ঢাকা বুধবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৮, ৪ মাঘ ১৪২৪
Beta Version

বিএম কলেজের ছাত্রী হোস্টেলে সংঘর্ষ, আহত ৯ ছাত্রী


গো নিউজ২৪ | বরিশাল প্রতিনিধি প্রকাশিত: জুলাই ১৪, ২০১৭, ০৬:২৪ পিএম
বিএম কলেজের ছাত্রী হোস্টেলে সংঘর্ষ, আহত ৯ ছাত্রী

বরিশাল সরকারি ব্রজমোহন (বিএম) কলেজের বনমালী গাঙ্গুলী হোস্টেলে ছাত্রীদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে ৯ জন আহত হলে গুরুতর ৩ জনকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (শেবাচিম) ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৪ জুলাই) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ছাত্রীনিবাসের ২ নম্বর ভবন কাকলীর সামনে ছাত্রলীগের দুই নেত্রীর অনুসারীদের মধ্যে এ মারামারির ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় আহতরা হলেন- ছাত্রলীগ নেত্রী মাস্টার্সের ব্যবস্থাপনা বিভাগের ছাত্রী মুনিরা আক্তার মনি, গণিত দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী শারমিন আক্তার, একই বিভাগের প্রথম বর্ষের মারিয়া হোসেন, উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের কান্তা ইসলাম, গণিত ১ম বর্ষের ইসরাত জাহান, অপরপক্ষের ব্যবস্থাপনা দ্বিতীয় বর্ষের ঝুমুর আক্তার, বাংলা দ্বিতীয় বর্ষের ফাতেমা আক্তার, ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের জান্নাত এবং উদ্ভিদ দ্বিতীয় বর্ষের মিষ্টি।’

তাদের মধ্যে মুনিরা আক্তার মুনি গ্রুপের শারমিন আক্তার, মারিয়া হোসেন এবং ইসরাত জাহানকে প্রথমে বরিশাল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখান থেকে পরে নিয়ে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ঘটনা প্রত্যক্ষদর্শীরা একাধিক শিক্ষার্থী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানায়, ছাত্রী নিবাসের ২ নম্বর কাকলী ভবনের পাশের একটি পেয়ারা গাছ থেকে মুনিরা আক্তার মুনি’র অনুসারীরা পেয়ারা পারছিলো। এ নিয়ে অপর অংশের নেত্রী হেনা আক্তারের অনুসারীদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে দুই গ্রুপ মারামারিতে লিপ্ত হয়। পরক্ষণে তারা লাঠিসোটা নিয়ে মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন।

খবর পেয়ে বিএম কলেজ প্রশাসন ও হল কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। কিন্তু সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলেও তাদেরকে হলের ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ রয়েছে।

কলেজ ছাত্রলীগের নেত্রী মুনিরা মুনি সাংবাদিকদের বলেন, ভবন নির্মাণকারী ঠিকাদার জুয়েল পেয়ারা খাওয়ার জন্য হলের সাধারণ ছাত্রীদের ডাকেন। এজন্য সাধারণ ছাত্রীরা হলের গাছ থেকে পেয়ারা পাড়তে শুরু করেন। তখন হেনা আক্তার এবং তার অনুসারীরা বাধা দেন। 

এক পর্যায় হেনা তার অনুসারী ঝুমুর, ফাতেমা, জান্নাত এবং মিষ্টিসহ কয়েকজনকে নিয়ে সাধারণ ছাত্রীদের ওপর লাঠি নিয়ে হামলা করেন। তাদের প্রতিরোধে এগিয়ে গেলে তখন তাকেও পিটিয়ে আহত করা হয়। 

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে হেনার অনুসারী ঝুমুর সাংবাদিকদের জানান, পেয়ারা পাড়ায় তাকে কটুক্তি করলে ভবন থেকে নেমে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। কিন্তু এ সময় মুনিরা ও তার অনুসারী রিয়া তাদের ওপর হামলা চালায়।

বনমালী গাঙ্গলী ছাত্রী নিবাসের ভারপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক এসএম নাসির উদ্দীন সাংবাদিকদের বলেন, পেয়ারা পাড়া নিয়ে দুই নেত্রী ও তাদের অনুসারীদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে গুরুতর আহত তিন ছাত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কলেজের উপাধাক্ষ্য স্বপন কুমার পাল বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে তারা যান। কিন্তু এরআগেই মারামারি থেমে যায়। ঘটনাটি তদন্তে কমিটি করা হবে। 

ওই প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’


গো নিউজ২৪/এএইচ
 

শিক্ষা বিভাগের আরো খবর
ঢাবি ভিসি অফিসের সামনে বিক্ষোভ

ঢাবি ভিসি অফিসের সামনে বিক্ষোভ

ঢাবি প্রক্টর অবরুদ্ধ, শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

ঢাবি প্রক্টর অবরুদ্ধ, শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

বেরোবিতে শিক্ষক সমিতির নেতৃত্বে নতুন মুখ

বেরোবিতে শিক্ষক সমিতির নেতৃত্বে নতুন মুখ

সম্মানসূচক ডি.লিট উপাধিতে ভূষিত প্রণব মুখার্জি

সম্মানসূচক ডি.লিট উপাধিতে ভূষিত প্রণব মুখার্জি

সচিবের আশ্বসে মাদ্রাসা শিক্ষকদের অনশন প্রত্যাহার

সচিবের আশ্বসে মাদ্রাসা শিক্ষকদের অনশন প্রত্যাহার

আমরণ অনশনে এক শিক্ষকের মৃত্যু

আমরণ অনশনে এক শিক্ষকের মৃত্যু

grameenphone