২৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, সোমবার ১১ ডিসেম্বর ২০১৭ , ১১:৩৪ পূর্বাহ্ণ

সরকার বা বিরোধী দলের ট্র্যাপে পড়ব না


গো নিউজ২৪ | নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা আপডেট: ১০ আগস্ট ২০১৭ বৃহস্পতিবার
সরকার বা বিরোধী দলের ট্র্যাপে পড়ব না
ফাইল ছবি

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, ‘ষোড়শ সংশোধনীর রায়ের গঠনমূলক সমালোচনা হতে পারে। তবে এ রায় নিয়ে আমরা সরকার বা বিরোধী দল কারো ট্র্যাপে পড়ব না।’

বৃহস্পতিবার ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত আইন কমিশনের বক্তব্য আইনজীবীরা তুলে ধরলে প্রধান বিচারপতি এ কথা বলেন। এ সময় তিনি রায় নিয়ে রাজনীতি না করার আহ্বান জানান।

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আমরা আপিল বিভাগের সাতজন বিচারপতি চিন্তাভাবনা করে এ রায় দিয়েছি।’

সকালে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদিন গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন তুলে ধরে বলেন, ‘রায় পূর্বধারণাপ্রসূত এবং বাংলাদেশ এখন বিচারকদের প্রজাতন্ত্রে পরিণত হয়েছে—আইন কমিশনের পক্ষ থেকে এমনটি বলা হয়েছে।’

এ সময় জয়নুল আবেদিন বলেন, ‘সর্বোচ্চ বিচারালয়কে নিয়ে এভাবে বলা আদালত অবমাননাকর।’

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আমরা শুধু আপনাদের বলবো, আপনারা বিচার বিভাগকে রক্ষা করুন। গঠনমূলক সমালোচনাকে আমরা স্বাগত জানাবো। আপনারা সংযত আচরণ করুন। যা সবার জন্যই মঙ্গল।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ রায় নিয়ে কোনো পক্ষ বিচার বিভাগে রাজনীতি টেনে আনবেন না।’  

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন খোকন ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আইনজীবী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ এসময় আইন কমিশনের বক্তব্যকে আদালত অবমাননাকর বলে উল্লেখ করেন।

বুধবার বিকালে আইন কমিশনের কার্যালয়ে ডাকা এক সংবাদ সম্মেলনে ষোড়শ সংশোধনীর রায় সম্পর্কে আইন কমিশনের চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রধান বিচারপতি এ বি এম খায়রুল হক বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন আর জনগণের প্রজাতন্ত্র নয়, বরং এটা বিচারকদের প্রজাতন্ত্রে পরিণত হয়েছে। তিনি মনে করেন, ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে দেয়া ওই রায় ছিল পূর্বধারণাপ্রসূত এবং আগে থেকে চিন্তাভাবনার ফসল।’

প্রসঙ্গত, গত ১ আগস্ট সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা জাতীয় সংসদের কাছে ন্যস্ত করে আনা সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে ৭৯৯ পৃষ্ঠার ওই রায় প্রকাশ করা হয়। প্রকাশিত রায় অনুযায়ী সুপ্রিম কোর্টের বিচারকদের অপসারণের ক্ষমতা সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিলের হাতে ন্যস্ত করা হয়।

গো নিউজ২৪/এমবি