২ ভাদ্র ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ১৭ আগস্ট ২০১৭ , ১০:০১ পূর্বাহ্ণ

‘সন্তানহারা মাকে নিয়ে কেমন করে এসব বলতে পারেন?’


গো নিউজ২৪ | বিনোদন প্রতিবেদক আপডেট: ১০ আগস্ট ২০১৭ বৃহস্পতিবার
‘সন্তানহারা মাকে নিয়ে কেমন করে এসব বলতে পারেন?’

ঢাকা: সালমান শাহ্। শুধু একটি নাম নয়, একটি ইতিহাসি। আর তাই মৃত্যুর একুশ বছর পরেও তিনি ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’! তাকে নিয়ে হৈ চৈ দেশের প্রত্যেকটি গণমাধ্যম। কারণ, তুমুল জনপ্রিয় অবস্থায় রহস্যজনকভাবে মৃত্যু হয়েছিলো এই মানুষটির। ঢাকাই চলচ্চিত্রে কালজয়ী চিত্রনায়ক সালমান শাহ্’র রহস্যজনক মৃত্যুর বিষয়টি দীর্ঘদিন পর আবার একজন নারীর ভিডিও বার্তায় শোরগোল পড়ে গেলো। ভিডিওটির পর যুক্তি, পাল্টা যুক্তিতে সোশাল সাইটে রীতিমত ঝড়। আর এই ঝড়ে শরীক হলেন দেশের প্রখ্যাত গীতিকার প্রিন্স মাহমুদ।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সালমান শাহকে নিজের ঘরে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গেলেও ঘটনা নেহায়েত আত্মহত্যা ছিলো না। এমনটি সেই শুরু থেকেই দাবি করে আসছিলেন নীলা চৌধুরী। দীর্ঘ একুশ বছর ধরে সালমানের মৃত্যুরহস্যটি নিয়ে দৌড়েছেন তিনি। যখন কোনো কুলকিনারা করে ওঠতে পারছিলেন না, তখন হঠাৎ করেই গত ৭ আগস্ট সোমবার রুবি সুলতানা নামের একজন নারী যুক্তরাষ্ট্র থেকে সোশাল সাইটে একটি ভিডিও বার্তা পাঠিয়ে ফের সালমান মৃত্যুরহস্যটি জাগিয়ে তুলেন। যিনি কিনা আবার সালমান হত্যাকাণ্ডের সন্দেহভাজন আসামিদের একজন। আর খুনীর এমন স্বীকারোক্তির পর এবার ছেলের খুনের বিচার চাইতে ওঠে পড়ে নামেন মা নীলা চৌধুরী। অভিযোগের তীর সালমানের স্ত্রী সামিরার পরিবারের দিকে।

কিন্তু সালমানের মায়ের এমন অভিযোগকে পাত্তাই দিচ্ছেন না সামিরার বাবা ও সালমানের শ্বশুর শফিকুল হক হীরা। বরং উল্টো তিনি সালমান শাহ্’র মায়ের চরিত্র নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। একটি ভিডিও সাক্ষাৎকারে নীলা চৌধুরীকে চরিত্রহীন বলেও মন্তব্য করেন হীরা। শুধু তাই নয়, তিনি সালমান আত্মহত্যায় হয়েছে বলে ওই ভিডিওতে সালমান সম্পর্কে বলেন, সালমান শাহ কিছুদিনের জন্য এফডিসিতে ব্যান (নিষিদ্ধ) হয়েছিল।  জানেন নিশ্চয় সবাই। ও সিনিয়রদে মানতো না। সেটা  ১৯৯৫ সালের দিকের ঘটনা।  তারপর ’৯৬’র দিকে তার অবস্থা নিচের দিকে যেতে থাকে।  ওর অভিনয়ের মাপ কমে যাচ্ছিল।  কেনো, এর আগেতো ও ফেনসিডিল খেতো। ফেনসিডিলের পরে ও যখন হুইস্কি খাওয়া শুরু করলো তখন বোধয়, যেহেতু ওর অভ্যাস ছিলো না সেহেতু তার বডি সেটা ইনটেক্ট হচ্ছিলো না। আর তার মা তখন এরশাদের সঙ্গে জাতীয় পার্টিতে ছিলো। তার চরিত্র সম্পর্কেওতো সবার জানা। এসবে সালমান ফেডাপ গিয়েছিলো। 

সালমান ইস্যুতে তার মাকে চরিত্রহীন হিসেবে সামিরার বাবা শফিকুল হক হীরার এমন বক্তব্যকে অনেকেই কাণ্ডজ্ঞানহীন বলছেন। প্রশ্ন ওঠছে, একজন মা দীর্ঘ একুশ বছর ধরে ছেলের মৃত্য রহস্য উদঘাটন করতে মরিয়া হয়ে আছেন, অথচ সেই মা’কে চরিত্রহীন বলে হীরা কি সালমানের মৃত্যুরহস্য’কে আরো প্রশ্নবিদ্ধ করে দিলেন না?

এমন প্রশ্ন রেখেছেন দেশের অন্যতম গীতিকার প্রিন্স মাহমুদ। হীরাকে উদ্দেশ্য করে ফেসবুকে প্রিন্স মাহমুদ বলেন, জনাব শফিকুল হক হীরা, সালমন শাহ সম্পর্কে এমন শালীনতাবর্জিত,নোংরা এবং অসম্মানজনক কথা বলতে কি আপনার একটুও বাধল না?  জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়েছিল এটা কী ধরনের মন্তব্য?  আপনি বোঝেন 'জনপ্রিয়তা' কী ?

এরপর সালমানের মাকে নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য করায় হীরাকে উদ্দেশ্য করে প্রিন্স মাহমুদ আরো বলেন, সন্তানহারা পাগলপ্রায় মাকে নিয়ে কেমন করে এসব বলতে পারেন?  সন্তান হারিয়েছেন ?  কাঁধে নিয়েছেন সে লাশ? জানেন ২১ বছর ধরে সে বোঝা বইতে কেমন লাগে? আপনি কিন্তু এবার সত্যিই সমস্ত বিষয়টিকে আরো বেশি প্রশ্নবিদ্ধ করে দিলেন।

গো নিউজ/এমটিএল