ঢাকা শনিবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮

বন্যা গিলে খাচ্ছে উত্তরাঞ্চলের ১০০ কিমি রেলপথ


গো নিউজ২৪ | রেজাউল করিম মানিক প্রকাশিত: আগস্ট ১৯, ২০১৭, ০৭:০৫ পিএম
বন্যা গিলে খাচ্ছে উত্তরাঞ্চলের ১০০ কিমি রেলপথ

বন্যায় রংপুর বিভাগে ১০০ কিলোমিটার রেলপথ মানচিত্র থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে। এসব রেল পথের কোথাও এখন নদী বইছে। কোথাও স্লিপার ধসে গিয়ে ১২ থেকে ১৫ ফুট গর্ত হয়েছে। আবার কোথাও ব্রিজ ভেঙে গেছে। 

কবে নাগাদ বিপর্যস্ত এই রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হবে এটা বলা যাচ্ছে না। তবে রেল কর্তৃপক্ষ বলছে, দু’সপ্তাহের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে। 

রেল কর্তৃপক্ষ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে, এ পর্যন্ত রেল লাইনের ক্ষতি হয়েছে ২০ কোটি টাকার অধিক। দুটি আন্তঃনগরসহ ১১ জোড়া ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ১২৫টির বেশি স্থানে স্লিপার ধসে ১০০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে  বিশাল বিশাল গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। রেল লাইনের পাথর পানির তোড়ে ভেসে গেছে। এসব মেরামত কাজ চললেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে সময় লাগবে। ঈদের আগে আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। 

পশ্চিমাঞ্চলীয় রেলওয়ে প্রধান অফিস রাজশাহী সূত্রে জানা গেছে, এবারের বন্যায় রেলপথের সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দিনাজপুর, লালমনিরহাট, ঠাকুরগাঁও ও কুড়িগ্রাম জেলায়। প্রকৃত ক্ষয়ক্ষতি নিরূপন না হলেও প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে শুধু রেল লাইনের ক্ষতির পরিমান ২০ কোটি টাকার ওপর। 

লালমনিরহাটের হাতিবান্ধায় ১২০ ফুট রেল লাইন নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। সেখানে এখন নদীর পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এই পথে রেল লাইন পুনঃস্থাপন করা সম্ভব কিনা তা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বলা যাচ্ছে না।  

কুড়িগ্রাম জেলায় রেলের দুটি ব্রিজ ভেঙ্গে গেছে। এটি মেরামত করতে বেশ সময় লাগবে। ফলে কুড়িগ্রামের সাথে রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। রংপুরের কাউনিয়া-তিস্তা- মহেন্দ্র নগর পর্যন্ত ৩০ কিলোমিটারে ২০টি স্থানে স্লিপার সরে গিয়ে ২০ থেকে ২৫ ফুট গর্ত হয়েছে। কদিন আগে এখানে রেল লাইন ছিল এটি এখন বোঝার উপায় নেই।  

দিনাজপুরের চিরিরবন্দর থেকে মনমথপুর পর্যন্ত ২২ কিলোমিটারের ৪৮টি স্থানে স্লিপার সরে গিয়ে রেল লাইনের নিচের ৫ ফুট মাটি সরে গেছে। পাথরের কোন অস্তিত্ব নেই এই রেলপথের। দিনাজপুরের ১৩ এম ব্রিজের দুপাশে ৫০ ফুট জায়গায় ৫ ফুট গর্ত হয়ে গেছে। এগুলো ভরাটের পর রেল চলাচল করবে। দিনাজপুরের কাঞ্চন থেকে বাজনাহার পর্যন্ত ৪ কিলোমিটার জুড়ে স্লিপার সরে গিয়ে ৮ ফুট গভীরে চলে গেছে। এই স্থান মাটি দিয়ে ভরাট করা অনেকটা সময় সাপেক্ষ। কাঞ্চন থেকে বিরল পর্যন্ত ১ কিলোমিটার রেল লাইন ১২ ফিট গর্তের নিচে চলে গেছে। দিনাজপুর সদরের কাউগাঁ এলাকার এক কিলোমিটার রেল লাইন ৮ ফুট গর্তের নিচে। দেখা গেছে এই বিভাগের ১০০ কিলোমিটারের বেশি রেলপথ বন্যার ছোবলে ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছে। রেল কর্তৃপক্ষ প্রাথমিকভাবে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপন করে রেল মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। সেখান থেকে জরুরি ভিত্তিতে বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। বরাদ্দ এলে দ্রুত ক্ষতিগ্রস্ত রেল লাইন মেরামতের কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন রেল কর্মকর্তারা।  

