ঢাকা শুক্রবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৮, ৭ বৈশাখ ১৪২৫
Beta Version
Sharp AC

সব দায় কেবল পুত্রবধূর?


গো নিউজ২৪ | আফরিন জাহান প্রকাশিত: এপ্রিল ৬, ২০১৮, ১২:৫৮ পিএম
সব দায় কেবল পুত্রবধূর?
Sharp AC

মূলধারার গণমাধ্যম নাকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কোনটা বেশি শক্তিশালী? এই প্রশ্নের উত্তরটি হয়ত সাংবাদিকদের জন্য বিব্রতকর বটে তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন অনেকটাই হয়ে উঠেছে মূলধারার গণমাধ্যমের অন্যতম সোর্স্। আসলে মানুষ এখন যন্ত্রনির্ভর। এর বাইরে যে মানুষের একটা জীবন আছে সেটাও আমরা ভুলে যাই। এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বদৌলতে আমরা কখনো কখনো সত্যকে মিথ্যা আর মিথ্যাকে সত্য ভেবে বসি থাকি। যেটা হয়েছে কয়েকদিন আগে এক বৃদ্ধার ছবি আর আর কথিত ছেলের হাতের চিঠি প্রকাশ হবার সাথে সাথে।

আমরা এখন এটাকে সত্যি ভেবেছি আর যত দোষ নন্দ ঘোষের মতো সব দায় চাপিয়েছি ওই বিসিএস ক্যাডার ছেলের বউয়ের কাঁধে। কিন্তু চিলে কান নিয়েছে বলে কানে হাত না দিয়ে যেইনা চিল খুঁজতে শুরু করেছি তখনি আবার কেউ কেউ সংবাদ পরিবেশন করল আসলে এটা আমাদের দেশের কোনো ঘটনা নয়। এটা মূলত ভারতের একটি রাজ্যের ঘটনা। এর একদিন পরে আবার কয়েকজন সাংবাদিক লিখলেন এটা আসলে সত্যি কোনো ঘটনাই না। আর এই চিঠি কোনো বিসিএ ক্যাডারতো দূরে থাক চাকরিজীবীই লেখেনি। তাহলে পুরুষেরা না জেনে ওই পুত্রবধূকে যে সামাজিক সাইটে তুলোধুনা করলেন তারা এবার চুপ কেন? সাহস করে নিজের ফেসবুকে না জেনে মন্তব্য করায় কেন দুঃখ প্রকাশ করলেন না বলুনতো? এটা করলে কি আপনাদের মর্যাদার হানি হতো? এর উত্তরও আছে। নারীদের নিয়ে বদনাম করা যায়। কিন্তু তাদের কাছে সরি বললে পুরুষের যে ইজ্জত চলে যাবে সেটাই বা রক্ষা হবে কীভাবে?

যুগে যুগে সবচেয়ে আলোচিত সম্পর্ক বউ-শাশুড়ির সম্পর্ক। এই সম্পর্ক সবসময়-ই এক ধরনের জটিলতার মধ্য দিয়ে যায় আর এর অন্যতম কারণ হলো সমলিঙ্গ হওয়া। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে যদি বলা হয় তাহলে দেখা যাবে যে পুত্রবধূর সাথে শ্বশুরের সম্পর্ক বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই উষ্ণ হয়, কিন্তু গোলমালটা বাঁধে কেবল শাশুড়ির বেলায়। তাহলে সমস্যাটা কে তৈরি করছে। সোজা উত্তর একজন নারী সবসময়ই আরেকজন নারীর প্রতিপক্ষ। মা সবসময়ই ভালো খাবারটা ছেলের জন্য তুলে রাখেন আর মেয়ে বিয়ে দিলে সেই ভাগটা অঘোষিতভাবেই জামাইয়ের ভাগে চলে যায়।

 হিন্দু সম্প্রদায়ের কথাই ধরা যাক। এ ধর্মে জামাই ষষ্ঠী আছে কিন্তু কন্যাষষ্ঠী নেই। কেন? কিছুদিন আগে ফেসবুকে খুব দেখা গেল শতাধিক পদ নিয়ে জামাই বসে আছে। তাকে ঘিরে নানা বয়সের মহিলা। সম্ভবত তদারকি করছেন জামাই ঠিকভাবে খেতে পারছে কি না। ভাবুনতো এমন কোনো উৎসব কি আছে হিন্দু সমাজে যেখানে বউকে অর্থাৎ ছেলের বউটিকেও এভাবে শতব্যঞ্জনে তুষ্ট করার চেষ্টা করা হয়? হিন্দু ধর্মে তো নারীদের দেবী রূপে পূজা করা হয়। সেই সমাজেও এই সম্মান কিংবা ভালোবাসা নেই নারীদের। শুধু তাই নয়, পরিবার থেকে শুরু করে সামাজিকতার চূড়ান্ত পর্যায়ে শুধু পুরুষের প্রাপ্য এ সবকিছুই। শুধু হিন্দু ধর্মেই নয় মুসলিম সমাজের জামাইরাও যথেষ্ট আদরযত্ন আর মানসম্মান পেয়ে থাকেন। পক্ষান্তরে ছেলের বউয়ের ভাগ্যে কী ঘটে তা মোটামুটি সবারই জানা।

