ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৮, ৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫
Sharp AC

এইচপিভি বা হিউম্যান প্যাপিলোমা যৌন ভাইরাস


গো নিউজ২৪ | লাইফস্টাইল ডেস্ক: প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৮, ০৯:২৮ এএম
এইচপিভি বা হিউম্যান প্যাপিলোমা যৌন ভাইরাস
Sharp AC

যৌন ভাইরাস এইচপিভি বা হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সাথে লজ্জা ও অজ্ঞতার একটি গভীর সম্পর্ক রয়েছে বলে সম্প্রতি উঠে এসেছে এক গবেষণায়। যুক্তরাজ্যে এইচপিভি বা 'হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাসের' প্রকোপ এতটাই ছিল যে, এটিকে ঠেকাতে ২০০৮ সালে টিকা বা ভ্যাকসিন চালু করেছিল দেশটির সরকার। এইচপিভি'র প্রধান লক্ষণ হলো দেহে একরকম আঁচিল, গুটি বা ফুসকুড়ি দেখা দেয়া - যা যৌনাঙ্গ থেকে শুরু করে মুখে, হাতে-পায়ে এমনকি মুখের ভেতরেও হতে পারে। তবে এরকম গুটি থাকলেই যে কারো এইচপিভি হয়েছে বলে মনে করতে হবে তা-ও নয়। এ ভাইরাস খুবই ছোঁয়াচে। সাধারণত নারী পুরুষ যখন প্রথম যৌন-সক্রিয় হয়ে ওঠে তখনই এ সংক্রমণের শিকার হয়। এখনো এই রোগ নিয়ে বিশেষ করে নারীদের মধ্যে প্রচুর ভুল ধারণা রয়েছে।

এইচপিভি নিয়ে ভুল ধারণা গুলো হচ্ছে:- 

১:- অনেকেই মনে করে একমাত্র সেক্স বা যৌনতার মাধ্যমেই এই ভাইরাস ছড়ায়। বাস্তবে এইচপিভি সাধারণত যৌনতা-বাহিত, কিন্তু প্রকৃত অর্থে যৌন-সঙ্গম না ঘটলেও - শুধু 'জেনিটাল' বা যৌনাঙ্গ ও 'ওরাল' বা মৌখিক যে কোনো সংস্পর্শের মাধ্যমেই - এই ভাইরাস ছড়াতে পারে। 

২:- কারো এইচপিভি হলে ধরে নিতে হবে যে সে বহু নারী বা পুরুষের সাথে যৌন সম্পর্ক করেছে। কিন্তু আসলে তা নয়। ব্রিটেনের লোকদের ৮০ শতাংশই জীবনের কোন না কোন পর্বে এইচপিভি ভাইরাসের সংস্পর্শে আসার সম্ভাবনা আছে। এমনকি জীবনের প্রথম যৌন সংসর্গেও এ সংক্রমণ হয়ে যেতে পারে। 

৩:- কারো এইচপিভি হবার মানেই হলো তার ক্যান্সার হয়েছে। এইচপিভি আছে প্রায় ২০০ রকমের। এর মধ্যে ৪০ রকম এইচপিভি আপনার যৌনাঙ্গ বা তার আশপাশে হবে এবং সেখানেই এ ভাইরাস বাসা গাড়বে। তবে ১৩ শতাংশ এইচপিভি ভাইরাস এমন ধরণের যা জরায়ু , গলা বা মুখের ক্যান্সার তৈরি করতে পারে, তবে তা খুবই বিরল।

৪:- এইচপিভি হলে আপনি টের পাবেন,  কিন্তু বাস্তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এইচপিভি র কোন লক্ষণ দেখা যায় না। অনেক সময় শরীরের নিজস্ব রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাই এ ভাইরাসকে ধ্বংস করে দেয়। তবে জরায়ুমুখের স্ক্রিনিং থেকে এটা ধরা যেতে পারে।

যুক্তরাজ্য সরকার সম্প্রতি নিয়ম করেছে, সার্ভিক্যাল ক্যান্সারের রুটিন পরীক্ষা-নিরীক্ষার অংশ হিসেবে এখন থেকে সবাইকেই এইচপিভি পরীক্ষাও করতে হবে। কিন্তু এইচপিভি নিয়ে যারা প্রচার কার্যক্রম চালায় তারা নিজেরাই আশঙ্কা করছে যে, লোকলজ্জার ভয়ে হয়তো অনেক নারী এই পরীক্ষাটাই করাতে চাইবে না। গবেষণায় অংশ নেয়া নারীদের মধ্যে ৩৫ শতাংশ নারীর এইচপিভি সম্পর্কে কোনো ধারণাই ছিল না। আর বাকি প্রায় ৬০ ভাগ নারী জানিয়েছেন, এইচপিভি ভাইরাসে আক্রান্ত হবার খবর পেয়ে তারা ভেবেছিল যে তাদের বুঝি ক্যান্সার হয়েছে।  

গো নিউজ২৪/জেপি

লাইফস্টাইল বিভাগের আরো খবর
শিশুর ত্বকের যত্ন

শিশুর ত্বকের যত্ন

সুখে ভরিয়ে দিতে পারে সঙ্গীর জীবন

সুখে ভরিয়ে দিতে পারে সঙ্গীর জীবন

ত্বক-ফাটা প্রতিরোধে ৩টি ঘরোয়া উপায়

ত্বক-ফাটা প্রতিরোধে ৩টি ঘরোয়া উপায়

রাতের ঘুম নষ্ট হওয়ার ৫টি কারণ

রাতের ঘুম নষ্ট হওয়ার ৫টি কারণ

শীতে কেন আপনি কমলা লেবু খাবেন

শীতে কেন আপনি কমলা লেবু খাবেন

আপনার ঝকঝকে সুন্দর দাঁত পেতে তেজপাতা

আপনার ঝকঝকে সুন্দর দাঁত পেতে তেজপাতা

Best Electronics AC mela