ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

নৌকাকে জেতাতে ৫ লাখ টাকা চাইলেন শিক্ষকরা


গো নিউজ২৪ | নিজস্ব প্রতিনিধি: প্রকাশিত: মার্চ ৭, ২০১৯, ১০:১৩ এএম
নৌকাকে জেতাতে ৫ লাখ টাকা চাইলেন শিক্ষকরা

রাজশাহী: রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনের সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী শিক্ষক-কর্মচারীদের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে নৌকা প্রতীকের পক্ষে সবাইকে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। আর শিক্ষকরা তার প্রতিদানে চেয়েছেন ৫ লাখ টাকা। তারা এমপিকে বলেছেন, ৫ লাখ টাকা দিলে আগামী ১০ মার্চ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীকে জিতিয়ে দেবেন।

বুধবার এই শিক্ষকরাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। তাদের এ ধরনের প্রতিশ্রুতি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের অন্তরায় বলে মনে করছেন গোদাগাড়ী উপজেলা নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

শিক্ষকদের অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ওমর ফারুক চৌধুরী এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন। সভাপতিত্ব করেন গোদাগাড়ী উপজেলা শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ সমিতির সভাপতি আমিনুর রহমান। বক্তব্য দেন, গোদাগাড়ীর কাঁকনহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল মজিদ, সমিতির সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম শিবলী প্রমুখ। 

এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, তৃতীয়বারের মতো আমাকে নির্বাচিত করার কাজে সক্রিয়ভাবে আপনাদের অংশগ্রহণ করা এবং মানসিক শক্তি দেয়ার জন্য আমি আমার পক্ষ থেকে সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমি আপনাদের কাছে প্রত্যাশা করি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য এবং নৌকা প্রতীকের জন্য আপনাদের এই আন্তরিকতা সব সময় পদ্মা নদী দিয়ে যে রকম কোটি কোটি গ্যালন পানি যেমন সব সময় প্রবাহিত হয়, সেই ভাবে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আপনাদের ভালোবাসা প্রবাহিত হতে থাকবে এবং প্রধানমন্ত্রীর প্রতীক নৌকা এখানে সব সময় বিজয়ী হবে। কারণ, প্রধানমন্ত্রীকে যত শক্তিশালী আপনারা করতে পারবেন, প্রতিটি স্টেজে বেনিফিশিয়ালি আমরা সকলে হব।

শিক্ষকদের পিকনিক উৎসবে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী   

এমপি আরো বলেন, আমি একটি স্বপ্ন নিয়ে আপনাদের এই অ্যাসোসিয়েনটিকে গড়ে দিয়েছিলাম বা গড়ার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু আজকে যখন শুনছি তিনশ কতজন মাত্র সদস্য তখন একটু একটু করে আমার মনের মধ্যে খারাপ লাগছে। আগামী বছরের পিকনিকের আগে সবাইকে এক জায়গায় নিয়ে আসার উদ্যোগ আপনারা নেবেন। যে সমস্ত কলেজের শিক্ষকরা বাকি আছেন, তাদের এই সংগঠনে আনুন।

ফারুক চৌধুরী বলেন, পিকনিকে এসে আপনাদের ভালো লাগে না? আমাদের তো ভালোই লাগে। তিনি বলেন, আপনাদের কিন্তু একটা জিনিস জানা দরকার। এই পিকনিক হয়, আপনারা যে টাকা সমিতিতে জমা দেন, সেই টাকায় হয় না। আউটসাইড থেকে হয়। সুতরাং যারা জমা দেন টাকা তাদের কোনো ক্ষতি হয় না। এই আমাদের মতো, মজিদ মেয়রদের মতো, রশিদ সাহেব আমাদের সাধারণ সম্পাদক- এ রকম লোকদের ঘাড় মটকিয়ে খেয়ে নেন আপনারা শিক্ষকরা।

এ সময় সংগঠনের তহবিলে টাকা দেয়ার জন্য এমপির কাছে দাবি জানান শিক্ষকরা। এমপি প্রশ্ন করেন, এক লাখ টাকা? একজন শিক্ষক বলেন, গতবার তিন লাখ টাকা দিতে চেয়ে এমপি সাহেব ভুলে গেছেন। প্রতিউত্তরে এমপি বলেন, নির্বাচনের কারণে সেটা পারিনি। বকেয়া তিন লাখ এবার পরিশোধ করে দেব। তখন শিক্ষকরা তাদের তহবিলে এমপির কাছে ছয় লাখ টাকা দাবি করেন।

এ সময় এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, প্রিন্সিপাল রাজু বলছেন যে, আমরা উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যানকে (প্রার্থীকে) জিতিয়ে দিয়ে পাঁচ লাখ টাকা নিয়ে নেব, আপনি শুধু ঘোষণা দিয়ে দেন। কী, আপনারা পারবেন? কই জোর দেখছি না তো। তখন শিক্ষকরা একটু করতালি দেন। এমপি আবার বলেন, ‘জোর দেখছি না কিন্তু এখনও।’ শিক্ষকরা তখন আরও জোরে করতালি দেন। এমপি আবার বলেন, কই? কই কই কই? শিক্ষকরা আরো আরো জোরে করতালি দিতে থাকেন। এমপি বলেন, যাই হোক, এটা আমার প্রস্তাব না কিন্তু। আমি প্রস্তাব দিইনি। এটা প্রিন্সিপালদের পক্ষ থেকে প্রস্তাব এসেছে। সুতরাং আমি কিছু বলতে পারব না।

প্রসঙ্গত, আগামী ১০ মার্চ অনুষ্ঠেয় গোদাগাড়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এবার চারজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হয়ে নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়ছেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম। আর মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. বদিউজ্জামান। 

এ ব্যাপারে নৌকার বিদ্রোহী বদিউজ্জামান বলেন, শিক্ষকরা নির্বাচনে সহকারী প্রিজাইডিং অপিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। তাই পরিকল্পিতভাবে সমিতির নামে শিক্ষকদের নিয়ে পিকনিক-সমাবেশ করা হয়েছে। আগামী ১০ তারিখের নির্বাচনকে প্রভাবিত ও কারচুপি করার উদ্দেশ্যেই এই আয়োজন। তিনি বলেন, এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর নির্বাচনি এলাকায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকায় তিনি শিক্ষকদের এলাকার বাইরে ডেকে তাদের সাথে আঁতাত করতে চাইছেন। তাদের উৎকোচ দিয়ে উপজেলা নির্বাচনকে কলুষিত করতে চাইছেন।

গো নিউজ২৪/এমআর 

এক্সক্লুসিভ বিভাগের আরো খবর
৮০ বছরে তলিয়ে যাবে বাংলাদেশের বড় অংশ

৮০ বছরে তলিয়ে যাবে বাংলাদেশের বড় অংশ

‘খেতে চাইলাম দুধ হয়ে গেল ছানা’

‘খেতে চাইলাম দুধ হয়ে গেল ছানা’

বালিশকাণ্ডের মূল হোতা যিনি!

বালিশকাণ্ডের মূল হোতা যিনি!

৪ লাখ ৬৮ হাজারে ৬টি বালিশ কিনেছিলেন বেগম জিয়া!

৪ লাখ ৬৮ হাজারে ৬টি বালিশ কিনেছিলেন বেগম জিয়া!

রাজমিস্ত্রি সেজে খুনি ধরলেন এসআই

রাজমিস্ত্রি সেজে খুনি ধরলেন এসআই

মাথায় গামছা বেঁধে ধান কাটছেন ছাত্রীরা

মাথায় গামছা বেঁধে ধান কাটছেন ছাত্রীরা