ঢাকা মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৭ ফাল্গুন ১৪২৫

মেসি-শাহরুখ-মাইকেলে হতাশ ভক্তরা


গো নিউজ২৪ | নিজস্ব প্রতিনিধি: প্রকাশিত: জানুয়ারি ৩১, ২০১৯, ০৫:০৩ পিএম আপডেট: জানুয়ারি ৩১, ২০১৯, ১১:০৩ এএম
মেসি-শাহরুখ-মাইকেলে হতাশ ভক্তরা

সুপ্রিম কোর্টের সামনে গ্রিক দেবী থেমিসের অনুকরণে ভাস্কর্য স্থাপনকারী ভাস্কর মৃণাল হক এবার সমালোচনার জন্ম দিলেন অন্যভাবে।  রাজধানীর গুলশানে তিনি তৈরি করেছেন ‘সেলিব্রিটি গ্যালারি’। যেখানে ফাইবার গ্লাসে নির্মিত হয়েছে বিখ্যাতদের ভাস্কর্য। 

‘সেলিব্রেটি গ্যালারি’ বানিয়ে আবারও সমালোচনার মুখে পড়েছেন ভাস্কর মৃণাল হক। যারা এরইমধ্যে গ্যালারি ঘুরে এসেছেন তারা বলছেন— প্রিয় সেলিব্রেটিদের এমন ‘বিকৃত চেহারা’ দেখে তারা হতাশ হয়েছেন। 

শুরুতে ৩২ জন ব্যক্তিত্বের ভাস্কর্য নিয়ে পথচলা শুরু করছে এই গ্যালারি। এই খ্যাতিমানদের মধ্যে স্থান পেয়েছেন, কাব্যচর্চায় মগ্ন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কারারুদ্ধ বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম, মহাত্মা গান্ধী, সাদা শাড়িতে মানবতার দূত মাদার তেরেসা, রাইফেল কাঁধে বিপ্লবী চে গুয়েভারা, বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী এবং বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, পপ গানের রাজা মাইকেল জ্যাকসন, গায়িকা শাকিরা, ফাঁসির মঞ্চে ক্ষুদিরাম, খ্যাতিমান অভিনেতা চার্লি চ্যাপলিন, মি. বিন খ্যাত রোয়ান অ্যাটকিনসন, পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ানের ক্যাপ্টেন জ্যাক স্প্যারো, বলিউড তারকা শাহরুখ খান, বিখ্যাত কমেডি সিরিজ থ্রি স্টুজেস-এর তিন মূল চরিত্র, প্রিন্সেস ডায়না, বব মার্লে, অ্যাভাটার, রোবোকপ।

গ্যালারি উদ্বোধন হওয়ার পর কয়েকটি গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচারিত হওয়ার পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সেখানে এই ধরনের বিকৃতির অবসান ঘটানোর দাবি জানিয়ে বিভিন্ন পোস্টে বলা হয়েছে, এধরনের বিকৃত জিনিস থাকার চেয়ে এরকম কোনও মিউজিয়াম ছিল না বাংলাদেশে, সেটাও অনেক ভালো ছিল। 

৫০০ টাকার বিনিময়ে এই গ্যালারি দেখে এসেছেন মেসিভক্ত নাহিয়ান। হতাশা ব্যক্ত করে তিনি বলেন, আর্জেন্টিনার পোশাক দেখে আমি কোন খেলোয়াড় সেটা ভাবছিলাম। মেসি না বলে দিলে খোদ মেসিও বলতে পারবে না, এইটা তার ভাস্কর্য। পুরো বিষয়টাতে পরিশীলিত ভাবটা নেই। এটা বড় ধরনের ক্রাইম।

আবার ফেসবুকেই মৃণালের কাজকে সমালোচনা করলেও তাকে আঘাত করা ঠিক না এধরনের বক্তব্যও হাজির আছে। সাংবাদিক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা তার ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, মৃণাল হক তবুও কিছু করার চেষ্টা করেন... আমি অতটা বুঝি না ভাস্কর্য... কথা হলো বাকিরা কী করে? এক সময় শামীম শিকদারকে নিয়েও অনেক সমালোচনা হতো। তখনও আমরা শুনেছি, এসব ভাস্কর্যের কিছুই ঠিক নেই, শেপ নেই, নান্দনিকতা নেই। যারা বলেছে তারা কিছু করেনি। শামীম শিকদারের করা সেইসব ভাস্কর্যই এখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আলাদা সৌন্দর্য। 

ইশতিয়াক রেজার স্ট্যাটাসের কমেন্টবক্সেও চলছে সমালোচনার ঝড়। এমনকি মৃণাল হকের নিজের পোস্টে কমেন্ট বক্সে চলছে নানা সমালোচনা।  এধরনের বিকৃত ভাস্কর্য বানানোয় তাকে নানাভাবে হেয় করেও কমেন্ট করেছেন কেউ কেউ।

এনিয়ে নির্বিকার মৃণাল হক বলেন, আমার বিরুদ্ধে বলার জন্য অনেক শিল্পীরা আছেন, আমার ক্লাসমেটরা আছেন। তারা আজীবনই আমার কাজ নিয়ে নানা মন্তব্য করছেন। যারা সমালোচনা করছেন গ্যালারির, তারা আমাকে ব্যক্তিগতভাবে অপছন্দ করেন। সেদিন গ্যালারিতে মধ্যবয়সী কিছু যুবক ফুটবলটা নিয়ে ফুটবল খেলা শুরু করলো। আমি তাদের জোর করে থামিয়েছি। সেটাও দোষ হয়েছে। তারাই এসব করছে।

তিনি বলেন, মাত্র ছয় মাসে আমি কাজ শেষ করেছি। কিন্তু ফান্ডের অপ্রতুলতার কারণে জোড়াতালি দিয়ে এসব করা সম্ভব না, ফান্ড দরকার।

গো নিউজ২৪/আই

সাহিত্য ও সংষ্কৃতি বিভাগের আরো খবর
নিজ গ্রামে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন কবি আল মাহমুদ

নিজ গ্রামে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন কবি আল মাহমুদ

ভালোবাসা দিবসে সঙ্গীকে খুশি করার গোপন টিপস

ভালোবাসা দিবসে সঙ্গীকে খুশি করার গোপন টিপস

আজ যে বসন্ত...

আজ যে বসন্ত...

বইমেলায় জাহিদ আকবরের ‘শিকার’

বইমেলায় জাহিদ আকবরের ‘শিকার’

বইমেলায় মাহতাব হোসেনের ‘শর্মিলা’ এবং ‘রৌদ্র বসন্ত’

বইমেলায় মাহতাব হোসেনের ‘শর্মিলা’ এবং ‘রৌদ্র বসন্ত’

‘কী নিয়ে গর্ব করবে যদি তার বইমেলাই না থাকে?’

‘কী নিয়ে গর্ব করবে যদি তার বইমেলাই না থাকে?’