ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ৫ বৈশাখ ১৪২৬

সংসদ নির্বাচনের ভোট ২৩ ডিসেম্বর


গো নিউজ২৪ | নিজস্ব প্রতিনিধি: প্রকাশিত: নভেম্বর ৮, ২০১৮, ০৬:৫৮ পিএম আপডেট: নভেম্বর ৯, ২০১৮, ০৯:০৩ এএম
সংসদ নির্বাচনের ভোট ২৩ ডিসেম্বর

ঢাকা : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনিুষ্ঠিত হবে আগামী ২৩ ডিসেম্বর। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ১৯ নভেম্বর এবং মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের শেষ তারিখ ২২ নভেম্বর। বাছাই শেষে কমিশন যাদের যোগ্য প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করবে, তারা ২৯ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) পর্যন্ত তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করতে পারবেন। এর দুই সপ্তাহ পর ২৩ ডিসেম্বর (রোববার) অনুষ্ঠিত হবে ভোট।

জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে সিইসি একাদশ জাতীয় নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের মাঠ পর্যায়ের যাবতীয় প্রস্তুতি তুলে ধরেন। ভাষণে সব নাগরিককে সহযোগিতার আহ্বান জানিয়ে জনগণের হয়ে সব রাজনৈতিক দলকে নির্বাচনে অংশ নিয়ে দেশের গণতন্ত্রের ধারা এবং উন্নয়নের গতিকে সচল রাখার আহ্বানও জানান তিনি।

সিইসি তার ভাষণে নির্বাচনী আইন ও বিধি সংশোধনের তথ্য তুলে ধরেন, সংসদী এলাকার সীমানা পুনঃনির্ধারণের পর চূড়ান্ত সংসদীয় আসনের তালিকা প্রকাশ করেন। এছাড়া ভোটার ও ভোটকেন্দ্রের চূড়ান্ত তালিকাও তুলে ধরেন তিনি।

সিইসি জানান, নির্বাচন পরিচালনার জন্য বিভিন্ন পর্যায়ে ৭ লাখ কর্মকর্তা কাজ করবেন। এছাড়া নির্বাচনী এলাকাগুলোতে বিপুলসংখ্যক নির্বাহী ও বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট এবং পুলিশ, বিজিবি, র‌্যাব, কোস্টগার্ড, আনসারসহ বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ছয় লাখ সদস্য নিয়োজিত করা হয়েছে।

তফসিল ঘোষণার ভাষণে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা স্পষ্ট করেছেন, এবারও সেনা মোতায়েন হবে আগের মতোই। অর্থাৎ সেনাবাহিনীর বিচারিক ক্ষমতা থাকছে না।

তিনি বলেন, নির্বাচন চলাকালে আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে বেসামরিক প্রশাসনকে যথা-প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদানের ‘এইড টু দ্য সিভিল পাওয়ার’ বিধানের অধীনে সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন থাকবে।

জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে সিইসি সর্বস্তরের জনগণকে নির্বাচনে নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগের আহ্বান জানান। পাশাপাশি প্রতিটি দলকে একে অন্যের প্রতি সহনশীল ও রাজনীতিসুলভ আচরণের অনুরোধ জানান তিনি।

সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণের মাধ্যমে একটি প্রতিযোগিতাপূর্ণ ও প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচনের প্রত্যাশা জানিয়ে সিইসি বলেন, এই প্রতিযোগিতা ও প্রতিদ্বন্দ্বিতা যেন কখনও প্রতিহিংসা বা সহিংসতায় পরিণত না হয়, সে বিষয়ে রাজনৈতিক দলগুলোকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে অনুরোধ জানাই।

ভাষণের শুরুতেই সিইসি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদ এবং ভাষা আন্দোলনে প্রাণ হারানো শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

সিইসি আরো বলেন- ভোটার, রাজনৈতিক নেতাকর্মী, প্রার্থী, প্রার্থীর সমর্থক এবং এজেন্টরা যেন বিনা কারণে হয়রানির শিকার না হন বা মামলা-মোকদ্দমার মুখে না পড়েন, তার নিশ্চয়তা দিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর কঠোর নির্দেশ থাকবে। দলমত নির্বিশেষে সংখ্যালঘু, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী, ধর্ম, জাত, বর্ণ ও নারী-পুরুষভেদে সবাই ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবে। ভোট শেষে নিজ নিজ বাসস্থানে নিরাপদে অবস্থান করতে পারবেন।

নির্বাচনের সময় ‘লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড’ নিশ্চিত করা হবে জানিয়ে সিইসি বলেন, নির্বাচনী প্রচারণায় সব প্রার্থী ও রাজনৈতিক দল সমান সুযোগ পাবে। সবার জন্য অভিন্ন আচরণ ও সমান সুযোগ তৈরির জন্য নির্বাচনে ‘লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড’ নিশ্চিত করা হবে। এসব নিয়ে শিগগরিই পরিপত্র জারি করা হবে।

নির্বাচনী ব্যবস্থায় প্রযুক্তিকে গুরুত্ব দিতে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অল্প কিছু আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করা হবে জানিয়ে সিইসি বলেন, প্রথাগত পদ্ধতির পাশাপাশি নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম ব্যবহারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এর আগে অনেকগুলো স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান নির্বাচনে আংশিক ও পূর্ণাঙ্গ ভোটগ্রহণে ইভিএম ব্যবহার সফল হয়েছে। জেলা-উপজেলা পর্যায়ে প্রদর্শনীর মাধ্যমে ইভিএমের উপকারিতা সম্পর্কে ভোটারদের জানানো হয়েছে। তারা ইভিএম ব্যবহারে উৎসাহ দেখিয়েছে।

সিইসি নুরুল হুদা বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, ইভিএম ব্যবহার করা গেলে নির্বাচনের গুণগত মান উন্নত হবে এবং সময়, অর্থ ও শ্রমের সাশ্রয় হবে। সে কারণে শহরগুলোর সংসদীয় নির্বাচনী এলাকা থেকে দ্বৈবচয়ন প্রক্রিয়ায় বেছে নেওয়া অল্প কয়েকটিতে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট নেওয়া হবে।

ইভিএম ব্যবহার ছাড়াও প্রযুক্তিকে গুরুত্ব দিতে কমিশনের নিজস্ব নেটওয়ার্কের মাধ্যমে প্রার্থীদের তথ্য ব্যবস্থাপনা এবং নির্বাচনের পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি আদান-প্রদান পদ্ধতি সংক্রান্ত সফটওয়্যার ও প্রোগ্রাম আধুনিক ও যুগোপযোগী করা হয়েছে। সরাসরি অথবা অনলাইনেও মনোনয়নপত্র দাখিলের বিধানও রাখা হয়েছে।

গো নিউজ২৪/আই


 

জাতীয় বিভাগের আরো খবর
কৃত্রিম পা পেলেন রাসেল সরকার

কৃত্রিম পা পেলেন রাসেল সরকার

কলরেট বাড়ছে গ্রামীণ ফোনের

কলরেট বাড়ছে গ্রামীণ ফোনের

ডেসটিনিরই থাকলো বৈশাখী টিভির মালিকানা

ডেসটিনিরই থাকলো বৈশাখী টিভির মালিকানা

খালেদার লন্ডন যাওয়া নিয়ে যা বললেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

খালেদার লন্ডন যাওয়া নিয়ে যা বললেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

তরুণীকে ধর্ষণের পর হত্যা, ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড

তরুণীকে ধর্ষণের পর হত্যা, ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড

শরীফের স্বীকারোক্তিতে বেরিয়ে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

শরীফের স্বীকারোক্তিতে বেরিয়ে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য