ঢাকা শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০১৮, ৬ মাঘ ১৪২৪
Beta Version

দরিদ্র মেধাবীদের গল্প শুনে কাঁদলেন এডিসি-ইউএনও


গো নিউজ২৪ | শেরপুর প্রতিনিধি প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৪, ২০১৮, ০২:৫৭ পিএম আপডেট: জানুয়ারি ১৪, ২০১৮, ০৩:০০ পিএম
দরিদ্র মেধাবীদের গল্প শুনে কাঁদলেন এডিসি-ইউএনও

সারাদেশের ন্যায় শেরপুরে তিনদিন ব্যাপী উন্নয়ন মেলা শেষ হয়েছে শনিবার। মেলায় সরকারের উন্নয়নের নানা দিক তুলে ধারার পাশপাশি দ্বিতীয় দিন দুপুরে একটি পর্ব ছিল ‘সাফল্য গাথা’।

এ পর্বের শুরুতে এক সময় ঝড়ে পড়া থেকে শিক্ষা জীবনে ফিরে আসা ও দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের সাফল্যের গল্প বলেন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে অধ্যায়নরত ৬ শিক্ষার্থী। ওই ৬ শিক্ষার্থী তাদের দরিদ্রকে জয় করে এবং নানা ঘাত-প্রতিঘাত থেকে ঝড়ে পড়া থেকে পুনরাই শিক্ষা জীবনে ফিরে আসার করুন গল্প শুনে অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি এডিসি-ইউএনওসহ দর্শক সারিতে বসে থাকা অসংখ্য দর্শক-শ্রোতা কেঁদে উঠেন। এসময় মঞ্চের চারপাশের মেলায় আগত দর্শনার্থীরাও থমকে দাড়ায় এবং প্রায় সকলের চোখ বেঁয়ে অশ্রু ঝড়ে পড়তে থাকায় মেলার পরিবেশ ভারি হয়ে উঠে।

জানা গেছে, মেলায় শেরপুরের জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন এর সভাপতিত্বে ‘সাফল্য গাথা’ পর্ব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিসিএস প্রশাসন একাডেমী’র রেক্টর, এনডিসি মো. আনোয়ারুল ইসলাম। এছাড়া বিশেষ অতিথি ছিলেন শেরপুরের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক ভারপ্রাপ্ত এডিসি এটিএম জিয়াউল ইসলাম ও সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হাবিবুর রহমানসহ প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় সেনা সদস্য মো. শাহিন মিয়া বিএসপি প্রতিষ্ঠিত দরিদ্র ও অসহায় শিক্ষার্থী উন্নয়ন সংস্থা (ডপস) এর ৬ জন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীর দারিদ্রের কষাঘাতে পিছপা না হয়ে এবং শিক্ষা জীবন থেকে ঝড়ে পড়েও পুনরাই শিক্ষা জীবনে ফিরে আসার গল্প বলেন।

এদের মধ্যে মেধা থাকা সত্বেও কেবলমাত্র অর্থাভাবে পড়াশোনা বাদ দিয়ে এক সময়ে টেক্সটাইল মিলে কাজ নিয়ে পরবর্তিতে শিক্ষা জীবনে ফিরে এসে বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত রাসেল মিয়া, কাঠ মিস্ত্রি’র কাজ করে বর্তমানে একই বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত কামরুজ্জামান কাজি, রংমিস্ত্রি’র কাজ করে নানা কষ্টে বর্তমানে বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত আল আমিন, অর্থাভাবে পড়াশোনা বাদ দিয়ে গার্মেন্টস এ চাকুরি করে পরবর্তিতে শিক্ষা জীবনে ফিরে এসে বর্তমানে নোয়াখালি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত রমজান আলী, এক বেলা আধাবেলা খেয়ে না খেয়ে পড়াশোনা করে বর্তমানে জাহাঙ্গির নগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত সাইদুর রহমান এবং দারিদ্রতার চরম কষাঘাতে থেকে এবং বাল্যবিয়ের হাত থেকে বেঁচে উঠে গত বছর এসএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়ে বর্তমানে শেরপুর সরকারী কলেজে অধ্যায়নরত রূপালী আক্তার।

বক্তৃতা পর্ব শেষে প্রধান অতিথি ডপস সংগঠনের জন্য কিছু একটা করার ঘোষনা দিলেও জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন ওই সংগঠনের জন্য ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ করেছেন।

উল্লেখ্য, শিক্ষার্থীসহ আরো অনেক শিক্ষার্থীকে শিক্ষা জীবনে ফিরিয়ে আনতে এবং তাদের শিক্ষার ব্যায় ভার ও দায়িত্ব ডপস প্রতিষ্ঠাতা মো. শাহিন মিয়া নেওয়ার পর তারা সকলেই বর্তমানে দেশের সর্বচ্চো বিদ্যাপিঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও স্কুল-কলেজে অধ্যায়ন করছেন।

গোনিউজ২৪/কেআর

জাতীয় বিভাগের আরো খবর
পদ্মা সেতু: কারিগরি ত্রুটিতে বসছে না ২য় স্প্যান

পদ্মা সেতু: কারিগরি ত্রুটিতে বসছে না ২য় স্প্যান

অর্থমন্ত্রীর গাড়ির চাপায় আহত ৩০

অর্থমন্ত্রীর গাড়ির চাপায় আহত ৩০

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা নিখোঁজ

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা নিখোঁজ

স্ট্রোকে আক্রান্ত আইভী

স্ট্রোকে আক্রান্ত আইভী

ল্যাবএইড হাসপাতালে কেমন আছেন মেয়র আইভী

ল্যাবএইড হাসপাতালে কেমন আছেন মেয়র আইভী

পুলিশ মিডিয়াকে ফলো করে

পুলিশ মিডিয়াকে ফলো করে

grameenphone