ঢাকা মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫

বন্দুকযুদ্ধের মাধ্যমে সমাধান নৈতিক দিক থেকে সমর্থনযোগ্য নয়


গো নিউজ২৪ | অধ্যাপক ড. আবুল কাশেম ফজলুল হক প্রকাশিত: মে ২১, ২০১৮, ১২:০০ পিএম
বন্দুকযুদ্ধের মাধ্যমে সমাধান নৈতিক দিক থেকে সমর্থনযোগ্য নয়

সম্প্রতি মাদকের বিরুদ্ধে শুরু হয়েছে সাঁড়াশি অভিযান। এই অভিযানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে মাদক বিক্রেতাদের কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গতরাতে দেশের বিভিন্ন স্থানে কথিত এই বন্দুকযুদ্ধে কমপক্ষে আটজন নিহত হয়েছেন।

এভাবে মাদক বিক্রেতাদের দমন সমর্থনযোগ্য নয় বলে মনে করেন লেখক, গবেষক এবং অধ্যাপক ড. আবুল কাশেম ফজলুল হক। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিক্ষক বলেন, মাদক দমনের জন্য বন্দুকযুদ্ধ নৈতিক দিক দিয়ে সমর্থনযোগ্য নয়। নিশ্চয়ই বিচার করে শাস্তি দেয়া সমর্থনযোগ্য হবে।

রোববার রাতে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আইয়ের একটি টক শোতে অংশ নিয়ে তিনি এই মত দেন।

এ সময় আবুল কাশেম ফজলুল হক বলেন, গত কয়েক দিন ধরেই বন্দুকযুদ্ধে নিহতের সংখ্যা বেড়েছে। বন্দুকযুদ্ধে সাম্প্রতিক এই নিহতের ঘটনাগুলো অধিকাংশ মাদক ব্যবসায়ী কিংবা মাদকদ্রব্য মাদকসেবীদের কাছে পৌঁছে দেয়ার কাজে লিপ্ত। তারা নিশ্চিত অপরাধী। কিন্তু বন্দুকযুদ্ধ নৈতিকভাবে সমর্থনযোগ্য নয়।

বিশিষ্ট এই সমাজ বিশ্লেষক বলেন, এতে কোনো সন্দেহ নেই যে দেশে মাদকদ্রবের ব্যবহার ও প্রচলন আগের চেয়ে বেড়েছে। আগে যেসব মাদকদ্রব্য ছিল তার সঙ্গে গত বছর দশকের সঙ্গে নতুন নতুন মাদকদ্রব্য ও কিছু ওষুধ যোগ হয়েছে। এসব ওষুধও মাদকদ্রব্য হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। এসব মাদকদ্রব্য নিয়ে অনেক অঘটন ঘটছে। খুনোখুনি হচ্ছে, মারামারি হচ্ছে। বিশেষ করে নারী ধর্ষণ এবং নারী নির্যাতনের নানান ঘটনা ঘটছে।

সরকার ঘোষণা করছে এটাকে দমন করার জন্য। জঙ্গিবাদীদের দমন করার জন্য যেমন কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে তেমনি সরকার মাদক ব্যবসায়ীদের দমন করার জন্য কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে। যার ফলাফল আমার গত কয়েক দিনে দেখতে পাচ্ছি। অবশ্য এটা সরকারের কর্তব্য। সরকার সরকারের উপায়ে করছে।

মাদক দমনে মাদক বিক্রেতাদরে আটক করে তাদের আইনের আওতায় আনার আহ্বান জানিয়ে প্রবীণ এই বুদ্ধিজীবী বলেন, আমার মতো অনেকই নিশ্চয়ই বলবেন, বিচার করে মাদকব্যবসায়ীদের শাস্তি দেয়া হোক। বন্দুকের মাধ্যমে নয়।

গো নিউজ২৪/এমআর

মতামত বিভাগের আরো খবর
যুদ্ধাপরাধী ও তাদের দোসরদের ভোট না দেয়ার আহ্বান

যুদ্ধাপরাধী ও তাদের দোসরদের ভোট না দেয়ার আহ্বান

প্রশ্ন করেন কাকে? 

প্রশ্ন করেন কাকে? 

আ.লীগের সমর্থন ৬৬ শতাংশ, বিএনপির ১৯.৯

আ.লীগের সমর্থন ৬৬ শতাংশ, বিএনপির ১৯.৯

ব্যর্থতার দায়ভার কি শুধুই শিক্ষকের?

ব্যর্থতার দায়ভার কি শুধুই শিক্ষকের?

নাইকো দুর্নীতিতে খালেদা জিয়া ও তারেকের সংশ্লিষ্টতা পরিষ্কার

নাইকো দুর্নীতিতে খালেদা জিয়া ও তারেকের সংশ্লিষ্টতা পরিষ্কার

নির্বাচনে হিরো আলমের প্রার্থিতা ও আমাদের সাংবাদিকতা!

নির্বাচনে হিরো আলমের প্রার্থিতা ও আমাদের সাংবাদিকতা!