১ পৌষ ১৪২৪, শনিবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ , ৯:২৮ পূর্বাহ্ণ

‘বৈবাহিক ধর্ষণ কোনো অপরাধ নয়’


গো নিউজ২৪ | আন্তর্জাতিক ডেস্ক আপডেট: ১১ আগস্ট ২০১৭ শুক্রবার
‘বৈবাহিক ধর্ষণ কোনো অপরাধ নয়’

ভারতে দীর্ঘদিন ধরেই ‘বৈবাহিক ধর্ষণ’ নিয়ে চলছে নানা বিতর্ক। কেউ একে অপরাধ, আবার কেউ অপরাধ মনে না করলেও বিষয়টি নিয়ে এতদিন পর্যন্ত আইনি কোনো সিদ্ধান্ত ছিল না। তবে শেষ পর্যন্ত এই ‘বৈবাহিক ধর্ষণ’ শাস্তিযোগ্য কোনো অপরাধ নয় বলে রায় দিল ভারতের সর্বোচ্চ আদালত।

দেশটির সুপ্রিমকোর্টের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, স্ত্রীর বয়স যদি ১৫ বছরের বেশি হয় এবং স্বামী যদি জোরপূর্বক তার সঙ্গে যৌনমিলনকে করে তবে তাকে বৈবাহিক ধর্ষণ বলা যাবে না। যেহেতু ভারতীয় আইনে মেয়েদের বিয়ের বয়স ন্যূনতম ১৮ বছর, তাই আইন অনুসারে কোনো স্ত্রীর বয়স ১৫ বছর বা তার কম হতে পারে না।

ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৫ (২) ধারায় স্ত্রীর বয়স যদি ১৫ থেকে ১৭ বা তার বেশি হয়ে থাকে, তাহলে বিবাহিত স্ত্রীর সঙ্গে স্বামীর জোর করে যৌনমিলনে ছাড় দেয়ার কথা বলা হয়েছে। এই ধারাটি বাতিলের দাবিতে সম্প্রতি শীর্ষ আদালতে একটি আবেদন করে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। তাদের দাবি, ১৮ বছর বয়স না হলে মেয়েদের বিয়ে করা ভারতীয় আইনে নেই। তাহলে ৩৭৫ (২) ধারাটি তো নাবালিকা বিবাহকেই প্রশ্রয় দেয়ার সামিল।

মামলায় ভারত সরকারের আইনজীবী এই দাবির বিরুদ্ধে বলেন, ধর্ষণ আইনে ৩৭৫ (২) ধারাটিতে ছাড় দেয়াই উচিত। কারণ, এই ধারা বিবাহ নামক প্রতিষ্ঠানটিকে সুরক্ষিত করে।

এরপর সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি এমবি লকুর ও বিচারপতি দীপক গুপ্তার বেঞ্চের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, সংসদে এই বিষয়টি নিয়ে অনেক বিতর্ক হয়েছে। সেই বিতর্ক থেকে বলা যায়, ‘বৈবাহিক ধর্ষণকে’ ধর্ষণ আখ্যা দেয়া যায় না। এতএব এটা শাস্তিমূলক অপরাধও নয়।

গো নিউজ২৪/ আরএস