৯ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, শুক্রবার ২৪ নভেম্বর ২০১৭ , ১২:২৪ পূর্বাহ্ণ

১০ হাজার টাকা জামানত রেখে এসএসসি’র ফরম ফিলাপ!


গো নিউজ২৪ | ভোলা প্রতিনিধি আপডেট: ১০ নভেম্বর ২০১৭ শুক্রবার
১০ হাজার টাকা জামানত রেখে এসএসসি’র ফরম ফিলাপ!
ফাইল ছবি

ভোলা বোরহানউদ্দিন পদ্মা মনসা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ২০১৮ সালের  ২৯ জন এসএসসি পরীক্ষার্থী স্কুল টেস্ট পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করেন। তাদের মধ্যে মাত্র সাত জন পরীক্ষায় উর্ত্তীন্ন হন এবং বাকি ২২জনই ফেল করেন। বেশির ভাগ শিক্ষার্থী ফেল করার পেছনে শিক্ষকদের ক্লাসে পাঠদানের চেয়ে স্কুল লাইব্রেরীতে আড্ডা দেওয়াকেই দায়ি করছেন অভিভাবকরা। 

অভিভাবকরা জানান, টেস্ট পরীক্ষায় উর্ত্তীন্ন হওয়া সাত জন শিক্ষার্থী এসএসসি ফরম ফিলাপের সুযোগ পেলেও স্কুল গর্ভনিং বডির সিদ্ধান্ত মোতাবেক ফেল করা ২২জন শিক্ষার্থী ফরম ফিলাপ করতে হলে স্কুল ফান্ডে জনপ্রতি দশ হাজার টাকা জামানত হিসাবে রেখে নির্ধারিত বোর্ড ফি পরিশোধ করে ফরম পুরন করতে হবে। 

গর্ভনিং বডির এমন সিদ্ধান্তে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে।  স্কুলের প্রধান শিক্ষক আজিজুল ইসলামো কাছে ফরম ফিলাপের ব্যপারে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা একাধিক বার গেলেও তিনি সাফ জানিয়ে দেন  গর্ভনিং বডির সিদ্ধান্তের বাইরে তাহার কোন কিছুই করার নেই। 

ইতিমধ্যে  শিক্ষার্থী ও অভিবাবকরা ওই স্কুল গর্ভনিং বডির সভাপতি বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুস কুদ্দুছকে জানালেও এখনো কোন সুরাহা করতে পারেননি। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, শিক্ষক ও গর্ভনিং বডির খাম খেয়ালীপনায় আজ আমাদের শিক্ষা জীবন অনিশ্চিতার মধ্যে রয়েছে। টাকার লোভে ইচ্ছাকৃতভাবে আমাদেরকে ফেল করানো হয়েছে বলেও অভিযোগ তাদের। 

অভিবাবকরা বলেন, স্কুলের ফান্ডে টাকা জামানত রেখে ফরম ফিলাপ করতে হয় আগে আমরা কখনো শুনি নাই। এত টাকা জামানত রেখে ছেলে মেয়েদের ফরম ফিলাপ করা আমাদের পক্ষে অসম্ভব। 

টাকা জামানত রাখার ব্যাপারে স্কুলের প্রধান শিক্ষক আজিজুল ইসলামের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, যে সকল ছাত্র-ছাত্রী টেস্ট পরীক্ষায় রেজাল্ট খারাফ করেছে তাদের লেখাপড়ায় মনযোগী করতে গর্ভনিং বডি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং টাকা জামানত দেয়া শিক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় পাস করলে তার টাকা ফেরত দেয়া হবে।  আর ফেল করলে তার জামানতের টাকা স্কুলের উন্নয়নের কাজে ব্যবহার করা হবে বলে জানান তিনি।

এব্যাপারে বোরহানউদ্দিন পদ্মা মনসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের স্কুল গর্ভনিং বডির সভাপতি বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল কুদ্দুছ জানান, শিক্ষা বোর্ডের চিঠি অনুযায়ী টেস্ট পরীক্ষায় ফেল করা ছাত্র-ছাত্রীদের এসএসসি পরীক্ষার ফরম ফিলাপে নিষেধ রয়েছে। ফেল করার পরেও যেসকল শিক্ষার্থী  ফরম ফিলাপ করতে চায় তাহলে তাকে অবশ্যই পরীক্ষায় পাস করার নিশ্চয়তা দিয়ে ফরম ফিলাপ করতে হবে। তাই তাদের কাছে দশ হাজার টাকা স্কুল ফান্ডে জমা রেখে ফরম ফিলাপ করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। পরীক্ষায় পাশ করলে টাকা ফেরৎ পাবে। আর ফেল করলে স্কুলের উন্নয়নের কাজে ব্যয় করা হবে।

গোনিউজ২৪/কেআর