ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৮, ৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫
Sharp AC

এ কেমন অমানবিকতা!


গো নিউজ২৪ | নিজস্ব প্রতিনিধি: প্রকাশিত: অক্টোবর ১৫, ২০১৮, ০৯:১১ এএম
এ কেমন অমানবিকতা!
Sharp AC

কুষ্টিয়া: পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী মৌটুসি। প্রত্যেক দিন এ ভাবেই  মই বেয়ে অন্যের পাকা দেয়াল টপকে স্কুলে যেতে হয় তাকে। আবার বাড়ি ফিরতেও হয় দেয়াল টপকে। দেয়াল টপকাতে গিয়ে কয়েকবার পায়ে আঘাত পেয়েছে সে। তবুও স্কুলে যাওয়া বন্ধ করেনি সে। প্রতিবেশী রাস্তা বন্ধ করে দেয়াল তোলায় এক বছর ধরে অবরুদ্ধ তার পরিবার।

খোকসা উপজেলা সদরের পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের চুনিয়াপাড়ার বাসিন্দা দরিদ্র কৃষক মাফুজুর রহমান। ৪৮ শতাংশ জমির সাড়ে ২১ শতাংশের ওপর তার বাড়ি। এখানেই প্রায় ৩০ বছর ধরে পরিবারসহ বসবাস তার। কিন্তু প্রতিবেশীরা দেয়াল তোলায় এক বছর ধরে অবরুদ্ধ হয়ে আছে মাফুজুর রহমানের পরিবার।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মাফুজুরের বাড়ির ২৫ ফুট দূরেই সরকারি পাকা রাস্তা। প্রতিবেশী সাইদুর রহমানের জমির আইল দিয়ে সেই রাস্তায় উঠতো পরিবারটি। জমির মালিক রাস্তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু কৃষক মাফুজুরের বাড়িসহ জমির ওপর নজর পরে সাইদুর রহমানের। সস্তায় জমি কেনার কৌশল হিসেবে প্রথমে মাফুজুরের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে গাড়ি রাখার গ্যারেজ ঘর তৈরি করেন তিনি। পরে গত বছর গ্যারেজসহ পুরো জমি বিক্রি করে দেন তিনি।

এ সময় রাস্তার জমি কেনার চেষ্টা করে দরিদ্র পরিবারটি। কিন্তু ব্যর্থ হয়। পরে মাফুজুরের বাড়ির পাশের বর্তমান মালিক সোনালী ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক প্রসাদ বিশ্বাস জমির এক পাশে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করেন। অপর অংশে সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা জীবন বিশ্বাস নির্মাণ করেন আধাপাকা বাড়ি। পরে মাফুজুরের জমির দক্ষিণে সোনাতন নামে আরেক প্রতিবেশী দেয়াল তুলেন। এতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে মাফুজুরের পরিবার।

এরপর থেকে গত এক বছরে রাস্তা পাবার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পৌরসভার মেয়র, থানা পুলিশ ও রাজনৈতিক নেতাদের কাছে কমপক্ষে ১২ বার সালিশ নিয়ে গেছেন এই কৃষক। সবাই সালিশ করেছেন। প্রতিবারই রাস্তা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে নতুন মালিকেরা। কিন্তু শেষ অবদি আর রাস্তা পায়নি কৃষক মাফুজুর।

রোববার সাকালে কথা হয় স্কুলছাত্রী মৌটুসির সঙ্গে। সে জানায়, প্রতিদিনই মই বেয়ে দেয়াল টপকে অন্যের জমির ওপর দিয়ে রাস্তায় উঠতে হয় তাকে। দেয়াল টপকে স্কুলে যাওয়ার সময় তিন-চার বার পা ফসকে পরে গেছে। হাত-পা কেটেছে কয়েকবার। কিন্তু চলাচলের আর কোনো উপায় নেই, স্কুলতো আর বন্ধ করা যাবে না।

এ ব্যাপারে মাফুজুর রহমান জানান, সাইদুর রহমান জমি কেনার সময় তাকে বাড়ি থেকে বের হওয়ার রাস্তা দেয়। কিন্তু কয়েক মাস পর তার বাড়িসহ জমি কেনার প্রস্তাব দেন সাইদুর। এ প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় রাস্তা বন্ধ করে সেখানে গাড়ি রাখার গ্যারেজ ঘর তোলা হয়। পরে তিনি অনত্র জমি বিক্রি করে দেন। এ সময় মাফুজুর রাস্তার জন্য জমি কেনার প্রস্তাব দিলেও তার কাছে জমি বিক্রি করেননি সাইদুর।

তবে এ বিষয়ে খোকসা পৌরসভার মেয়র প্রভাষক তারিকুল ইসলাম বলেন, মাফুজুর শুধু অভিযোগ করেন, নিষ্পত্তি করতে চান না। তিনি চাইলে অনেক আগেই বিষয়টি নিস্পত্তি হয়ে যেতে।

গো নিউজ২৪/এমআর

দেশজুড়ে বিভাগের আরো খবর
কক্সবাজারে হোটেল থেকে জামায়াত নেতার লাশ উদ্ধার 

কক্সবাজারে হোটেল থেকে জামায়াত নেতার লাশ উদ্ধার 

নির্মাণাধীন বহুতল ভবন থেকে পড়ে ৩ শ্রমিকের মৃত্যু

নির্মাণাধীন বহুতল ভবন থেকে পড়ে ৩ শ্রমিকের মৃত্যু

এরশাদের কন্যার বিরুদ্ধে মামলা

এরশাদের কন্যার বিরুদ্ধে মামলা

যে ফার্স্ট বয়, সেই লাস্ট বয়

যে ফার্স্ট বয়, সেই লাস্ট বয়

এরপরও যদি অন্য কেউ এমপি হয়, তাহলে…

এরপরও যদি অন্য কেউ এমপি হয়, তাহলে…

টেকনাফে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত ২

টেকনাফে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত ২

Best Electronics AC mela