ঢাকা শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০১৮, ৬ মাঘ ১৪২৪
Beta Version

আমাদের সুপারস্টার শাকিব খান এবং একটি ডিভোর্স!


গো নিউজ২৪ | ফারজানা আক্তার প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১০, ২০১৭, ০৭:১২ পিএম আপডেট: জানুয়ারি ১, ২০১৮, ০৭:৩০ এএম
আমাদের সুপারস্টার শাকিব খান এবং একটি ডিভোর্স!

কেউ স্বীকার করুক বা না করুক শাকিব খান আমাদের একজন দেশের একজন জনপ্রিয় সুপারস্টার। আপনি আমি হয়তো তার সিনেমা দেখি না, কিন্তু বাংলাদেশে আমি আপনি ছাড়াও আরো অনেক মানুষ রয়েছে। তাদের অনেকেই শাকিব খানের ভক্ত এবং নিয়মিত তার সিনেমা দেখেন। শাকিব খান যে সত্যিকারের সুপারস্টার তার প্রমাণ বারবার পাওয়া গিয়েছে। তার সিনেমা যখন নিষিদ্ধ করা হয়েছিলো তখন কয়েকটি হল বন্ধ হয়ে গিয়েছিলো শাকিব খানের জনপ্রিয়তার এটায় বড় প্রমাণ।

সারা বিশ্বে সেলেব্রেটি বলে একটি শব্দ খুব জনপ্রিয়। সেলেব্রেটি  আসলে তারাই যাদের কাজের মাধ্যমে মানুষ চিনে, অনেকে তাদের আইডল মানে, অনেকে তাদের পূজা করে, অনেকে তাদের অনুকরণ করে। একজন সাধারণ মানুষের সাথে সেলিব্রেটিদের এখানেই সবথেকে বড় তফাৎ।  আমি কি করলাম না করলাম সেটা আমাদের কাছের মানুষজন জানবে, বড়জোর পাড়ার কয়েকজন বেশি জানবে।  কিন্তু একজন সেলেব্রেটির ফুসকা খাওয়া থেকে শুরু করে চাঁদে যাওয়া পর্যন্ত প্রতিটা ঘটনার আলাদা আলাদা নিউজ হয়ে থাকে।  সেসব খবর সবাই শুনে, জানে এবং মানে।

একজন সেলেব্রেটি এবং সাধারণ মানুষসের মধ্যে অনেক ব্যবধান থাকলেও সামাজিক এবং প্রাকৃতিক অনেককিছুই এক। বিয়ে তার মধ্যে একটি।  বিয়েকে ঘিরে প্রতিটা মানুষের জীবনে হাজারো স্বপ্ন থাকে।  স্বপ্ন থাকে বিয়ের পরের প্রতিটা ধাপেরও। আমাদের সুপারস্টার শাকিব খানও বিয়ে করেছেন। যেহেতু তিনি একজন সুপারস্টার + সেলেব্রেটি তাই তিনি একটু অন্যরকম মানুষ। সেই অন্য রকম মানুষ হবার কারণে নিজের বিয়ের খবর ৯বছর গোপন করে রেখেছেন। নিজের একমাত্র সন্তানের জন্মের খবরও প্রকাশ করেন নি আমাদের সুপার স্টার।

আমাদের সুপার স্টার সেলেব্রেটি হলেও মানুষ।  তার ব্যক্তিগত জীবনে তিনি কি করবেন আর কি করবেন না সেটা একান্ত তার নিজস্ব ব্যাপার। কথাটা তখনই উঠে আসে যখন তার সাথে একটি মেয়ের স্বপ্ন, ধর্ম, মেয়েটির প্রতিভা, মেয়েটির যোগ্যতা,একটি বাচ্চার জীবন, দুইটি পরিবারের সম্মান এবং অনেকগুলো মানুষের অনুকরণ জড়িত থাকে। শাকিব খানের ম্যাক্সিমাম ভক্ত কারা সেটা দেখতে হবে।  

তাদের ভালো - খারাপের তফাৎ বুঝার ক্ষমতা কতটুকু সেটাও ভাবতে হবে।  তাদের প্রিয় নায়ক যা করবে সেটা যে তারা অন্ধের মতো নিজের জীবনে এপলাই করবে না সেটা কে জানে !!!

আপু বিশ্বাস ওরফে আপু ইসলাম খান একজন ভালো অভিনেত্রী। সেই সাথে তাকে বলতে হয় গুনবতী স্ত্রীও। স্বামীর কথা পর্দায় দেখা শাবানা ম্যামের মতো অক্ষরে অক্ষরে পালন করে গেছেন।  যে ব্যাপারটা কোনো দুনিয়ার কোনো নারীর পক্ষেই মেনে নেওয়া সম্ভব না সেটা হচ্ছে নিজের স্বামীর সাথে অন্য মেয়ের লাগামবিহীন চলাফেরা। স্ত্রী হাসপাতালের বেডে কাতরাচ্ছে আর স্বামী অন্য মেয়ের কোমর ধরে নেচে বেড়াচ্ছে।  ব্যাপারটা ভাবতেই গায়ে কাটা দিয়ে উঠে। অবশ্য গায়ে কাটা দেয় আমাদের মতো আম - জনতার আর তিনি তো সুপারস্টার , এসব ইমোশনের বাহিরে !

