ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০, ১৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৭

ধর্ষণের শিকার প্রবাসীর স্ত্রীকেই লাখ টাকা জরিমানা


গো নিউজ২৪ | নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রকাশিত: জুন ১০, ২০২০, ০৫:৪৬ পিএম আপডেট: জুন ১০, ২০২০, ১১:৪৬ এএম
ধর্ষণের শিকার প্রবাসীর স্ত্রীকেই লাখ টাকা জরিমানা

ধর্ষণের শিকার এক প্রবাসীর স্ত্রীকে এক লাখ টাকা জরিমানা করার অভিযোগ উঠেছে নাটোর সদর উপজেলার ৭ নম্বর তেবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ওমর আলী প্রধান ও গ্রামের কর্তা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে নাটোর সদর উপজেলার তেবাড়িয়া ইউনিয়নের বালিয়াডাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় সালিসে আসতে দেরি করায় ভুক্তভোগী প্রবাসীর স্ত্রীর বাবাকেও এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম এসব তথ্য গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন।

ওসি জানান, গত ২৯ মে বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের এক গৃহবধূ ধর্ষণের শিকার হন। এ সময় তার চিৎকারে ঘটনায় জড়িতকে হাতে-নাতে আটক করে এলাকাবাসী। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। গত ৩০ মে নাটোর সদর থানায় তাকে আসামি করে ধর্ষণ মামলা করেন ভুক্তভোগী। পুলিশ আসামিকে জেলহাজতে পাঠায়।

এরমধ্যে গতকাল মঙ্গলবার রাতে গ্রামে সালিস ডেকে ভুক্তভোগীকে অপবাদ দিয়ে এক লাখ টাকা জরিমানা করেন চেয়ারম্যান ওমর আলী প্রধান এবং অন্য গ্রাম প্রধানরা। এ ছাড়া ভুক্তভোগীর বাবাকেও দেরিতে আসার অজুহাত দেখিয়ে এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

জাহাঙ্গীর আলম জানান, সালিসের সংবাদ পেয়ে রাত ১১টার দিকে বালিয়াডাঙ্গা গ্রামে অভিযান চালানো হয়। এ সময় রুহুল আমিন ও সোবহান আলী নামে দুই গ্রাম প্রধানকে আটক করে পুলিশ।

নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেন, ‘ধর্ষণ মামলার সালিস করার এখতিয়ার কারও নেই। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

এদিকে জারিমানার দায়ভার ভুক্তভোগী নারীর ওপরই চাপাতে চাইছেন নাটোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান, জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এবং তেবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ওমর আলী প্রধান। তিনি বলেন, ‘সেই নারীর অপরাধে তার দুবাইপ্রবাসী স্বামী এক লাখ টাকা জরিমানা দিতে চান। সেই টাকার কথাই সালিসে বলা হয়েছে।’

গো নিউজ২৪/আই

দেশজুড়ে বিভাগের আরো খবর
১০ ডিসেম্বর দৃশ্যমান হবে সম্পূর্ণ পদ্মা সেতু

১০ ডিসেম্বর দৃশ্যমান হবে সম্পূর্ণ পদ্মা সেতু

শহর ও গ্রামের চায়ের দোকানগুলোতে টেলিভিশন চলবে না

শহর ও গ্রামের চায়ের দোকানগুলোতে টেলিভিশন চলবে না

এক রাস্তাতেই অভাগা চার সেতু

এক রাস্তাতেই অভাগা চার সেতু

চাঁপাইনবাবগঞ্জের সড়কে একসঙ্গে ঝরে গেল ৯টি প্রাণ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের সড়কে একসঙ্গে ঝরে গেল ৯টি প্রাণ

স্বামীকে বাঁচাতে নিজের কিডনি দান করলেন স্ত্রী

স্বামীকে বাঁচাতে নিজের কিডনি দান করলেন স্ত্রী

দিনে-দুপুরে সোনালী ব্যাংকে ডাকাতি

দিনে-দুপুরে সোনালী ব্যাংকে ডাকাতি