ঢাকা রবিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০১৮, ৭ মাঘ ১৪২৪
Beta Version

গত বছর  ৮১ নারী-শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে


গো নিউজ২৪ | নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: জানুয়ারি ১২, ২০১৮, ১০:০২ পিএম
গত বছর  ৮১ নারী-শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে

ঢাকা :  রাষ্ট্রীয় নিপীড়ণ ও দায়মুক্তির কারণে ২০১৭ সালেও গুম, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড, আইন প্রয়োগকারী সংস্থার হেফাজতে নির্যাতন এবং কারাগারে মৃত্যুর ঘটনা অব্যাহত ছিল। ২০০৯ সাল থেকে গুমের প্রবণতা যেমন অস্বাভাবিকভাবে শুরু হয়েছিল তেমনি ২০১৭ সালে একটি নতুন প্রবণতা শুরু হয়, যেমন হঠাৎ করেই গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের ‘নিখোঁজ’ হয়ে যাওয়া। ফলে তারা কী গুমের শিকার নাকি সাধারণ অপহরণের শিকার তা জানা কঠিন হয়ে পড়ে; যারা ফেরত এসেছেন তারাও স্পষ্ট করে কিছুই জানাননি। বেসরকারি মানবাধিকার সংগঠন অধিকার-এর প্রতিবেদনে কথাগুলো বলা হয়েছে।

এছাড়া গত বছর বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন ১৫৪জন। এছাড়া ৮৬ জন গুম, রাজনৈতিক সহিংসতায় ৭৭জন নিহত, ৭৮৩জন নারী ও শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে তথ্য প্রকাশ করেছে অধিকার।
 
শুক্রবার সংস্থাটির প্রকাশ করা বার্ষিক মানবাধিকার প্রতিবেদন’ ২০১৭-তে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত এক বছরে ১৪জনকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে, গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৯৩জন এবং ৪জন নারী আত্মহত্যা করেছেন। এই সময়কালে আরো ৮১জন নারী ও মেয়ে শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরো জানানো হয়েছে, গত বছর আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ সংঘাতে ৬৬জন নিহত ও ৩ হাজার ৩২৭জন আহত হয়েছেন। বিএনপির অভ্যন্তরীণ সংঘাতে ২২৫জন আহত হয়েছেন।

বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড

অধিকার জানায়, ২০১৭ সালে নিহত ১৫৪জনের মধ্যে ১৩৯জন ‘ক্রসফায়ার/এনকাউন্টার/বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে পুলিশের হাতে ১১৬ জন, র‌্যাবের হাতে ৩৩জন, ডিবি পুলিশের হাতে ২জন এবং অন্যান্য বাহিনীর হাতে ৩জন নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

এছাড়াও পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি ও অন্যান্য বাহিনীর হাতে নির্যাতনে নিহত হয়েছেন ১২জন। এর মধ্যে পুলিশের হাতে ৯, র‌্যাবের হাতে ১, বিজিবির হাতে ১ ও অন্যান্য বাহিনীর হাতে ১জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে ১জন পুলিশের গুলিতে ও ২জন পুলিশের পিটুনিতে মারা গেছেন বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নিহতদের পরিচয়

অধিকার জানায়, নিহত ১৫৪জনের মধ্যে ২জন বিএনপি নেতা, ১জন শিবির কর্মী, ১জন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের নানিয়ারচর শাখার সাধারণ সম্পাদক, ১জন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সদস্য, ১জন নিউ বিপ্লবি কমিউনিস্ট পার্টি (মৃণাল বাহিনী)’র সদস্য, ১জন পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির সদস্য, ২জন পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (লাল পতাকা)’র সদস্য, ১জন পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল জনযুদ্ধ)’র সদস্য, ১জন সর্বহারা পার্টির সদস্য, ৫জন জেএমবি’র সদস্য, ১জন হরকাতুল জিহাদ-আল-ইসলামী’র সদস্য, ১জন গরু ব্যবসায়ী, ১জন গ্রামবাসী, ২জন ব্যবসায়ী, ১জন কাঠমিস্ত্রী, ১জন কৃষক, ১জন ড্রাইভার, ১জন চতুর্থ শ্রেণির সরকারি কর্মচারী, ২জন বিভিন্ন মামলার আসামি, ১জন সাজাপ্রাপ্ত আসামি রয়েছেন।

গুম ৮৬ জন

অধিকার জানায়, ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৮৬জনকে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে ধরে নিয়ে যাওয়ার পর থেকে তাদের গুম হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে ৯জনের লাশ পাওয়া গেছে এবং ৪৫জনকে গুম করার পর পরবর্তীতে তাদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। ১৬জনকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এখনও পর্যন্ত বাকি ১৬জনের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা

অধিকার জানায়, ২০১৭ সালে ১জন সাংবাদিক নিহত, ২৪জন আহত, ৯জন লাঞ্ছিত, ১১জন হুমকির সম্মুখীন ও ৭জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

বিএসএফ’র হাতে নির্যাতন ও হত্যা

অধিকার জানায়, ২০১৭ সালে বিএসএফ ২৫জন বাংলাদেশি নাগরিককে হত্যা করেছে। এদের মধ্যে ১৮জনকে গুলিতে, ৪জনকে নির্যাতন করে, ১জনকে পাথর ছুঁড়ে, ১জন বিএসএফ’র ধাওয়া খেয়ে পদ্মা নদীতে পড়ে গিয়ে ডুবে মারা যান এবং ১জনকে বোমা ও পাথর নিক্ষেপ করে হত্যা করা হয়েছে। এছাড়া ৩৯জন বাংলাদেশিকে বিএসএফ আহত করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এদের মধ্যে ১৫জন বিএসএফ’র গুলিতে, ১৫জন নির্যাতনে, ৬জন পাথর নিক্ষেপের কারণে এবং ৩জন সাউন্ড গ্রেনেড বিস্ফোরণে আহত হয়েছেন। এই সময়ে বিএসএফ অপহরণ করে ২৮ বাংলাদেশিকে।

গো নিউজ২৪/আই

জাতীয় বিভাগের আরো খবর
ফের শুরু হচ্ছে শৈত্যপ্রবাহ

ফের শুরু হচ্ছে শৈত্যপ্রবাহ

নারায়ণগঞ্জে প্রকাশ্যে গুলি করছে কে এই নিজাম ?

নারায়ণগঞ্জে প্রকাশ্যে গুলি করছে কে এই নিজাম ?

নাখালপাড়ায় নিহত জঙ্গি নকলার রবিন 

নাখালপাড়ায় নিহত জঙ্গি নকলার রবিন 

আইভীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি

আইভীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি

বাংরেজি বন্ধে তথ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ

বাংরেজি বন্ধে তথ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ

পদ্মা সেতু : চলতি সপ্তাহে বসছে ২য় স্প্যান 

পদ্মা সেতু : চলতি সপ্তাহে বসছে ২য় স্প্যান 

grameenphone