১১ শ্রাবণ ১৪২৪, বুধবার ২৬ জুলাই ২০১৭ , ৬:৪৭ পূর্বাহ্ণ

সাপ না মারার আহ্বান জানালেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী


গো নিউজ২৪ | ইলিয়াস আরাফাত, রাজশাহী প্রতিনিধি আপডেট: ১৬ জুলাই ২০১৭ রবিবার
সাপ না মারার আহ্বান জানালেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

সাপ না মারার পরামর্শ দিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও রাজশাহী-৬ আসনের সংসদ সদস্য শাহরিয়ার আলম। শনিবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে তার ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে এ আহবান জানান তিনি। একই সঙ্গে সাপের অবদান ও সাপ নিধনে ক্ষতির বিষয়টি তুলে ধরেছেন তার স্ট্যাটাসে।

পরারাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘ঝুঁকি মনে হলে বাসায় কার্বলিক এসিড রাখবেন। খুব সমস্যা মনে হলে সাপ ধরে (গ্রামে সাপ ধরার মানুষ পাওয়া যায়) বন বিভাগ বা প্রাণী বিভাগে দিয়ে দিবেন। কিন্তু অযথা মেরে নতুন বিপদ ডেকে আনবেন না দয়া করে।’

গত ১১ দিনের ব্যবধানে শুধু রাজশাহীতেই মারা পড়েছে ২৫৬টির মতো বিষধর গোখরা সাপ। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানে সাপ মারার খবর গত কয়েকদিন ধরে মিডিয়ায় আসছে। এর প্রেক্ষিতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সাপ না মারার পরামর্শ দিয়ে তার ফেসবুকে স্ট্যাটার দিয়েছেন।

‘ভয়ে ভয়ে একটা কথা বলি!’ শিরোনামে পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, ‘যতদূর জানি সাপ নিরীহ প্রাণীদের একটা। সাপ শুধুমাত্র আঘাত পেলে ছোবল দেয়। দেশের হাসপাতালগুলোতে এখন যথেষ্ট পরিমাণ এন্টিভেনম আছে।’

‘কয়েকদিন ধরে দেখছি রাজশাহী থেকে শুরু করে বাংলাদেশের আনাচে কানাচে সাপ খুজে খুজে মারা হচ্ছে। প্রায় সব পত্রিকা সেটা গ্রহনযোগ্য ভাবে প্রচার করছে। না বুঝে নতুন করে মানুষ সাপ মারতে উৎসায়িত হচ্ছে। এসব জায়গায় কোথাও সাপের কামড়ে সম্প্রতি কেউ মারা গেছেন তাও শোনা যায়নি। কিন্তু তবুও চলছে সাপ মারা। আপনারা জানেন, প্রাকৃতিক ভারসাম্য ধরে রাখতে সাপের অবদান? পোকামাকড়, কীটপতঙ্গ সাপের প্রধান খাবার। সাপ এগুলো না খেলে আমরা হয়তো টিকতে পারতাম না।’

সাপ নিধনের ক্ষতির দিকটিও ফেসবুকে তুলে ধরেন শাহরিয়ার আলম। লেখেন, ‘ইঁদুরের গর্তে ঢোকে সাপ ইঁদুর ধরার জন্য। যেসব জায়গায় সাপ ধরে ধরে মারা হচ্ছে সেসব জায়গায় আগেও সাপ ছিলো, বাচ্চা হতো। সেই সাপগুলো ইঁদুর নিধন করতো। বর্তমান ধারা চলতে থাকলে এই জায়গাগুলো ইঁদুরের দখলে চলে যাবে। আর ইঁদুর যে কি ক্ষতি করতে পারে তা আমরা সকলেই জানি এবং বুঝি।’


গো নিউজ২৪/এএইচ