১ পৌষ ১৪২৪, শনিবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ , ৫:২৯ পূর্বাহ্ণ

শিক্ষকের দাবিতে মহাসড়কে শিক্ষার্থীরা


গো নিউজ২৪ | স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, রাজশাহী আপডেট: ১২ অক্টোবর ২০১৭ বৃহস্পতিবার
শিক্ষকের দাবিতে মহাসড়কে শিক্ষার্থীরা

রাজশাহী: মোহনপুর সরকারি বারিকা বিদ্যালয়টিতে নতুন শিক্ষকের পদ সৃষ্টি ও শূন্য পদে শিক্ষকের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করে ওই স্কুলে ছাত্রীরা। বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে স্কুল থেকে বেরিয়ে সড়েকে নেমে এলো রাজশাহী মোহনপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। 

হাতে কাগজ ফেস্টুন নিয়ে ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত তারা রাজশাহী-নওগাঁ মহাসড়কে অবস্থান করে। তাদের ফেস্টুনে লেখা, আমাদের দাবি মানতে হবে, শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে। 

এ বিষয়ে নবম শ্রেণির ছাত্রী রাজিয়া খাতুন, জেবা খাতুন, সম্পা খাতুন জানান, তাদের স্কুল সরকারি হলেও শিক্ষকের পদ মাত্র ছয়জন। এর মধ্যে মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই গণিত শিক্ষকের পদ শূন্য। কিছু দিন আগে পর্যন্ত স্কুলে পাঁচজন শিক্ষক ছিল। কিন্তু ১৭ আগষ্ট ইংরেজি শিক্ষক কলিম উদ্দিন প্রামানিক মোহনপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে বদলি হয়ে চলে গেছেন। এখন শিক্ষকের অভাবে ক্লাস বন্ধ হতে চলেছে।

ছাত্রীরা আরো জানান, এখন তাদের স্কুলে ইংরেজী, গণিত ও বিজ্ঞানের শিক্ষক নেই। সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীর আয়েশা খাতুন, সানজিদা খাতুন, শোভা খাতুন জানান, বর্তমানে চারজন শিক্ষক নিয়ে জোড়াতালি দিয়ে কোন মতে ক্লাস নিচ্ছেন। কিছুদিন থেকে ক্লাস বন্ধ হওয়ার কারণে রাস্তায় নামতে বাধ্য হয়েছি। 

শিক্ষার্থীদের এ অবরোধে দূর পাল্লাসহ অসংখ্য যানবাহন আটকে যায় এবং মুহূর্তের মধ্যে দীর্ঘ যাজটের সৃষ্টি হয়। পরে তারা উপজেলা স্মৃতিসৌধ সামনে  ইংরেজী, গণিত, বিজ্ঞানসহ শিক্ষকের দাবিতে বিক্ষোভ করতে থাকে। 

শিক্ষার্থীদের শান্ত করতে ছুটে যান উপজেলা প্রশাসনে পক্ষে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুস সামাদ, ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বানেছা বেগম, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম মাসুদ পারভেজ, ওসি তদন্ত আফজাল হোসেনসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে অবরোধ তুলে নেয়া চেষ্টা করেন। 

উপজেলা প্রশাসনে পক্ষ থেকে সোমবার পর্যন্ত সময় চেয়ে দাবি পুরণের আশ্বাস দিলে তারা অবেরোধ তুলে নেয়।

মোহনপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল আজিজ বলেন, স্কুলে ৩০৯ জন শিক্ষার্থী অধ্যায়নরত আছে। এখন চারজন শিক্ষক আছে। শিক্ষকের অভাবে সব শ্রেণির ক্লাস করানো সম্ভব হচ্ছে না।

এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুস সামাদ বলেন, আগামী রোববার জেলা সমন্বয় সভায় বিষয়টি আলোচনা করে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হবে। 

এর আগেও গত ২০ আগষ্ট ওই স্কুলে শিক্ষার্থীরা শিক্ষকের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করেছিল। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) শুক্লা সরকার এক সপ্তাহের মধ্যে মধ্যে দাবি পুরণের আশ্বাস দিলে তারা অবরোধ তুলে নিয়েছিল। কিন্তু তাদের দাবি পুরণ ও বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ না হওয়ায় তারা আবারও রাস্তায় নেমেছে।

গোনিউজ২৪/পিআর