৫ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ১২:১৬ পূর্বাহ্ণ

সেনাবাহিনীতে সৈনিক পদে নিয়োগ


গো নিউজ২৪ আপডেট: ১৭ জুন ২০১৬ শুক্রবার
সেনাবাহিনীতে সৈনিক পদে নিয়োগ

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সম্প্রতি ২০১৭ ব্যাচের জন্য সৈনিক পদে লোকবল নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। বিজ্ঞপ্তি অনুসারে সাধারণ ট্রেড (জিডি) ও কারিগরি ট্রেড এই দুই পদে লোকবল নিয়োগ দেওয়া হবে। সাধারণ ট্রেডে (জিডি) আবেদন করতে পারবেন নারী-পুরুষ উভয়েই, তবে কারিগরি ট্রেডের জন্য শুধু পুরুষ প্রার্থীরাই আবেদন করতে পারবেন। আগামী ১৭ জুলাই ২০১৬ থেকে নির্ধারিত সেনানিবাসে লোক ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবে, চলবে ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ পর্যন্ত। সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার স্বপ্ন যাঁদের আজন্ম তাঁরা অনায়াসেই কাজে লাগাতে পারেন সুযোগটি।


আবেদনের যোগ্যতা
সাধারণ ট্রেডে আবেদনের জন্য নারী-পুরুষ উভয়কেই এসএসসি অথবা সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে জিপিএ ৩.০ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। তবে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে উত্তীর্ণ নারী প্রার্থীদের এ ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। কারিগরি ট্রেডে আবেদনের জন্য আবেদনকারীকে এসএসসি অথবা সমমানের পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে কমপক্ষে জিপিএ ৩.০ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। তবে চালক পদের জন্য আবেদনকারীকে এসএসসি অথবা সমমানের পরীক্ষায় যেকোনো বিভাগ থেকে জিপিএ ৩.০ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। সঙ্গে গাড়ি চালনায় দক্ষ এবং বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকবে। এ ক্ষেত্রে টিটিটিআই থেকে ড্রাইভিং প্রশিক্ষণের সনদপ্রাপ্ত প্রার্থীদের যোগ্য বলে বিবেচিত করা হবে।

শিক্ষাগত যোগ্যতার পাশাপাশি পুরুষ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে উচ্চতা হতে হবে কমপক্ষে পাঁচ ফুট ছয় ইঞ্চি, তবে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ও সম্প্রদায়ের জন্য সর্বনিম্ন উচ্চতা হতে হবে পাঁচ ফুট চার ইঞ্চি। বুকের মাপ স্বাভাবিক অবস্থায় ৩০ ইঞ্চি এবং স্ফীত অবস্থায় ৩২ ইঞ্চি হতে হবে। ওজন হতে হবে ৪৯.৯০ কেজি। নারী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে উচ্চতা হতে হবে কমপক্ষে পাঁচ ফুট তিন ইঞ্চি। তবে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ও সম্প্রদায়ের জন্য সর্বনিম্ন উচ্চতা হতে হবে পাঁচ ফুট এক ইঞ্চি। বুকের মাপ স্বাভাবিক অবস্থায় ২৮ ইঞ্চি এবং স্ফীত অবস্থায় ৩০ ইঞ্চি হতে হবে। ওজন হতে হবে ৪৭ কেজি।
সাধারণ ট্রেডে আবেদনের জন্য আগামী ১৫ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে আবেদনকারীর বয়স হতে হবে ১৭ থেকে ২০ বছরের মধ্যে এবং কারিগরি ট্রেডে আবেদনের জন্য আগামী ১৫ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে আবেদনকারীর বয়স হতে হবে ১৭ থেকে ২১ বছরের মধ্যে। তবে কেবল ড্রাইভার পদের জন্য বয়স হতে হবে ১৮ থেকে ২১ বছরের মধ্যে। এ ছাড়া প্রার্থীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষায় যোগ্য, সাঁতার জানা এবং অবিবাহিত হতে হবে।

