ঢাকা শনিবার, ০৬ জুন, ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

দেড় বছর ধরে ডাক্তার নেই ফতেপুর উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে


গো নিউজ২৪ | শামসুল ইসলাম সহিদ, মির্জাপুর প্রতিনিধি: প্রকাশিত: আগস্ট ১৯, ২০১৯, ০৮:১৪ পিএম
দেড় বছর ধরে ডাক্তার নেই ফতেপুর উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে

মির্জাপুর উপজেলার ফতেপুর উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে প্রায় দেড় বছর যাবত ডাক্তার আসেন না। এতে সরকারি স্বাস্থ্য সেবা ও ঔষধ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন ওই এলাকার বিশাল জনগোষ্ঠী।

জানা গেছে, ১৯৬০ সালে অত্র এলাকার দরিদ্র মানুষের স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ফতেপুর বাজারে চ্যারিটেবল ডিসপেনসারী নামে একটি চিকিৎসা কেন্দ্র স্থাপন করা হয়। এই চিকিৎসা কেন্দ্র থেকে অত্র এলাকার মানুষ বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ওষুধ পেয়ে থাকতেন। স্বাধীনতার পর স্বাস্থ্য কেন্দ্রটিকে সরকার ফতেপুর উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে।

নিয়মানুযায়ী উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে একজন এমবিবিএস ডাক্তার একজন উপ সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার, একজন ফার্মাসিস্ট এবং একজন এমএলএসএস কর্মরত থাকার কথা। কিন্তু এই উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রটিতে প্রায় দেড় বছর যাবত এমবিবিএস ডাক্তার আসেন না। এছাড়া এমএলএসএস পদটিও দীর্ঘদিন ধরে শুন্য রয়েছে। 

এই উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রটিতে ডাক্তারের অনুপস্থিতিতে এলাকার মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন উপ সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার। দীর্ঘদিন ডাক্তারের অনুপস্থিতির কারনে জটিল রোগে আক্রান্ত রোগীরা প্রায়ই ফিরে যাচ্ছেন। এতে এলাকার মানুষ সরকারি স্বাস্থসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। ফতেপুর উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে পদায়নকৃত ডাক্তার কোথায় আছেন তা কেউ বলতে পারছেন না।

ফতেপুর বাজারের ব্যবসায়ী ইব্রাহীম শিকদার বলেন, উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ডাক্তার না থাকায় এলাকার দরিদ্র মানুষদের বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে গিয়ে বেশি টাকা খরচ করে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে।

ফতেপুর ইউপি সদস্য মো. জয়নাল মিয়া বলেন, ফতেপুর উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রটির এখন করুন দশা। কারণ এখানে দেড় বছরের বেশি সময় ধরে এমবিবিএস ডাক্তার আসেন না। যারা কর্মরত আছেন তাদেরও মাঝে মধ্যে অন্যত্র কাজ করানো হয়। এতে সরকারি স্বাস্থ্য সেবা এবং ঔষধ থেকে এলাকার মানুষ বঞ্চিত হচ্ছেন বলে তিনি জানান।

উপজেলা স্বাস্থা ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শামীম আহমেদ বলেন, আমি যোগদানের অনেক আগে সিভিল সার্জনের নির্দেশে ফতেপুর উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের কর্মরত ডাক্তার শামীমা হোসেনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেসনে আনা হয়েছিল। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও তিনি নিয়মিত আসেন না বলে তিনি জানান।

গো নিউজ২৪/আই
 

স্বাস্থ্য বিভাগের আরো খবর
কীভাবে বুঝবেন কোনটা করোনা আর সাধারণ ফ্লুর লক্ষ্মণ

কীভাবে বুঝবেন কোনটা করোনা আর সাধারণ ফ্লুর লক্ষ্মণ

বিশ্বে প্রথম করোনার প্রতিষেধক বিক্রি শুরু করছে বেক্সিমকো

বিশ্বে প্রথম করোনার প্রতিষেধক বিক্রি শুরু করছে বেক্সিমকো

করোনা চিকিৎসায় দুই ওষুধে তাক লাগানো সাফল্য

করোনা চিকিৎসায় দুই ওষুধে তাক লাগানো সাফল্য

করোনার চিকিৎসায় ঢামেকে প্লাজমা থেরাপি শুরু

করোনার চিকিৎসায় ঢামেকে প্লাজমা থেরাপি শুরু

গণস্বাস্থ্যকে পরীক্ষার খরচ ও কিট জমা দিতে বলেছে বিএসএমএমইউ

গণস্বাস্থ্যকে পরীক্ষার খরচ ও কিট জমা দিতে বলেছে বিএসএমএমইউ

বিশ্ববাপী করোনায় এতো মৃত্যুর কারণ তাহলে এই!

বিশ্ববাপী করোনায় এতো মৃত্যুর কারণ তাহলে এই!