ঢাকা সোমবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬

ধর্ষণের পর মুখবন্ধে কোরআন ছুঁইয়ে শপথ করাতেন অধ্যক্ষ  


গো নিউজ২৪ | নিজস্ব প্রতিনিধি: প্রকাশিত: জুলাই ৬, ২০১৯, ০২:০৪ পিএম আপডেট: জুলাই ৬, ২০১৯, ০৮:০৪ এএম
ধর্ষণের পর মুখবন্ধে কোরআন ছুঁইয়ে শপথ করাতেন অধ্যক্ষ  

ছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় বাদে আঠারবাড়ী গ্রামের মা হাওয়া কওমি মহিলা মাদরাসার মুহতামিম (অধ্যক্ষ) মাওলানা আবুল খায়ের বেলালীকে আটক করেছে পুলিশ।

এদিকে এই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ভয়াবহ সব অভিযোগ এনেছে ওই মাদরাসায় অধ্যয়নরত আবাসিক শিক্ষার্থীরা। হাত-পা টেপানোর নাম করে শিশু শিক্ষার্থীদের নিজের কক্ষে ডেকে নিতেন তিনি। এক পর্যায়ে ওই শিশুদের ধর্ষণ করতেন এবং বিষয়টি কাউকে না জানাতে তাদের পবিত্র কোরআন শরীফ ছুঁইয়ে শপথও করাতেন।

নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. শাহজাহান মিয়ার দেওয়া এক ফেসবুক পোস্ট থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

এডিশনাল এসপি ক্রাইম নেত্রকোনা নামের ওই ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. শাহজাহান মিয়া। তিনি জানান, মা হাওয়া (আ.) কওমি মহিলা মাদরাসাটিতে শিশু শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৩৫ জন। এদের মধ্যে ১৫ জন আবাসিক শিক্ষার্থী। মাদরাসাটির একটি কক্ষেই থাকেন এর প্রধান শিক্ষক আবুল খায়ের বেলালী।

এই প্রধান শিক্ষকের ঘরে রয়েছে একটি কলিংবেল। সুযোগ বুঝে দিনের যে কোনো সময় তিনি ওই কলিং বেল বাজান। এর মাধ্যমে নিজের কক্ষে হাত-পা টেপানোর জন্য ডেকে নেন পছন্দমতো কোনো ছাত্রীকে। যারা বয়সে সবাই শিশু। এরপর সেই শিশু শিক্ষার্থীকেই ধর্ষণ করেন তিনি। সবশেষে পবিত্র কোরআন শরীফ ছুঁইয়ে ওই ছাত্রীদের শপথ করার যেন তারা এই ঘটনা কাউকে না বলে। কাউকে বলে দিলে আল্লাহ তাদের দোজখের আগুনে পোড়াবেন।

ফলে দোজখের আগুনে পোড়ার ভয়ে শিশুরা কাউকেই কিছুই জানায় না। আর এভাবেই দিনের পর দিন আবুল খায়ের বেলালী ছাত্রীদেতর ধর্ষণ করে আসছেন।

কিন্তু শুক্রবার আর শেষ রক্ষা হয়নি। প্রধান শিক্ষকের অত্যাচারে অতিষ্ট এক শিক্ষার্থী তার বাড়ির লোকজনদের বিষয়টি বলে দেয়। এরপর এলাকাবাসী আটক করে ওই শিক্ষককে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তাকে হেফাজতে নেয়। থানায় তার বিরুদ্ধে দুইটি ধর্ষণের মামলা হয়।

এদিকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি অন্তত ছয় ছাত্রীকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে নেন যাদের বয়স আট থেকে ১১ বছর। মাদরাসায় তার কক্ষ থেকে কলিং বেলটিও জব্দ করা হয়। আরও তথ্যের জন্য এই শিক্ষকের রিমান্ড চাওয়া হবে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

মাওলানা আবুল খায়ের বেলালী সিলেট বালুরচর কওমি মাদরাসা থেকে দাওরায়ে হাদীস পাস করেছেন। এরপর ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠা করেন এই মাদরাসা। সেখানে নিজেই প্রধান শিক্ষক হয়ে প্রতিষ্ঠানটি পরিচালনা করে আসছিলেন।

গো নিউজ২৪/এমআর

অপরাধ চিত্র বিভাগের আরো খবর
স্ত্রীর পরকীয়ার জেরে বাবা-মেয়ে হত্যাকাণ্ড

স্ত্রীর পরকীয়ার জেরে বাবা-মেয়ে হত্যাকাণ্ড

স্ত্রীকে হত্যার পর বাড়িতে উৎসব করে কিশোর গ্যাং লিডার

স্ত্রীকে হত্যার পর বাড়িতে উৎসব করে কিশোর গ্যাং লিডার

ভয়ংকর এক সাইবার অপরাধী নবিন

ভয়ংকর এক সাইবার অপরাধী নবিন

সাংবাদিক পরিচয়ে মোটরসাইকেল হাঁকিয়ে তরুণীর মাদক ব্যবসা

সাংবাদিক পরিচয়ে মোটরসাইকেল হাঁকিয়ে তরুণীর মাদক ব্যবসা

রাজধানীতে ‘ফইন্নী গ্রুপ’র ৬ সদস্য আটক

রাজধানীতে ‘ফইন্নী গ্রুপ’র ৬ সদস্য আটক

চকলেটের লোভ দেখিয়ে একে একে ৪ শিশুকে ধর্ষণ

চকলেটের লোভ দেখিয়ে একে একে ৪ শিশুকে ধর্ষণ