ঢাকা রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৬ ফাল্গুন ১৪২৪
Beta Version

এসএসসির ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ


গো নিউজ২৪ | ভোলা প্রতিনিধি প্রকাশিত: নভেম্বর ২৪, ২০১৭, ০৩:৪৯ পিএম আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০১৭, ০৩:৫৪ পিএম
এসএসসির ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার কাশেমগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে (এসএসসি) ফরম পূরণে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ করেছেন অবিভাবকরা।

সরকার নির্ধারিত ফি মানবিক নিয়মিত ১ হাজার ৫শত ৫ টাকা, অনিয়মিত ১ হাজার ৭শত ৯৫ টাকা, বিজ্ঞান নিয়মিত ১ হাজার ৫ শত ৯৫ টাকা, অনিয়মিত ১ হাজার ৮শত ৮৫ টাকা, ব্যবসায় শিক্ষা নিয়মিত ১ হাজার ৫ শত ৫টাকা, অনিয়মিত ১ হাজার ৭ শত ৯৫ টাকা এবং বার্ষীক ক্রীড়া মঞ্জুরি ফি প্রতিষ্ঠান প্রতি ৩০০টাকা। বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বিভিন্ন অজুহাতে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ফি বাবদ ৩ হাজার থেকে ৩ হাজার ৫শত টাকা আদায় করছেন। ফলে গরিব অবিভাবকরা তাদের  সন্তানদের পরীক্ষার ফি নিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন।

অবিভাবক সিরাজুল ইসলাম বলেন, তার মেয়ে কাসেমগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষার্থী। তার কাছ থেকে পরীক্ষার ফি বাবদ ৩ হাজার টাকা নেওয়া হয়েছে।

অবিভাবক ফরিদ দালাল বলেন, আমি গড়িব মানুষ তার নাতনী কাসেমগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষার্থী। আমার কাছ থেকে ফরম ফিলাপের জন্য ৩ হাজার টাকা নিয়েছে। এ টাকা জোগাড় করতে আমার অনেক কষ্ট হয়েছে।

অবিভাবক জসিম রানা জানান, তার মেয়ে কাসেমগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষার্থী। তার কাছ থেকে মেয়ের ফরম পূরনে ৩ হাজার টাকা নিয়েছে। এছাড়া ভুটেুা নামের আরেক অবিভাবক একই অভিযোগ করেছেন।

বিদ্যালয় সুত্রে জানা যায়, গত ১ নভেম্বর থেকে ফরম পূরণ শুরু হয়। এ বছর বরিশাল বোর্ড ফরম পূরণে মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগের জন্য বোর্ড ফি নির্ধারণ ১ হাজার ৫শত ৫ টাকা। বিজ্ঞান বিভাগের জন্য ১ হাজার ৫শত ৯৫ টাকা। অন্যনা ফিসহ সর্বোচ্চ ১৭শত টাকা নির্ধারন করে দিয়েছে।

এব্যাপারে কাসেমগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জসিম উদ্দিন বলেন, আমরা ফরম পূরনে কোন অতিরিক্ত ফি নেই না।

এ বিষয়ে ভোলা জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জাকির হোসেন বলেন, সরকার নির্ধারিত ফির বাইরে অতিরিক্ত ফি নেয়ার কোন সুযোগ নেই। যদি কোন বিদ্যালয় ছাত্র-ছাত্রীর কাছ থেকে অতিরিক্ত ফি নিয়ে থাকে তাহলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বা উপজেলা নিবার্হী অফিসার অথবা জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এব্যাপারে চরফ্যাশন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জিয়াউল হক মিলন বলেন, কোনো বিদ্যালয়েই সরকার নির্ধারিত ফির বাইরে নেয়ার নিয়ম নেই। শিক্ষকদের বোর্ড ফির বাইরে কোনো অর্থ না নিতে বলা হয়েছে। এরপরও কোনো বিদ্যালয় অতিরিক্ত ফি নিলে সেই বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এব্যাপারে চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মনোয়ার হোসেন জানান, অবিভাবকরা কেন অতিরিক্ত টাকা দিল, এ বিষয়ে আমার কোন বক্তব্য নেই।

গোনিউজ২৪/কেআর

 

 

 

 

শিক্ষা বিভাগের আরো খবর
প্রশ্নফাঁসের প্রমাণ মিলেছে, জড়িত ভিআইপিরাও

প্রশ্নফাঁসের প্রমাণ মিলেছে, জড়িত ভিআইপিরাও

কুবি’তে ছাত্রীকে প্রকাশ্যে যৌন হয়রানি

কুবি’তে ছাত্রীকে প্রকাশ্যে যৌন হয়রানি

এবার ফাঁস হলো বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় প্রশ্নপত্র

এবার ফাঁস হলো বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় প্রশ্নপত্র

অবশেষে মুদি দোকানের সামনে এসএসসির বাকি ৫০ উত্তরপত্র

অবশেষে মুদি দোকানের সামনে এসএসসির বাকি ৫০ উত্তরপত্র

আগামী বছর থেকে নতুন পদ্ধতিতে পরীক্ষা : শিক্ষা সচিব

আগামী বছর থেকে নতুন পদ্ধতিতে পরীক্ষা : শিক্ষা সচিব

রাবির শিক্ষককে মারধরের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

রাবির শিক্ষককে মারধরের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

Hitachi Festival