠন থাকে এবং ঐ সংগঠনের মাধ্যমে তারা একত্রিত থাকে। এছাড়া বিভিন্ন চেম্বার ও ফেডারেশনের মাধ্যমে ব্যবসায়ীদের একত্রিত করার প্রয়াস থাকে, যার মাধ্যমে ব্যবসায়ীদের মধ্যে একটা ফরমাল যোগাযোগ স্থাপন হয় তবে বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই সেখানে কোন ঘনিষ্ঠতাপূর্ন সম্পর্ক থাকেনা। তবে এই ব্যতিক্রমী উদ্যোগ সিলেটের শীর্ষ ব্যবসায়ীদের মধ্যে একটা ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের যোগসূত্র স্থাপন করবে বলে আশা করা যায়। এরমাধ্যমে সমগ্র সিলেটের ব্যবসায়িক সমৃদ্ধি বৃদ্ধি ও উন্নয়ন হবে সেই প্রত্যাশা থাকলো। নিজেদের মধ্যে সম্পর্কন্নয়নের পাশাপাশি সার্বিক জনগণের জীবনযাত্রার উন্নয়নে তারা একত্রে কাজ করবেন এটাই হবে সমগ্র সিলেটবাসীর চাওয়া।  

বোরহান উদ্দীন, চেয়ারম্যান, মেগাস্টার বাংলাদেশ লিমিটেড

মতামত বিভাগের আরো খবর
আন্তর্জাতিক শিক্ষা দিবস ও আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা

আন্তর্জাতিক শিক্ষা দিবস ও আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা

সুচন্দার কষ্টে আমরাও সমব্যথী

সুচন্দার কষ্টে আমরাও সমব্যথী

প্রিন্টমিডিয়ার অন্তর-বাহির সংকট

প্রিন্টমিডিয়ার অন্তর-বাহির সংকট

সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন বাড়ানো দরকার যেসব কারণে

সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন বাড়ানো দরকার যেসব কারণে

সিলেটের শীর্ষ শিল্প উদ্যোক্তাদের নিয়ে একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

সিলেটের শীর্ষ শিল্প উদ্যোক্তাদের নিয়ে একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

চার সঞ্চয়পত্র এখন জনপ্রিয়, যেখান থেকে কেনা উত্তম

চার সঞ্চয়পত্র এখন জনপ্রিয়, যেখান থেকে কেনা উত্তম