৭ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ৪:১৪ পূর্বাহ্ণ

সৈনিক পদে লোক নেবে সেনাবাহিনী


গো নিউজ২৪ | গো নিউজ ডেস্ক আপডেট: ১২ এপ্রিল ২০১৭ বুধবার
সৈনিক পদে লোক নেবে সেনাবাহিনী

সৈনিক চেয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। নিয়োগ দেওয়া হবে কুক (মেস), কুক (ইউনিট), কুক (হাসপাতাল), ইকুইপমেন্ট অ্যান্ড বুট রিপেয়ারার, বাদক, ব্রাসব্যান্ড, কার্পেন্টার, পেইন্টার ডেকোরেটর, পেইন্টার, টিন স্মিথ, কাটিং অ্যান্ড জয়েনিং ও টেইলারিং পেশায়। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিটি প্রকাশিত হয়েছে ৮ এপ্রিল একটি জাতীয় পত্রিকায়। বিজ্ঞপ্তি পাওয়া যাবে www.army.mil.bd লিংকেও ওয়েবসাইটেও।

আবেদনের যোগ্যতা

বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে। শুধু আবেদন করতে পারবেন অবিবাহিত পুরুষ প্রার্থীরা। প্রার্থীকে সাঁতার জানতে হবে। ১৫ নভেম্বর ২০১৭ তারিখে বয়স হতে হবে ১৭ থেকে ২০ বছরের মধ্যে। পেইন্টার ডেকোরেটর ও পেইন্টার ছাড়া সব পেশায় আবেদনের জন্য যেকোনো বিভাগে এসএসসি পাস হলেই চলবে। জিপিএ থাকতে হবে কমপক্ষে ২.৫০। তবে ডেকোরেটর ও পেইন্টার পেশায় প্রার্থীকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এসএসসি পাস হতে হবে। এ ক্ষেত্রেও জিপিএ লাগবে ২.৫০।

কুক পেশায় আবেদনের জন্য প্রার্থীকে উন্নতমানের রান্নায় পারদর্শী হতে হবে। বুট মেরামত বা সেলাইয়ে পারদর্শী থাকতে হবে ইকুইপমেন্ট অ্যান্ড বুট রিপেয়ারার প্রার্থীদের। টেইলার পেশায় আবেদনের জন্য সেলাইয়ের ওপর কমপক্ষে তিন মাসের প্রশিক্ষণ থাকতে হবে, বিশেষ করে প্যান্ট ও শার্ট সেলাইয়ের ওপর। কাঠমিস্ত্রি কাজে পারদর্শী হলেই আবেদন করা যাবে কার্পেন্টার ও কাটিং অ্যান্ড জয়েনিং পেশায়। পেইন্টার ডেকোরেটর ও পেইন্টার পেশায় আবেদনের জন্য পেইন্টিং কাজে পারদর্শিতা থাকতে হবে। টিন মেরামতের দক্ষতা থাকলে আবেদন করা যাবে টিন স্মিথ পেশায়। আর বাদক ও ব্রাসব্যান্ডের ক্ষেত্রে বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্রে পারদর্শীরা অগ্রাধিকার পাবেন।

শারীরিক যোগ্যতা

উচ্চতা থাকতে হবে কমপক্ষে ১.৬৮ মিটার বা ৫ ফুট ৬ ইঞ্চি। তবে বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও সম্প্রদায়ের জন্য উচ্চতা চাওয়া হয়েছে ১.৬৩ মিটার বা ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি। ওজন থাকতে হবে কমপক্ষে ৪৯.৯০ কেজি বা ১১০ পাউন্ড। বুকের মাপ হতে হবে স্বাভাবিক অবস্থায় ০.৭৬ মিটার বা ৩০ ইঞ্চি আর সম্প্রসারিত অবস্থায় ০.৮১ মিটার বা ৩২ ইঞ্চি।

