৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, বুধবার ২২ নভেম্বর ২০১৭ , ৬:৫০ অপরাহ্ণ

স্বপ্নের ঠিকানায় হাবিবা, চোখেমুখে আনন্দ অশ্রু!


গো নিউজ২৪ | আল মামুন, জেলা প্রতিনিধি আপডেট: ১৪ জুলাই ২০১৭ শুক্রবার
স্বপ্নের ঠিকানায় হাবিবা, চোখেমুখে আনন্দ অশ্রু!

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপারের বাসভবনের নাম স্বপ্নবিলাস। আর এ স্বপ্ন বিলাসেই সরকারি শিশু পরিবারের অনাথ তরুণী হাবিবার স্বপ্নযাত্রা শুরু হয়েছে। অনাথ হাবিবা পেয়ে গেলেন স্বপ্নের ঠিকানা।

ঘর আর বর নিয়ে সুখী হতে তাই সবার কাছে দোয়া চাইলেন। অভিভাবকের মতো যিনি সবকিছুই সাজিয়ে গুছিয়ে দিলেন সেই পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমানের প্রতি জানালেন অশেষ কৃতজ্ঞতা।

কনে হাবিবা

শুক্রবার (১৪ জুলাই) রাতে স্বপ্নবিলাসে বিদায় অনুষ্ঠানে চোখে মুখে আনন্দের অশ্রু দেখা গেছে কনের। বাবার ভূমিকায় থাকা এসপির বাসভবন থেকে বিদায় বেলায় হাবিবা বললেন, আমার তো আপন কেউ নেই। তাই নতুন ঠিকানায় যেন ভালো থাকতে পারি সে চেষ্টাই করব।

বর আসছেন

হাবিবার সুখি জীবন কামনায় বিয়েতে হাজির হয়েছিলেন জেলা প্রশাসক ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাসহ নানা শ্রেণি-পেশার তিন শতাধিক মানুষ। বিদায় বেলায় উপস্থিত সবার কাছে দোয়া চেয়ে বললেন, যেন বিবাহিত জীবনে আমি আমার স্বামী সংসার নিয়ে সুখে থাকতে পারি সে দোয়া চাই।

কনে সাজে হাবিবা

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বললেন, ‘আমার মতো আরো যারা সরকারি শিশু পরিবারে আছে তাদেরও যেন আমার মতো বিয়ে হয়। আমি সকলের দোয়া কামনা করি। এক প্রশ্নের জবাবে হাবিবার বর জাকারিয়াও সবার কাছে দোয়া চেয়ে বললেন, আমি মনে করি সে আমার পরিবারে গেলে সুখে থাকবে। আমি তাকে খারাপ রাখব না।

এর আগে বেলা আড়াইটার দিকে হাবিবার বাবার ভূমিকায় থাকা পুলিশ সুপার মিজানুর রহমানের উপস্থিতিতে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে কাজী আবু জামাল হাবিবা-জাকারিয়ার বিয়ে পড়ান।

বর-কনে

বিয়ের সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে স্বপ্নবিলাস থেকে রাত ১০টার দিকে কনে হাবিবাকে বিদায় জানান ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য র. আ. ম ওবায়দুল মোক্তাদির চৌধুরী, ফজিলাতুননেসা বাপ্পী, জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগ-এর সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসাইন, সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত ও শিশু পরিবারের উপ-তত্ত্বাবধায়ক রওশন আরা বেগমসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তি ও সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও সাংবাদিক সংগঠনের নেতারা।

বিয়ের আসর

গো নিউজ২৪/এন