৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, সোমবার ২২ মে ২০১৭ , ১১:২৫ অপরাহ্ণ

সাঁতার জানেন?তবুও সাবধান !


গো নিউজ২৪ | ফারজানা আক্তার আপডেট: ১৭ এপ্রিল ২০১৭ সোমবার
সাঁতার জানেন?তবুও সাবধান !

আমরা যখন ঢাকার বাহিরে বেড়াতে যাই তখন সুযোগ পেলেই পানিতে নেমে পড়ি। বিশেষ করে শহরে যাদের বসবাস তাদের জন্য পানিতে নামার এটাই সবথেকে বড় সুযোগ হয়।
 
শহুরে মানুষ হিসেবে অনেকের সাঁতার শিখে নেবার সুযোগ হয় না। যারা জানেন তাদেরও তেমন চর্চা থাকে না। পানিতে যারা বিপদে পড়েন, তাদের বেশিরভাগ মানুষই কিন্তু সাঁতার জানে । এখন আপনি ভাবতেই পারেন, সাঁতার জানা মানুষ কিভাবে পানিতে বিপদে পড়ে?
 
যারা সাঁতার জানেন না, তারা পানিতে নামার বিষয়ে অনেক সতর্ক থাকেন। তারা খুব দরকার না হলে পানিতে নামেন না, আর নামলেও কখনই গভীর পানিতে যান না। একমাত্র নৌ-যান দুর্ঘটনা না হলে তারা সমস্যায় পড়েন না সাধারণত।

অন্যদিকে যারা সাঁতার জানেন, তারা আত্মবিশ্বাসী হয়ে থাকেন যে পানিতে নামলে তাদের সমস্যা হবে না। এই আত্মবিশ্বাস থেকে তারা প্রায়ই এমন দূরত্বে চলে যান সাঁতার কেটে, যেখান থেকে ফিরে আসার মত ক্ষমতা তাদের আর থাকে না।
 
যারা সাঁতার জানেন, কিন্তু নিয়মিত চর্চা নেই, নিজেদের ক্ষমতা সম্পর্কে তাদের একদমই কোনো ধারণা থাকে না । তারা প্রায়ই ঘুরতে গেলে পানিতে নামেন এবং সাঁতার কেটে দূরে চলে যান। একটা সময় হঠাৎ করেই আবিষ্কার করেন যে তার আর ভেসে থাকার ক্ষমতা নেই। এরকম সময়ে সাধারণত মানুষজন আতঙ্কিত হয়ে যান, যেটুকু শক্তি থাকে শরীরে, সেটাও হারিয়ে ফেলেন এবং ডুবে যান। তখন আশে-পাশে কেউ না থাকলে তার প্রাণনাশের সম্ভবনা অনেকটা বেড়ে যায়।
 
কোথাও ঘুরতে গেলে পানিতে নামার বিষয়ে বিশেষ সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। অনেক খাল বিলের পানিতে লতা - পাতার জন্ম হয়। পানির নিচের সেই লতা পাতায় পা আটকে গিয়েও অনেক সময় সমস্যা হয়। এরকম সময়েও মানুষ আতঙ্কিত হয়ে যায়।

আপনি যদি এমন অবস্থায় পরেন তাহলে  যে কোন ভাবে মাথা ঠাণ্ডা রাখতে হবে । মাথা ঠাণ্ডা রাখতে পারলে আপনি লতা পাতা থেকে মুক্ত হতে পারবেন। মাথা ঠাণ্ডা রাখতে পারলে আপনি শক্তি হারিয়ে ফেললেও কমপক্ষে ভেসে থাকার চেষ্টা করতে পারবেন। কিছুক্ষণ ভেসে থাকতে পারলেও আপনার বেঁচে যাবার সুযোগ বেড়ে যাবে অনেকটা ।
 
কোথাও বেড়াতে গেলে অবশ্যই খেয়াল রাখবেন যে আপনি আসলে কতটুকু সক্ষম পানিতে নামার বিষয়ে ! নৌযানে বেড়াতে গেলে অবশ্যই লাইফ জ্যাকেট সাথে রাখবেন।
 
একটুখানি সতর্কতা আপনাকে প্রাণনাশের মতো ঘটনা থেকেও বাঁচাতে পারে।