যা যা লাগবে

ভর্তির দিন প্রার্থীকে শিক্ষাগত যোগ্যতার মূল সনদপত্র বা মার্কশিট সঙ্গে আনতে হবে। আর ফটোকপি হলে তা সত্যায়িত হতে হবে। সঙ্গে লাগবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানের কাছ থেকে পাওয়া স্থায়ী ঠিকানা ও জন্ম তারিখসংবলিত মূল প্রশংসাপত্র, চেয়ারম্যান সত্যায়িত অভিভাবকের সম্মতিপত্র, নাগরিকত্ব ও চারিত্রিক সনদের মূল কপি, এসএসসি বা এইচএসসির প্রবেশপত্র। সঙ্গে রাখতে হবে সদ্য তোলা নীল বা আকাশি ব্যাকগ্রাউন্ডের ৬ কপি (৫ সে.মি.x৪ সে.মি.) পাসপোর্ট সাইজের ও ২ কপি (২.৫ সে.মি.x২ সে.মি.) স্ট্যাম্প সাইজের ছবি। টেইলার পদের প্রার্থীদের সঙ্গে আনতে হবে সেলাইসংক্রান্ত প্রশিক্ষণ সনদ। কোটার ক্ষেত্রে লাগবে প্রয়োজনীয় সব সনদ। ‘সেনা সদর, এজি শাখা, পিএ পরিদপ্তর’-এর নামে সোনালী ব্যাংক, ঢাকা সেনানিবাস, করপোরেট শাখার অনুকূলে যেকোনো সোনালী ব্যাংক থেকে ২০০ টাকা পে-অর্ডার বা ব্যাংক ড্রাফট জমা দিয়ে তার কপি সঙ্গে আনতে হবে। সাঁতার পরীক্ষার জন্য লাগবে প্রয়োজনীয় পোশাক।

নিয়োগপ্রক্রিয়া

প্রার্থীকে নির্ধারিত তারিখ ও সময়ানুযায়ী সব কাগজপত্র নিয়ে উপস্থিত থাকতে হবে নিজ জেলার ভর্তি কেন্দ্রে। ভর্তির সময়সূচি পাওয়া যাবে বিজ্ঞপ্তিতে। সাধারণত তিনটি ধাপে নিয়োগ হয়ে থাকে। স্বাস্থ্য পরীক্ষা, লিখিত পরীক্ষা ও মৌখিক পরীক্ষা। স্বাস্থ্য পরীক্ষায় প্রার্থীর উচ্চতা, বুকের মাপ, সাঁতারে দক্ষতা, উচ্চতানুযায়ী ওজনের সামঞ্জস্যতা ও বিভিন্ন শারীরিক সক্ষমতা যাচাই করা হয়। পরীক্ষার দিন ব্যায়ামের উপযোগী ঢিলেঢালা পোশাক পরলে শারীরিক পরীক্ষার ধাপগুলো সহজ হবে। সঙ্গে রাখতে হবে সাঁতারের পোশাকও। বাংলা, ইংরেজি, গণিত ও সাধারণ জ্ঞানের ওপর লিখিত পরীক্ষা হয়ে থাকে। সাধারণত এসএসসি লেভেলের প্রশ্ন হয়। বাংলা অংশে সাহিত্য ও ব্যাকরণ থেকে প্রশ্ন আসে। ইংরেজি অংশে আসে গ্রামার। গণিত অংশে ভালো করতে হলে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির গণিত বইগুলো দেখতে হবে। আর সাধারণ জ্ঞান অংশে প্রশ্ন হয় বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি থেকে। প্রশ্ন হতে পারে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও পদসংশ্লিষ্ট বিষয়ে। এসএসসি পর্যন্ত পঠিত বিষয়গুলোতে দক্ষ প্রার্থীরা প্রস্তুতির দিক থেকে এগিয়ে থাকবেন লিখিত পরীক্ষায়। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীক্ষার জন্য ডাকা হবে। মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণরা চূড়ান্তভাবে নিয়োগ পাবেন।

বেতন ও সুযোগ-সুবিধা

নিয়োগপ্রাপ্তরা নির্ধারিত স্কেল অনুযায়ী বেতন-ভাতা ও রেশন সুবিধা পাবেন। রয়েছে বিনা মূল্যে বাসস্থান, পোশাক, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে পরিবারের চিকিত্সা, সন্তানের পড়ালেখা ও উচ্চশিক্ষার সুযোগ। থাকবে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে যাওয়ার সুযোগ ও সেনাপল্লীতে প্লট পাওয়ার সুবিধা।

যোগাযোগ

পরিচালক, পার্সোনেল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন পরিদপ্তর, অ্যাডজুট্যান্ট জেনারেল শাখা, সেনাবাহিনী সদর দপ্তর, ঢাকা সেনানিবাস।
ওয়েব : www.army.mil.bd