এছাড়া বন্যার কারণে পঞ্চগড় - দিনাজপুর  থেকে ঢাকাগামি আন্তঃনগর একতা ও দ্রুতযান ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এছাড়া পার্বতীপুর থেকে পঞ্চগড়গামি ৪ জোড়া, তিস্তা- কুড়িগ্রাম- রমানাবাজার ৩ জোড়া এবং লালমনিরহাটের ভোটমারী হতে বুড়িমারী পর্যন্ত ৪ জোড়া ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এসব ট্রেন কবে নাগাদ চলাচল করবে তা সঠিকভাবে বলতে পারছেনা পশ্চিমাঞ্চলীয় রেলের কর্মকর্তারা। ঈদের আগের রংপুর বিভাগের রেল চলাচল স্বাভাবিক না হলে চরম ভোগান্তিতে পড়বে ঈদে ঘরে ফেরা মানুষগুলো। 

পশ্চিমাঞ্চলীয় রেলের প্রধান প্রকৌশলী রমজান আলী জানান, ক্ষয়ক্ষতির সঠিক পরিসংখ্যান এখন পর্যন্ত করা হয়নি। দিনাজপুর, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, ঠাকুরগাঁওসহ রংপুর বিভাগে প্রায় ১০০ কিলোমিটারের বেশি রেলপথ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে কয়েকটি ব্রিজও রয়েছে। এসব মেরামতের কাজ চলছে। তবে কবে নাগাদ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে বলা যাচ্ছেনা। আমরা জরুরি ভিত্তিতে বরাদ্দ চেয়েছি মন্ত্রণালয়ে। তিনি আশা পোষণ করে বলেন, ঈদের আগেই যাতে রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হয় সেই লক্ষে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। 

পশ্চিমাঞ্চলীয় রেলেরে প্রধান পরিবহন কর্মকর্তা বেলাল উদ্দিন জানান, বন্যার কারণে দুটি আন্তঃনগরসহ প্রায় ১১ জোড়া  ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। তিনিও ঈদের আগের রেল পরিবহন স্বাভাবিক হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। 

গোনিউজ২৪/পিআর

জাতীয় বিভাগের আরো খবর
পুলিশকে বিশ্বমানের করতে চাই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পুলিশকে বিশ্বমানের করতে চাই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নারায়ণগঞ্জে পোশাক কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে

নারায়ণগঞ্জে পোশাক কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে

দেশে নারীদের ক্যান্সার আক্রান্তের হার বেশি

দেশে নারীদের ক্যান্সার আক্রান্তের হার বেশি

র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে চিঠি ইউরোপীয় পার্লামেন্ট সদস্যের ব্যক্তিগত: রাষ্ট্রদূত

র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে চিঠি ইউরোপীয় পার্লামেন্ট সদস্যের ব্যক্তিগত: রাষ্ট্রদূত

আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে: শিক্ষামন্ত্রী

আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে: শিক্ষামন্ত্রী

‘লবিস্ট নিয়োগের অর্থ বিএনপি কোথায় পেল ব্যাখ্যা দিতে হবে’

‘লবিস্ট নিয়োগের অর্থ বিএনপি কোথায় পেল ব্যাখ্যা দিতে হবে’