৯ আষাঢ় ১৪২৪, শুক্রবার ২৩ জুন ২০১৭ , ১০:৫৮ পূর্বাহ্ণ

‘২০১৮ সালের মধ্যে পদ্মাব্রিজ দিয়ে দক্ষিণাঞ্চলে যাওয়া যাবে’


গো নিউজ২৪ | জেলা প্রতিনিধি আপডেট: ১৯ মার্চ ২০১৭ রবিবার
‘২০১৮ সালের মধ্যে পদ্মাব্রিজ দিয়ে দক্ষিণাঞ্চলে যাওয়া যাবে’

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, “২০১৮ সালের মধ্যে পদ্মাব্রিজ দিয়ে আমরা দক্ষিণাঞ্চলে যাব ইনশাল্লাহ। অনেক উন্নয়ন হয়েছে মুন্সীগঞ্জে।  ডা. ইউনুছ এর বাধায় কিছুই হয় নাই।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গৃহীত পদক্ষপের কারণে আজ পদ্মাসেতু হয়েছে। ”

তিনি বলেন, “জাতির জনক যেমন লক্ষ্য নির্ধারণ করে রাজনীতি করতেন সেই রকমই রাজনীতি করে চলেছেন তার কন্যা শেখ হাসিনা।  আগামী নির্বাচনে বঙ্গবন্ধুর কন্যা যার হাতে নৌকা দিবেন তাকে আপনারা বিজয়ী করবেন কিনা তার প্রতিশ্রুতি নেন অনুষ্ঠানে। ”

রোববার বিকেল ৪টার দিকে মুন্সীগঞ্জ জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ের সামনে সড়কে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্যে এ সব কথা বলেন।তিনি। 

প্রধান অতিথি আরো বলেন, “আজকে আমাদের দেশের রফতানি ৩৬ মিলিয়ন ডলার।  আমাদের রিজার্ভ ৩২ মিলিয়ন ডলার, রেমিট্যান্স ১৫ মিলিয়ন ডলার আমাদের বিদ্যুৎ উৎপাদন সাড়ে ১৫ হাজার মেগাওয়াট যা কোনো সরকার করতে পারে নাই। এটা বাংলাদেশে সম্ভব হয়েছে বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার কারণে।  বঙ্গবন্ধু এদেশের মানুষকে দিয়েছেন স্বাধীন দেশ।  বাংলাদেশকে সোনার বাংলায় পরিণত করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুটি লক্ষ্য নির্ধারণ করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।  তার মধ্যে একটি হলো ডিজিটাল বাংলাদেশ যা ইতোমধ্যে বাংলাদেশে সফলতা অর্জন করেছে।  দ্বিতীয় লক্ষ্য হলো মধ্যম আয়ের দেশে বাংলাদেশকে পরিণত করা।  মহান নেতাকে হত্যা করে বাংলাদেশকে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে।  বঙ্গবন্ধুর অসাপ্ত কাজ হাতে নিয়ে বাংলাদেশকে একটি সোনার বাংলায় রূপান্তর করার দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তিনি। “ 

উপস্থিত সকলকে উদ্দেশ্য করে প্রধান অতিথি বলেন, “নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের তারিখ দিবে সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে আপনারা বিজয়ী করবেন।  ২০২১ সালকে আপনাদের সামনে রাখতে হবে। “  

মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদের নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান  ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মোহাম্মদ মহিউদ্দিনকে জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে গণসংবর্ধনা দেয়া হয়। 
 
জেলা আওয়ামী লীগের সধারণ সম্পাদক আলহাজ শেখ মো. লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. মৃণাল কান্তি দাস, মুন্সীগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, মুন্সীগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য সুকুমার রঞ্জন ঘোষ, মুন্সীগঞ্জ সংরক্ষিত নারী আসানে সংসদ সদস্য ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা।

অন্যদের মধ্যে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আনিছউজ্জামান আনিছ, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও গণসংবর্ধনা প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব অ্যাড. সোহানা তাহমিনা, পৌর মেয়র ফয়সাল বিপ্লব, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল মৃধা। 

গোনিউজ২৪/এম