১৬ বৈশাখ ১৪২৪, শনিবার ২৯ এপ্রিল ২০১৭ , ১১:২৮ অপরাহ্ণ

সুরঞ্জিতের এপিএস ওমর ফারুকের কারাদণ্ড ও জরিমানা


গো নিউজ২৪
|
সুরঞ্জিতের এপিএস ওমর ফারুকের কারাদণ্ড ও জরিমানা

সাবেক রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের তৎকালীন এপিএস ওমর ফারুক তালুকদারকে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় পাঁচ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাঁকে ১ কোটি ২৩ লাখ ৪৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এই জরিমানা অনাদায়ে তাঁকে আরও ২ বছর ৬ মাস কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে।

রোববার ঢাকার ৪ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক মো. আতাউর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার সময় ওমর ফারুক আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায়ের পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আসামি ফারুকের আইনজীবী পূর্নেন্দু দেবনাথ পিনাকি বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশন আইনের ২৭ (১) ধারার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত ফারুককে পাঁচ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন। তাকে জরিমানাও করা হয়েছে। এছাড়া দুদক আইন-২০০৪ এর ২৬(২) ধারায় দায়ের করা মামলায় অপরাধ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত আসামিকে খালাস দিয়েছেন। আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে। 

ঊল্লেখ্য, ২০১২ সালের ৯ এপ্রিল রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের সাবেক মহাব্যবস্থাপক ইউসুফ আলী মৃধা, তখনকার রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের এপিএস ফারুক ও রেলওয়ের কমান্ড্যান্ট এনামুলকে বহনকারী একটি গাড়ি বিজিবি সদর দপ্তরে ঢুকিয়ে দেন এর চালক আজম। পরে ঐ গাড়িতে তাঁদের কাছে ৭০ লাখ টাকা পাওয়া যায়। এই ঘটনার জেরে রেলমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়ান সুরঞ্জিত। পরে দুদক এর অনুসন্ধান শুরু করে। ২০১২ সালের ১৪ আগস্ট রমনা থানায় সম্পদ, তথ্য গোপন ও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের উপপরিচালক রাশেদুল রেজা বাদী হয়ে আসামির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। ২০১৩ সালের ১৬ মে আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। মামলাটির বিচারকার্য চলাকালে অভিযোগপত্রভূক্ত ২৩ জন সাক্ষীর মধ্যে ২২ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেন আদালত।

গো-নিউজ২৪/বিএস