মেয়ের জামাই শ্বশুর বাড়ি আসবে বলে যে সাজসাজ র'ব উঠে তা সবাই প্রত্যক্ষ করলেও পুত্রবধূ বাড়ি আসছে এ খবরটি কাকপক্ষীও হয়ত টের পায় না। এটা এক রীতিতে পরিণত হয়েছে। আর মেয়েরা মুখ বুজে এটা মেনে নিচ্ছেন। আর মেনে নেয়ার এই প্রবণতার তীর উল্টো এসে মেয়েদের বুকেই বিঁধে।

তবে এটা সবাই হয়ত স্বীকার করবেন যে, শাশুড়ির প্রতি বউয়ের সম্মান থাকা উচিত নিজের মায়ের প্রতি যেমনটি থাকে ঠিক তেমন। অন্যদিকে শাশুড়িরও উচিত বউয়ের প্রতি সম্মান রাখা। তাকে নিজের মেয়ের মত স্নেহ করা। কারণ শাশুড়ির এটা ভুলে গেলে হবে না যে একটি মেয়ে তার বাবা মা ভাই বোন ছেড়ে শ্বশুর বাড়ি এসেছে। তবে এর মানে এই নয় যে, স্ত্রী স্বামীর পরিবারের সবার সাথে খারাপ ব্যবহার করবে। মানুষ হিসেবে মানুষের সাথে যেরকম সদাচরণ করতে হয়, সবার সাথেই তেমন আচরণ করতে হবে।

ইসলামে শ্বশুর-শাশুড়ির সেবার বিষয়ে কী নির্দেশনা রয়েছে সেটা জানতে টেলিভিশনে ইসলামী সওয়াল জবাব অনুষ্ঠান করেন এমন এক হুজুরের কাছে জিজ্ঞেস করেছিলাম। তিনি বললেন, শ্বশুর-শাশুড়ির সেবা করা নফল ইবাদত। তবে পুত্রবধূ যদি শ্বশুর-শাশুড়িকে মন থেকে সেবা করতে না চায় তাহলে তাকে জোর করা যাবে না। হাদিসে বর্ণিত আছে যে বড়দের সম্মান করে না বা ছোটদের স্নেহ করে না সে আমার উম্মত না। শ্বশুর-শাশুড়ি অবশ্যই সেবা পাওয়ার উপযুক্ত। শ্বশুর-শাশুড়ির কাছে পুত্রবধূ মেয়ের মতো। আবার শ্বশুর-শাশুড়িকেও পুত্রবধূর সঙ্গে মেয়ের মতো ব্যবহার করতে হবে।

সুতরাং পুত্রবধূকে যদি এই সম্মান না দিতে পারেন তবে মিথ্যে সংবাদে তার সম্মান হানির অধিকার আপনার নেই। এরপরেও যদি কোনো পুত্রবধূ তার শ্বশুর-শাশুড়ির অমর্যাদা করেন তবে সেই দায় ওই বধূটির নয়, বরং তার শ্বশুর-শাশুড়ির মেরুদণ্ডহীন ছেলিটিই এর একমাত্র দাবিদার।

লেখক: আফরিন জাহান, সাংবাদিক ও গবেষক

গো নিউজ২৪/আই

মতামত বিভাগের আরো খবর
মনুষ্যত্বহীন মানুষদের রাজত্বে জন্মানোই রাজীবের বড় ভুল!

মনুষ্যত্বহীন মানুষদের রাজত্বে জন্মানোই রাজীবের বড় ভুল!

বিমান দুর্ঘটনায় ইন্স্যুরেন্সের টাকা পায়, সড়ক দুর্ঘটনা হলে কী পায়?

বিমান দুর্ঘটনায় ইন্স্যুরেন্সের টাকা পায়, সড়ক দুর্ঘটনা হলে কী পায়?

তারেককে হিরো বানাচ্ছে আ.লীগ!

তারেককে হিরো বানাচ্ছে আ.লীগ!

বিচার চাই এই বর্বরতার

বিচার চাই এই বর্বরতার

আমি নারী হয়ে নারী কোটার বিপক্ষে, আপনি?

আমি নারী হয়ে নারী কোটার বিপক্ষে, আপনি?

সব দায় কেবল পুত্রবধূর?

সব দায় কেবল পুত্রবধূর?

Best Electronics AC mela