৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, সোমবার ২০ নভেম্বর ২০১৭ , ১০:০৪ পূর্বাহ্ণ

সিরাজগঞ্জে ৩ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি


গো নিউজ২৪ | নিজস্ব প্রতিবেদক আপডেট: ১৭ জুলাই ২০১৭ সোমবার
সিরাজগঞ্জে ৩ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি

যমুনার পানি কমে বিপদসীমার ৬০ সে.মি মিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানি কমলেও সিরাজগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি। জেলার ৫টি উপজেলার ৫০টি ইউনিয়নের প্রায় ৪৮ হাজার পরিবারের তিন লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে রয়েছে। ঘরবাড়ি ছেড়ে অনেকে বাঁধে আশ্রয় নিলেও সেখানেও করুণ অবস্থা।

টিনের চালা বা পলিথিন দিয়ে ঘর বানিয়ে ছাগল-গরু-হাস-মুরগী ও কুকুরের সাথে একঘরে রাত কাটাতে হচ্ছে। বাঁধে টিউবওয়েল না থাকায় পানির সংকটও দেখা দিয়েছে। টয়লেটের ব্যবস্থা না থাকায় আশ্রয় নেয়া মানুষেরা বিপাকে পড়েছে। বিশেষ করে নারীরা পড়েছে মহাবিপদে। রান্না করার খড়ি নষ্ট হয়ে যাওয়া ঠিকমতো রান্নাও করতে পারছে না। আর বৃষ্টি হলে এসব অসহায় মানুষ দুভোর্গ আরো কয়েকগুন বেড়ে যায়। অন্যদিকে, বসতবাড়ী ৩-৮ ফুট পানির নীচে তলিয়ে যাওয়ায় ঘর-বাড়ীর নষ্ট হয়ে পড়েছে।

আসবাবপত্রসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস পানিতে নষ্ট আর ভেসে যাওয়ায় পানিবন্দী মানুষেরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়ছে। আর সার্বক্ষনিক পানিতে থাকায় হাত-ঘাসহ নানাবাহিত রোগ দেখা দিচ্ছে। রোজগার না থাকায় ওষুধ কিনেও খেতে পারছে না অসহায় মানুষগুলো। ভাঙ্গন কবলিতদের নিজস্ব জায়গা জমি না থাকায় ওয়াপদার ঢালে ঘরবাড়ি স্তুপ করে রেছে। এ সকল মানুষ পুনর্বাসনের জন্য সরকারের সহায়তা কামনা করেছেন। অন্যদিকে, বাহুকা চারদিন পর সেনাবাহিনীর সহায়তায় ভাঙ্গা অংশ সংস্কার করা হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সৈয়দ হাসান ইমাম জানান, সেনাবাহিনীর সহায়তায় বাঁধ সংস্কার করা হয়েছে। দ্রুত বাঁধ শক্তিশালীকরণ কাজ শুরু করা হবে। বর্তমানে এসব এলাকায় আর কোন আতঙ্ক নেই।

গো নিউজ২৪/পিআর