১ পৌষ ১৪২৪, শনিবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ , ১:৫৫ পূর্বাহ্ণ

সুযোগ পেয়েই মহিলার স্পর্শকাতর স্থানে হাত, সাথে সাথেই পেলেন সাজা!


গো নিউজ২৪ | আন্তর্জাতিক ডেস্ক আপডেট: ০৪ ডিসেম্বর ২০১৭ সোমবার
সুযোগ পেয়েই মহিলার স্পর্শকাতর স্থানে হাত, সাথে সাথেই পেলেন সাজা!

দিন দুপুরে তাকে ল্যাবে একা পেয়েই মহিলার স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিলে ল্যাব মালিক। প্রতিদান হিসেবে সাথে সাথেই জুতোপেটা খেলেন ল্যাব মালিক মানস মন্ডল। ঘটনাটি ঘটেছে সিউড়ির একটি অতি পরিচিত রক্ত পরীক্ষা কেন্দ্রে।

রোববার দুপুরে মহিলা কর্মীর একা থাকার সুযোগে এমন কাণ্ড ঘটান ওই ব্যক্তি বলে মহিলা কর্মীর অভিযোগ। এর পরেই প্রতিবেশীরা ওই ল্যাবে চড়াও হন। তাদের সঙ্গে যোগ দেন ওই ল্যাবে কাজ করা আগের সহকর্মী মহিলারা। তাদের অভিযোগ, এর আগে তাদের উপরে মালিক যৌন নির্যাতন চালালেও তারা প্রতিবাদ করতে পারেননি।

এর পরেই ল্যাব থেকে মালিক মানস মণ্ডলকে রাস্তায় বের করে এনে মহিলারা ঝাঁটা ও জুতো পেটা করেন। মারের জেরে মানসবাবু তার নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করে নেন। 

তিনি জানান, ওই কর্মীর সঙ্গে তার কিছু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। যদিও তার ল্যাবে কাজ করা আগের মহিলাদের অভিযোগ, শুধু এবারই নয় এর আগেও এমন অপকর্ম করেছেন মানসবাবু। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

গত পনেরো বছর ধরে সিউড়ি লালদিঘি পাড়ায় এই রক্ত পরীক্ষা কেন্দ্র চালান মানস মণ্ডল। রোববার দুপুরে দমকলের সামনে ওই ল্যাবরেটারিতে তুলকালাম শুরু হয়। কর্মরত এক মহিলা অভিযোগ করেন এদিন দুপুরে তাকে ল্যাবে একা পেয়ে শ্লীলতাহানি করেছে ল্যাব মালিক। সিউড়ি ত্রাণ সমিতি এলাকার বাসিন্দা বিবাহিত ওই মহিলা জানান, পনের দিন আগে তিনি ল্যাবরেটারির সহকর্মী হিসাবে কাজে যোগ দেন।

তার অভিযোগ, দু’দিন যেতে না যেতেই তাকে নানা কুপ্রস্তাব দিতে শুরু করেন মানসবাবু। এদিন অন্য এক সহকর্মী গৌতম দাস দুপুরে বাইরে গেলে তাকে চেপে ধরে তার শ্লীলতাহানি করেন মানসবাবু। তবে চিৎকার করে ওঠায় সঙ্গে সঙ্গে তাকে ছেড়ে দেন তিনি। খবর এবেলার।

ওই মহিলাই ফোন করে আগের সহকর্মীদের ডাকেন। সিউড়ি তিলপাড়া গ্রামের বাসিন্দা, ওই ল্যাবেরই এক মহিলা কর্মী অভিযোগ করেন, প্রায়ই নিজের চেম্বারে মদ্যপান করতেন মানসবাবু। তাঁকেও সেই আসরে যোগ দিয়ে কুপ্রস্তাবে সাড়া দেওয়ার কথা বলতেন তিনি। তিনি লজ্জায় কিছুদিন কাজ করে ল্যাব ছেড়ে দেন। তাঁর অভিযোগ, হাসপাতালে কাজের টোপ থেকে নানা কিছু পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখাতেন মানসবাবু।

মহিলা কর্মীরা প্রকাশ্যে এদিন মানস মণ্ডলকে রাস্তায় এনে ঝাঁটাপেটা ও জুতোপেটা করেন । যোগ দেন এলাকার বাসিন্দারাও। মহিলা কর্মীদের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ মানসকে গ্রেফতার করেছে। তবে ওই ভিড়ে রক্তের দালালদের উপস্থিতি দেখে এর পিছনে ব্যবসায়িক ষড়যন্ত্র আছে কি না তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

গো নিউজ২৪/এবি