সুপারস্টার স্বামী হিসেবে নিজের দায়িত্ব পালন করেন নি।  তবে স্বামী হয়ে কিছু লেইম কারণ দেখিয়ে নিয়ে স্ত্রীকে ডিভোর্স লেটার পাঠিয়েছেন এবং স্ত্রীর গায়ে খুব হালকার ওপর ঝাপসা দিয়ে কলংকও দিয়েছেন। শাকিব যদি জেনেই থাকে অপু বয়ফ্রেন্ড নিয়ে ছেলে রেখে বিদেশ বেড়াতে গিয়েছে, তাহলে সেটা প্রমাণ করে দিক । গোপন সূত্র, প্রকাশ সূত্র এসব কে বা কারা আমি জানি না। তবে এটা জানি এসব আজাইরা, কাজের বেলায় এদের খুঁজিয়া পাওয়া যাইবে না !!

শাকিব খান নিঃসন্দেহে একজন দায়িত্বজ্ঞানহীন স্বামী এবং শুধু টাকাপ্রদান করেই বাবা। বাবার দায়িত্ব শুধু কয়েকটা ফোঁটা স্পার্ম আর মাস শেষে টাকা দেওয়ার মধ্যে সীমাবন্ধ থাকে না।  বাবার দায়িত্ব অনেক মধুর এবং সেই সাথে কিছুটা কঠিনও বটে । একটা বিবাহিত সম্পর্কে ডিভোর্স  হতেই পারে। তবে সেটার জন্য তেমনই উপযোক্ত কারণও লাগবে। একজন দায়িত্বজ্ঞানহীন মানুষ হয়ে এবং স্ট্রং কোনো কারণ না দেখিয়ে ডিভোর্স চেয়ে সুপারস্টার কি বুঝাতে চান ? তার মধ্যে আর পাড়ার বল্টুর মধ্যে কোনো তফাৎ নেই সেটা ?

শাকিব খান আর কিছু করুক বা না করুক এটা প্রমান করেছে যে, পর্দা আর বাস্তবের মধ্যে আকাশ-পাতাল ফারাক।  পর্দায় যে মানুষ সততার, বিবেকের ৫০-৬০টা ডাইলং এক নিমিষের দিতে পারে।  সে একই মানুষ নিজের বিবেকের তাড়নায় বাস্তবে ক্ষুদ্র একটা কাজও করতে পারে না।  তাহলে পর্দায় এতো ভালো মানুষির অভিনয় করা কেন ? কি লাভ সারাক্ষন ভালো মানুষির এতো মুখোশ পরে? শুনেছি আর্টিষ্টরা নাকি যখন যে চরিত্রে থাকে তেমনই হয়ে যায় আমাদের সুপারস্টার তো সারাক্ষন হিরোর চরিত্রে থাকে তাহলে তিনি এমন ভিলেন হয়ে গেলেন কেন ? কে দিবে এই প্রশ্নের জবাব ?কখন পাবো এর জবাব ?

বি : দ্র : আমি কোনো নারীবাদী নই। শাকিব খান যা করছে একদম ভুল করছে।  একটা মেয়ে তার জাত, ধর্ম ত্যাগ করে এই ছেলেটাকে ভরসা করেছে।  নিজের জীবনের রিস্ক নিয়ে ৩বার এব্যারোশন করিয়েছে।  মেয়েটার যথেষ্ট পরিমান মেধা রয়েছে।  শাকিবের কোনো অধিকার নেই মেয়েটার মেধা বা সম্মান এভাবে নষ্ট করার।
গোনিউজ২৪/কেআর

মতামত বিভাগের আরো খবর
নাচছেন শামীম, হাসছেন আইভী!

নাচছেন শামীম, হাসছেন আইভী!

আমি একজন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারের বউ বলছি!

আমি একজন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারের বউ বলছি!

রেকর্ড গড়লেন শেখ হাসিনা

রেকর্ড গড়লেন শেখ হাসিনা

আব্দুল বাছিত বাচ্চুর জনসেবায় এগিয়ে যাবার গল্প

আব্দুল বাছিত বাচ্চুর জনসেবায় এগিয়ে যাবার গল্প

হুট করে কি বাড়িভাড়া বাড়ানো যায়?

হুট করে কি বাড়িভাড়া বাড়ানো যায়?

সেলিব্রেটিদের বিয়ে ! নারী সমাজের ভাবনা !

সেলিব্রেটিদের বিয়ে ! নারী সমাজের ভাবনা !

grameenphone