ঢাকা মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০১৯, ৪ আষাঢ় ১৪২৬

ফেরদৌস কাণ্ডে উদ্বিগ্ন তিন নায়িকা


গো নিউজ২৪ | বিনোদন প্রতিবেদক: প্রকাশিত: এপ্রিল ২১, ২০১৯, ০৩:০৯ পিএম আপডেট: এপ্রিল ২১, ২০১৯, ০৩:১৯ পিএম
ফেরদৌস কাণ্ডে উদ্বিগ্ন তিন নায়িকা

পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়ে চরম বিপাকে পড়েন দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদ। এ ঘটনায় ভারতের ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) দেশটির নির্বাচন কমিশনের কাছে এ নিয়ে অভিযোগ করেছে। তাদের দাবি, ভিসা আইনের শর্ত লঙ্ঘন করে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়েছে বাংলাদেশি এই চিত্রনায়ক। বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ শাখা তাকে গ্রেফতারের দাবিও জানিয়েছে। শুধু তাই নয় এই ঘটনায় গত মঙ্গলবার ভারতে ফেরদৌসকে 'কালো তালিকাভুক্ত'ও করা হয়।

এরপর ভিসা বাতিল করে ফেরদৌসকে দেশে ফেরত আনা হয়। জানা যায়, বড় ধরণের জেলও হতে পারে এ তারকার। দেশে ফিরে অবশ্য ক্ষমা চেয়ে নেন এ চিত্রনায়ক। এই ঘটনায় উদ্বেগের কথা জানিয়েছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের শীর্ষস্থানীয় তিন নায়িকাও।

ফেরদৌসের ঘটনায় প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিমও। এ অভিনেত্রী বলেন, পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে ফেরদৌসের আত্মিক সম্পর্ক। ফেরদৌস ভাইয়াকে আমি অনেক দিন ধরে জানি। তিনি সত্যিই পশ্চিমবঙ্গকে ভালোবাসেন। তিনি যা করেছেন তা ওই ভালোবাসার পরিচয় বহন করে না। আমরা বাংলাদেশিরা যদি এদেশে ৫% ভালোবাসা পাই, তবে আমরা ফিরিয়ে দিই ৫০০%।

মিম আরো বলেন, এই দেশের (ভারত) আইনের সঙ্গেও ভালোভাবে পরিচিতি থাকা দরকার। আইন অনুযায়ী যদি এই দেশের নির্বাচনী প্রচারাভিযানে অন্য দেশের নাগরিক অংশ নিতে না পারেন, তবে তাকে সম্মান জানাতে হবে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে এই ধরনের বিতর্কে জড়িয়ে গেছেন ফেরদৌস।

অভিনেত্রী জয়া আহসান তার প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, মঙ্গলবারের ঘটনার পর থেকে আমার কাছে অনেকে মেসেজ পাঠিয়েছেন। এসব মেসেজে তাদের উদ্বেগ প্রকাশ পেয়েছে। আমি এই মুহূর্তে ঢাকায় কাজ করছি।

জয়া বলেন, আমি একজন বাংলাদেশি। আমি বাংলায় কাজ করি কারণ আমার মনে হয় সেখানকার ফিল্মে কন্ট্রিবিউট করার সুযোগ রয়েছে। ভারতের প্রতি আমার অনেক ভালোবাসা রয়েছে। সেদেশের চলচ্চিত্রপ্রেমিদের কাছ থেকে আমি অনেক ভালোবাসা পেয়েছি। সাংস্কৃতিক বিনিময়ের ভেতর দিয়ে দুই দেশকে কাছাকাছি নিয়ে আসা একজন শিল্পীর দায়িত্বের মধ্যেও পড়ে। আমার মূল ফোকাসও ঠিক তাই।

ফেরদৌস প্রসঙ্গে জয়া বলেন, কেউই চায় না কোনো বিদেশি নাগরিক দেশীয় রাজনীতিতে জড়াক। একইভাবে কোনো বাংলাদেশি নাগরিকের উচিত নয় ভারতীয় রাজনীতিতে জড়ানো। অভিনয় ছাড়া অন্য কিছুই আমাকে আকর্ষণ করে না এবং এভাবেই আমি কাজ করতে চাই।'  

এদিকে, কলকাতার বিরসা দাশগুপ্ত পরিচালিত 'বিবাহ অভিযান' ছবিতে মিমি চক্রবর্তীর স্থানে নেওয়া হয়েছে বাংলাদেশের নুসরাত ফারিয়াকে। বর্তমানে তিনি ঢাকায়। ফেরদৌসের ঘটনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, 'এ ব্যাপারে আমি সচেতন। যেহেতু আমরা অন্য দেশ থেকে এখানে এসেছি। আমাদের উচিত এই দেশের আইন মেনে চলা।'
 
নুসরাত বলেন, 'এটি খুবই দুঃখজনক। ফেরদৌস আমার পরিবারিক বন্ধু। যদি তিনি কোনো প্রচারণায় অংশ নিয়ে থাকেন, তবে এটি নিশ্চিত, তিনি তার আবেগের জায়গা থেকে এটি করেছেন। আমরা ভারতে আসি অন্য দেশ থেকে। সুতরাং, এই দেশের আইন মেনে চলতে হবে।

গোনিউজ২৪/এআরএম

বিনোদন বিভাগের আরো খবর
মৌসুমীকে আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের আজীবন সম্মাননা প্রদান

মৌসুমীকে আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের আজীবন সম্মাননা প্রদান

আনকাট ছাড়পত্র পেল ‘মায়াবতী’

আনকাট ছাড়পত্র পেল ‘মায়াবতী’

সিয়ামকে নিয়ে পরীর কথাই সত্যি হল

সিয়ামকে নিয়ে পরীর কথাই সত্যি হল

‘পাসওয়ার্ড’ সিনেমাকে পরিচালক সমিতির প্রশংসা পত্র প্রদান 

‘পাসওয়ার্ড’ সিনেমাকে পরিচালক সমিতির প্রশংসা পত্র প্রদান 

সেই নামেই হচ্ছে শাকিব-বুবলীর নতুন সিনেমা

সেই নামেই হচ্ছে শাকিব-বুবলীর নতুন সিনেমা

বিনা কর্তনে ছাড়পত্র পেল ‘আব্বাস’

বিনা কর্তনে ছাড়পত্র পেল ‘আব্বাস’