১১ শ্রাবণ ১৪২৪, বুধবার ২৬ জুলাই ২০১৭ , ৬:৪৬ পূর্বাহ্ণ

শিশুর মানসিক বিকাশে তাকে জড়িয়ে ধরুন


গো নিউজ২৪ | লাইফস্টাইল ডেস্ক আপডেট: ০৯ জুলাই ২০১৭ রবিবার
শিশুর মানসিক বিকাশে তাকে জড়িয়ে ধরুন

শিশুবিষয়ক ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, শিশুর সুস্থ ও সুন্দর মানসিকতার সঙ্গে তাকে জড়িয়ে ধরা ও চুমু খাওয়ার গুরুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে।  

যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত পরিবার থেরাপিস্ট ভার্জিনিয়া স্যাটির’ বলে গেছেন, “আমাদের বেঁচে থাকার জন্য দৈনিক চারবার জড়িয়ে ধরার প্রয়োজন। যত্নের জন্য আটবার, বিকাশের জন্য ১২ বার আলিঙ্গনের প্রয়োজন। তবে শিশুদের ক্ষেত্রে এটা ঠিক নয়।”

শিশুরা কোনো ভুল করলে তাদের যেমন বকা দেওয়া হয় একইভাবে তাদের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশের জন্য দ্রুতই আলিঙ্গন করা এবং জড়িয়ে ধরাও প্রয়োজন।

বিকাশে সহায়তা করে: গবেষণায় দেখা গেছে, শারীরিক সংযোগ শিশুর বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, বিশেষ করে শৈশবে। শিশুর প্রতি ভালোবাসা প্রকাশের জন্য তাকে জড়িয়ে ধরা, চুমু খাওয়া ইত্যাদি বিষয়গুলো শিশুর ভালো অনুভূতির হরমোন নিঃসৃত করে যা শিশুর বিকাশকে প্রভাবিত করে।

শিশুদের খুশি রাখতে: সুখী শিশুই, সুস্থ শিশু। আপনার শিশুর প্রতি ভালোবাসা প্রকাশের জন্য তাকে জড়িয়ে ধরুন। এটা কেবল শিশুকে খুশিই রাখে না পাশাপাশি তার আত্মবিশ্বাস ও আত্মসম্মান বাড়াতেও সাহায্য করে।

শিশুকে শান্ত করতে: শিশু কোনো কারণে খুব বেশি ক্ষেপে গেলে বা আবেগপ্রবণ হলে তাকে জড়িয়ে ধরুন, তার গালে চুমু খান। এতে তার মন মেজাজ শান্ত হয়ে আসবে।

শিশুর মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখে: বড়দের মতো শিশুরাও মাঝে মাঝে অবসাদ অনুভব করে। তাদেরকে এই হতাশা ও অবসাদ থেকে বের করে আনার জন্য জড়িয়ে ধরা ও চুমু খাওয়ার গুরুত্ব অনেক। এতে তাদের মানসিক স্বাস্থ্য ভালো থাকে এবং তারা তাদের আবেগ নিয়ন্ত্রণ করেতে পারে।  

সম্পর্ক জোড়ালো করে: অভিভাবক ও সন্তানের মধ্যে শারীরিক স্পর্শ সম্পর্ক জোড়ালো করতে সাহায্য করে। ফলে শিশু নিজেকে নিরাপদ অনুভব করে। জড়িয়ে ধরার উষ্ণতা শিশুর ভয় দূর করতে সহায়তা করে এবং সম্পর্কের প্রতি বিশ্বাস বাড়াতেও সাহায্য করে।

গো নিউজ২৪/পিআর