আবেদন প্রক্রিয়া
সাধারণ (জিডি) ট্রেডে আবেদনের জন্য নারী-পুরুষ উভয়কেই ৫ জুন ২০১৬ থেকে ৩০ জুন ২০১৬ তারিখের মধ্যে টেলিটক মোবাইল থেকে যথাযথ পদ্ধতিতে এসএমএস করে http://sainik.teletalk.com.bd অথবা www.joinbangladesharmy.mil.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। প্রত্যেক প্রার্থীকেই এই পদ্ধতিতে নিজ নিজ ছবি ও রোল নম্বর-সংবলিত প্রবেশপত্র প্রিন্ট করে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। তবে ৬৪ জেলার মধ্যে শুধু ২৬টি জেলার নারী প্রার্থীরা সাধারণ ট্রেডে আবেদনের সুযোগ পাবেন। জেলাগুলো হলো রংপুর, নওগাঁ, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, কুষ্টিয়া, মেহেরপুর, মাগুরা, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর, নড়াইল সাতক্ষীরা, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, পটুয়াখালী, ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, কিশোরগঞ্জ, ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, রাজবাড়ী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী ও ফেনী।
বিএনসিসি ক্যাডেটদের আগামী ৭ আগস্ট ২০১৬ তারিখে স্ব-স্ব রেজিমেন্টের কাছ থেকে সোনালী ব্যাংকের যেকোনো শাখার মাধ্যমে সেনাসদর, এজি শাখা, পিএ পরিদপ্তরের নামে সোনালী ব্যাংক, ঢাকা সেনানিবাস করপোরেট শাখার অনুকূলে ২০০ টাকার পে-অর্ডার বা ব্যাংক ড্রাফটের বিনিময়ে ভর্তি ফরম সংগ্রহ করতে হবে এবং পরীক্ষার তারিখ ও সময় সম্পর্কে জানতে হবে।
সেনা সন্তান ও কারিগরি ট্রেডের প্রার্থীদের সেনাসদর, এজি শাখা, পিএ পরিদপ্তরের নামে সোনালী ব্যাংক, ঢাকা সেনানিবাস করপোরেট শাখার অনুকূলে সোনালী ব্যাংকের যেকোনো শাখার মাধ্যমে ২০০ টাকার পে-অর্ডার বা ব্যাংক ড্রাফটের বিনিময়ে নির্ধারিত আর্মড/ সার্ভিসেস সেন্টার থেকে আগামী ১৬ থেকে ১৮ অক্টোবর ২০১৬ তারিখের মধ্যে ভর্তি ফরম সংগ্রহ করতে হবে, এবং তা যথাযথভাবে পূরণ করে ১৯ ও ২০ অক্টোবরের মধ্যে জমা দিতে হবে।
ট্রাস্ট টেকনিক্যাল ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (টিটিটিআই) থেকে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত যোগ্য প্রার্থীদের আগামী ৪ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে কারিগরি ট্রেডে ভর্তি করা হবে। এ জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং সোনালী ব্যাংকের যেকোনো শাখা থেকে সেনাসদর, এজি শাখা, পিএ পরিদপ্তরের নামে সোনালী ব্যাংক, ঢাকা সেনানিবাস করপোরেট শাখার অনুকূলে ২০০ টাকারপে-অর্ডার বা ব্যাংক ড্রাফটসহ সকাল আটটার মধ্যে টিটিটিআই, গাজীপুর সেনানিবাসে উপস্থিত হতে হবে।

নিয়োগ প্রক্রিয়া
আবেদনকারীদের বাংলা, ইংরেজি, গণিত, সাধারণ জ্ঞান ও বুদ্ধিমত্তার ওপর লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। সেখানে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মধ্য থেকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে চূড়ান্তভাবে প্রার্থী নির্বাচন করা হবে। চূড়ান্তভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত প্রার্থীদের সেনাসদরের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ছয় মাস থেকে এক বছর মৌলিক সামরিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে হবে।

বেতন-ভাতা ও অন্যান্য সুবিধাদি
চূড়ান্তভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত প্রার্থীরা সেনাবাহিনী কর্তৃক নির্ধারিত স্কেলে বেতন-ভাতা, পেনশন ও অন্যান্য সুবিধাদি পাবেন। এ ছাড়া বিনা মূল্যে আহার, বাসস্থান, নিজ পরিবারবর্গ ও আত্মীয়স্বজনের জন্য সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসা সুবিধা, বিনা মূল্যে সরকারি পোশাক পরিচ্ছদ, নিজ ও পরিবারবর্গের জন্য ভর্তুকি মূল্যে রেশন, সেনাবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সন্তানদের জন্য যোগ্যতা সাপেক্ষে উচ্চশিক্ষার সুযোগ, চাকরির শর্ত সাপেক্ষে সেনাপল্লিতে প্লট প্রাপ্তির সুযোগ-সুবিধা। এ ছাড়া নীতিমালা অনুযায়ী জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীতে যোগদান করে বিদেশ ভ্রমণ ও আর্থিক সচ্ছলতা অর্জনের সুযোগ তো রয়েছেই।

বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ
পরিচালক, পার্সোনেল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন পরিদপ্তর, অ্যাডজুট্যান্ট জেনারেল শাখা, সেনাবাহিনী সদর দপ্তর, ঢাকা সেনানিবাস।

 

গো নিউজ ২৪/ এস কে