৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ১:১৪ অপরাহ্ণ

মোটা শরীরে হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি বেশি!


গো নিউজ২৪ | নিউজ ডেস্ক আপডেট: ১৭ মে ২০১৭ বুধবার
মোটা শরীরে হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি বেশি!

মোটা হলেই যে শরীর ভালো এবং ফিট থাকে এ ধারণা ঠিক নয় সেটি মনে করিয়ে দিয়েছেন গবেষকরা। ব্রিটেনে ৩৫ লাখ মোটা মানুষের উপর গবেষকরা একটি জরিপ চালিয়েছেন।

এ গবেষণায় দেখা গেছে, মোটা ব্যক্তিরা জীবনের প্রথমদিকে সুস্থ্য  থাকলেও পরবর্তী সময়ে তারা নানা ধরনের শারীরিক রোগে আক্রান্ত হয়। এ রোগগুলোর মধ্যে হৃদরোগ, ডায়াবেটিস অন্যতম।

একটা সময় ধারণা করা হতো মোটা ব্যক্তিদের রক্তচাপ এবং রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ থাকলে সে শারীরিকভাবে ফিট থাকতে পারে। কিন্তু সাম্প্রতিক গবেষণায় তা ভুল প্রমাণিত হয়েছে।

বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ১৯৯৫ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত এ গবেষণার উপাত্ত সংগ্রহ এবং বিশ্লেষণ করেছেন। এ গবেষণার শুরুতে যে ব্যক্তিদের বয়স এবং উচ্চতার অনুপাতে অতিরিক্তি ওজন ছিল তাদের সম্পর্কে তথ্য নেয়া হয়।

যখন এ তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছিল তখন তাদের বয়স ছিল ত্রিশ কিংবা তার চেয়ে কিছুটা বেশি। তখন তাদের কোন হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, উচ্চ কোলেস্টরেল এবং ডায়াবেটিস ছিলনা।

কিন্তু পরবর্তী সময়ে দেখা গেছে, তারা হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের ঝুঁকিতে পড়েছে। কিন্তু যাদের ওজন নিয়ন্ত্রণে ছিল তাদের ঝুঁকি তুলনামূলকভাবে কম ছিল।

ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশনের মাইক ক্ন্যাপটন মনে করেন, এ গবেষণাটিকে খুবই গুরুত্ব সহকারে নেয়া উচিত। মি: ক্ন্যাপটন বলছিলেন, "অতিরিক্ত ওজন এবং মোটা ব্যক্তিদের হৃদরোগের ঝুঁকি বেশি। অন্য দিক থেকে তারা স্বাস্থ্যবান থাকলে হৃদরোগের ক্ষেত্রে তাদের তাদের ঝুঁকি আছে।"
সেজন্য ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশন হৃদরোগের ঝুঁকি এড়ানোর জন্য কিছু পরামর্শ দিয়েছে।

ধুমপান না করা, সুষম খাবার গ্রহণ, প্রতিদিন ব্যায়াম করা, পরিমিত মাত্রায় অ্যালকোহল পান মানুষকে স্বাস্থ্যবান রাখতে সাহায্য করে।
এর আগে ২০১২ সালে এক গবেষণায় বলা হয়েছিল কোন ব্যক্তির ওজন বেশি এবং মোটা হলেও তিনি শারীরিকভাবে ফিট থাকতে পারেন। এবং সেক্ষেত্রে অন্যদের তুলনায় তার হৃদরোগ এবং ক্যান্সারের ঝুঁকি নেই। কিন্তু নতুন গবেষণা সে ধারণাকে চ্যালেঞ্জ করেছে। -বিবিসি

 

গো নিউজ২৪/পিআর