ঢাকা সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০, ২৯ আষাঢ় ১৪২৭

খুনি মা’কে ধরিয়ে দিল ৭ বছরের সন্তান


গো নিউজ২৪ | নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রকাশিত: জুন ৭, ২০২০, ০২:১৫ পিএম আপডেট: জুন ৭, ২০২০, ০২:২২ পিএম
খুনি মা’কে ধরিয়ে দিল ৭ বছরের সন্তান

যে বাড়িতে কাজ করে অর্থ আয় করতেন, সে বাড়ির শিশু সন্তানকে কোনো কারণ ছাড়াই গলাটিপে হত্যা করেন ফাতেমা আক্তার। ঘটনাটি দেখে ফেলে তারই ৭ বছরের সন্তান আরমান। পরে নিজেই মাকে পুলিশের কাছে ধরিয়ে দেয় সে!

গতকাল শনিবার চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার টামটা উত্তর ইউনিয়নের বলশিদ গ্রামের তালুকদার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। হত্যার পর শিশু জান্নাতুল মাওয়াকে (৫) বাড়ির পাশে ডোবায় লুকিয়ে রাখেন ফাতেমা (২৫)। শিশুটির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার বাবার নাম আক্তার হোসেন (মৃত)।

শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ‘ঘটনার মাত্র দুই ঘণ্টার ভেতরেই খুনিকে আটক করতে সক্ষম হই আমরা। এ কাজে আমাদের সবচেয়ে বেশি সহায়তা করেছে খুনি ফাতেমার ছেলে আরমান।’

ওসি আরও বলেন, ‘হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে ফাতেমা কিছু না বললেও তার সাত বছরের ছেলে ঘটনার বর্ণনা দিয়েছে। থানায় নিহত শিশু জান্নাতুল মাওয়ার মা কাজল রেখা বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন।’

মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, গতকাল শনিবার সকাল ১১টার দিকে বলশিদ তালুকদার বাড়ির শিশুকন্যা জান্নাতুল মাওয়াকে গৃহকর্মী ফাতেমা কোনো কারণ ছাড়াই গলা টিপে হত্যা করে। পরে হাত ও পা বেঁধে পাশের একটি ডোবায় লুকিয়ে রাখে। এ ঘটনা ফাতেমার সাত বছরের ছেলে আরমান দেখে ফেলে। পরে জান্নাতুল মাওয়ার নানী আনোয়ারা বেগমসহ বাড়ির লোকজন বিষয়টি তার কাছ থেকে জানতে পেরে ওই ডোবা থেকে মাওয়ার মরদেহ উদ্ধার করে।

গো নিউজ২৪/আই

দেশজুড়ে বিভাগের আরো খবর
সুন্দরবনে বাঘের রহস্যজনক মৃত্যু

সুন্দরবনে বাঘের রহস্যজনক মৃত্যু

মাদ্রাসা মাঠে পশুর হাট, প্রতিবাদে রাস্তায় ছাত্র-জনতা

মাদ্রাসা মাঠে পশুর হাট, প্রতিবাদে রাস্তায় ছাত্র-জনতা

তাহিরপুর-বিশ্বম্ভরপুরের শতাধিক গ্রাম পানির নিচে

তাহিরপুর-বিশ্বম্ভরপুরের শতাধিক গ্রাম পানির নিচে

ফের ডুবে গেছে সুনামগঞ্জ, পানি বাড়ছে দ্রুত গতিতে

ফের ডুবে গেছে সুনামগঞ্জ, পানি বাড়ছে দ্রুত গতিতে

আরো ২ দিন বৃষ্টি, সুনামগঞ্জ-ছাতক-জৈন্তাপুরে বন্যার অবনতি

আরো ২ দিন বৃষ্টি, সুনামগঞ্জ-ছাতক-জৈন্তাপুরে বন্যার অবনতি

দুই দিন ধরে ঝুলে আছে লাশ, ক্ষতিপূরণের টাকা নিয়ে সালিশ

দুই দিন ধরে ঝুলে আছে লাশ, ক্ষতিপূরণের টাকা নিয়ে সালিশ