১২ বৈশাখ ১৪২৪, বুধবার ২৬ এপ্রিল ২০১৭ , ৪:২৫ পূর্বাহ্ণ

যেভাবে দিন কাটছে সালমান শাহ’র স্ত্রী সামিরার


গো নিউজ২৪
|
যেভাবে দিন কাটছে সালমান শাহ’র স্ত্রী সামিরার

বাংলা চলচ্চিত্রের এক নাম ধুমকেতুর সালমান শাহ।  যিনি হুট করে এসে বাংলা চলচ্চিত্রের দর্শকদের মন জয় করে মাত্র চার বছরের মাথায় চলে গিয়েছিলেন।  বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় একটি নাম সালমান শাহ। মাত্র চার বছরের চলচ্চিত্র জীবনে করেছিলেন ২৭টি ছবি।  সালমান শাহ’র জীবনের গুরুত্বপূর্ণ এক অধ্যায় তার রহস্যময়ী স্ত্রী সামিরা। সোহানুর রহমান সোহানের হাত ধরে ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতে পদার্পণ করা সালমান শাহ মাত্র ২১ বছর বয়সে তার মা নীলা চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ বান্ধবীর মেয়ে সামিরাকে বিয়ে করেন। সেই সময় আলোচিত দম্পতি ছিলেন সালমান-সামিরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সালমান শাহ’র স্ত্রী সামিরা হক এখন থাইল্যান্ড প্রবাসী। সালমানের মৃত্যুর কয়েক বছর পরই তিনি বিয়ে করেছিলেন মুস্তাক ওয়াইজ নামে এক ব্যবসায়ীকে। তাকে নিয়ে থাইল্যান্ডে পেতেছেন নতুন সংসার। বেশ সুখেই আছেন তিনি জৌলুসের জীবন নিয়ে। সেই সংসারে তিন সন্তানের জননী সামিরা। বড় ছেলে ও ছোট দুই মেয়ে।

জানা গেছে, বাংলাদেশে খুব একটা আসেন না। আসলেও এড়িয়ে চলেন মিডিয়া বা কোলাহল। একান্তই নিকটাত্মীয়দের সঙ্গে দেখা করেন। সালমানের মৃত্যুর পর থেকেই নিজেকে সবকিছুর আড়ালে নিয়ে যান তিনি।

গেল বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর সামিরার বাবা শফিকুল হক হীরা বেশ কিছু গণমাধ্যমে জানিয়েছিলেন, ‘সালমানের মৃত্যুতে আর সবার মতোই আঘাত পেয়েছিল সামিরা। সবাই নায়ক হারানোর ব্যথায় কেঁদেছিল। আর আমার মেয়ে কেঁদেছিল বিধবা হওয়ার যন্ত্রণায়। সেই কষ্ট কেউ বোঝার আগেই তাকে নিয়ে নানা রকম অপবাদ ছড়ানো হলো। যাক, সবার দোয়ায় সামিরা এখন ভালো আছে। স্বামী-সন্তান নিয়ে তার সুখের সংসার।’

সেই মন্তব্যে সামিরার বাবা আরও জানিয়েছেন চমকপ্রদ এক তথ্য। সালমানের মৃত্যুদিনে নাকি কারও সঙ্গেই কোনো কথা বলেন না সামিরা। নিজের মতো করে চুপাচাপ থাকেন। সালমানের মৃত্যু তিনিও মেনে নিতে পারেননি। মানতে পারেন না ‘সালমানের সাবেক স্ত্রী’ শব্দটিও।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর রাজধানীর ইস্কাটনের নিজ ফ্ল্যাটে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিলো তার লাশ। বিষয়টিকে আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা করলেও সালমান শাহ’র ভক্তরা সেটা মেনে নেননি। বিভিন্ন সময় অনেকেই দাবী করেছেন সালমান শাহকে খুন করা হয়েছে।

সালমান শাহ’র মা নীলা চৌধুরী শুরু থেকেই বলে আসছিলেন এটি নিছক আত্মহত্যা নয়, তাকে খুন করা হয়েছে। কিন্তু পোস্ট মর্টেম রিপোর্টে আত্মহত্যা বলেই উল্লেখ করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। ফলে রহস্যই থেকে যায় সালমান শাহ’র মৃত্যু রহস্য।

সালমানের ঘণিষ্ঠ অনেকেই দাবী করেছেন স্ত্রী সামিরার গোপন প্রেমের জন্যই প্রাণ দিতে হয়েছে এ চিত্রনায়ককে। পরবর্তী সময়ে সালমানের পরিবার থেকে সামিরা ও আরো কয়েকজনকে আসামী করে থানায় হত্যা মামলাও দায়ের করা হয়েছিলো। কিন্তু কোন এক অজানা কারণে সেটি নিয়ে পরবর্তীতে তেমন কোন অগ্রগতি চোখে পড়েনি।

সালমান শাহর মরদেহের পাশ থেকে যে সিগারেট পাওয়া যায় সেটি সালমান শাহ খেতেন না বলে দাবী করেন তার মা নীলা চৌধুরী। অন্য ব্র্যান্ডের সিগারেট কে খেয়েছিলো সেদিন সালমান শাহ’র ঘরে? ফ্ল্যাটের প্রতিবেশীরা জানিয়েছিলেন সেদিন ধস্তাধস্তির শব্দ শুনেছেন তারা। সালমান শাহকে দ্রুত হাসপাতালে না নেয়ার অভিযোগও উঠেছে। এমন অনেকগুলো বিষয়ই এখনো রহস্য ছড়িয়ে রেখেছে ঢাকাই চলচ্চিত্র অঙ্গনের এই একটি মৃত্যুকে ঘিরে।

কে ছিলো সেদিন সালমান শাহ’র ঘরে? আত্মহত্যা করেন নি, তবে কে খুন করেছেন সালমান শাহকে? বিভিন্ন সময় গুঞ্জন উঠেছে এক প্রভাশালী চলচ্চিত্র প্রযোজকের সঙ্গে গোপন সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন সালমান শাহ’র স্ত্রী সামিরা। এদিকে শাবনূরের সঙ্গে সালমান শাহ’র গোপন প্রেমের কথাও শোনা গিয়েছে। এই চতুর্ভূজ প্রেমের জের ধরেই কি খুন হয়েছিলেন সালমান শাহ? নাকী আত্মহত্যাই করেছেন সবার প্রিয় নায়ক।

গো নিউজ২৪/এএইচ