৪ কার্তিক ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৭ , ১১:২৬ পূর্বাহ্ণ

ফারহানা নিশোর বরখাস্তের মূল কারণ


গো নিউজ২৪ | বিনোদন ডেস্ক আপডেট: ১৮ মে ২০১৭ বৃহস্পতিবার
ফারহানা নিশোর বরখাস্তের মূল কারণ

আলোচিত সংবাদ উপস্থাপিকা ও অভিনেত্রী ফারহানা নিশোকে বেসরকারি টিভি চ্যানেল একুশে টিভি থেকে গতকাল বরখাস্ত করা হয়েছে। হঠাৎ করেই এমন খবরে হৈ চৈ পড়ে গেছে মিডিয়া পাড়ায়। অনেকটা বিনা নোটিশে এই অব্যাহতি নিয়ে সর্বত্রই  চলছে গুঞ্জন। নেপথ্যের কারন হিসেবে অনেকেরই ধারনা আকস্মিক এই অব্যাহতির পেছনে রয়েছে ‘আলোচিত ধর্ষণ মামলার এক অভিযুক্তের সাথে ফারহানা নিশোর সখ্যতা’  !

রাজধানী বনানীর দি রেইনট্রি হোটেলে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া দুই ছাত্রীকে ধর্ষণ মামলার আসামিদের সাথে তোলা বিভিন্ন সেলিব্রেটির ছবি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল। শুধু ধর্ষণ মামলার আসামিরাই নয়, তাদের স্বজনদের অনেকেরও ছবি এখন ঘুরছে ফেসবুকে।

ভাইরাল ছবিগুলোর মধ্যে ধর্ষণ মামলার এক আসামি নাঈম আশরাফকে দেখা গেছে ফারহানা নিশোর সাথে।  এছাড়াও  আওয়ামী লীগ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকসহ নানা সেলিব্রেটি ও রাজনৈতিক নেতার সাথেও এক মঞ্চে দেখা গিয়েছে অভিযুক্ত নাঈমকে।

এর আগে অনেক নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে ২০১৫ সালে বৈশাখী টেলিভিশান থেকে ‘বরখাস্ত হয়ে গত বছর (২০১৬)র ফেব্রুয়ারিতে একুশে টেলিভিশনে যোগ দিয়েছিলেন জনপ্রিয় সংবাদ উপস্থাপিকা ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ফারহানা নিশো। তবে তখনই তার যোগদান নিয়ে চ্যানেলকর্মীদের মধ্যে দ্বন্দ্ব তৈরি হয়েছিলো ।

এ দফায় ফের ফারহানা নিশো অব্যাহতি পেলেন বেসরকারি টিভি চ্যানেল একুশে টেলিভিশন থেকে। বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, বুধবার (১৭ মে) ফারহানা নিশোকে অব্যাহতিপত্র দেয়া হয়।

তবে ঠিক কী কারণে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে সেটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ বিষয়ে ফারহানা নিশোর সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলার চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি।

সম্প্রতি বনানীতে দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী ধর্ষণ মামলার আসামির সাথে নিশোর একাধিক ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ কারণে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে এরইমধ্যে নিশোর ‘বরখাস্ত’ হবার ঘটনা নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে। অনেকেই বলছেন, আলোচিত ধর্ষক নাঈমের সাথে ছবি তুললেও ফারহানার কোন ব্যক্তিগত ‘সখ্যতার’ প্রমাণ মেলেনি। তাছাড়া এই দোষে দোষী হলে ফারহানার মতো অনেকেরই বরখাস্তের তালিকায় আসা উচিৎ বলেও মনে করেন অনেকেই।

এদিকে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক চ্যানেল সংশ্লিষ্ট বেশ কজন জানিয়েছেন, ‘ধারনা করা হচ্ছে, বনানীতে ঘটে যাওয়া সাম্প্রতিক সময়ের আলোচিত ধর্ষণ মামলার আসামি নাঈম আশরাফের সঙ্গে একটি সেলফির কারণেই বরখাস্ত হয়েছেন ফারহানা নিশো। কারণ, ধর্ষক গ্রেপ্তার হওয়ার পর তার সঙ্গে রাজনৈতিক ও বিনোদন জগতের অনেক তারকাদের সঙ্গে সেলফি নিয়ে সোশাল সাইটে বিতর্ক চলছে ।

চ্যানেলটির একজন সিনিয়র রিপোর্টার না প্রকাশ না করার শর্তে জানান, ‘এরমধ্যে ফারহানা নিশোর সঙ্গেও ধর্ষকের নাঈমের কয়েকটি ছবি ভাইরাল হয়েছে। যেহেতু সোশাল সাইটে নাঈশের ‘সেলফি’ নিয়ে চারদিকে বিতর্ক উঠেছে , হয়তো এই কারণেই প্রতিষ্ঠানকে এমন সেনসেটিভ বিষয় থেকে নিরাপদে রাখতেই নিশোকে ম্যানেজমেন্ট  বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলেও জানান তিনি  ।;

তবে ফারহানা নিশোর বরখাস্তের বিষয়ে স্পষ্ট করে কোনো কিছু জানায়নি একুশে টেলিভিশান কর্তৃপক্ষ।

আলোচিত দুই ছাত্রী ধর্ষণ মামলার অন্যতম আসামী সিরাজগঞ্জের ‘চিটার’ হিসেবে পরিচিত নাঈম আশরাফ ওরফে আব্দুল হালিম ঢাকায় বিনোদন জগতেও বেশ পরিচিত। একুশে টিভির অনুষ্ঠান বিভাগের প্রধান ফারহানা নিশোর সাথে নাঈম আশরাফের ফেসবুকে ভাইরাল  হয়ে পড়া ছবি।

ফারহানা নিশো বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গ্রামীণ ও নগর পরিকল্পনায় স্নাতক ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন। ২০০৩ সালে চ্যানেল ওয়ানে সংবাদ পাঠিকা হিসেবে ক্যারিয়ারের যাত্রা শুরু করেন। পরবর্তী সময়ে ওয়ারিদ টেলিকম, গ্রামীণফোন ও এনটিভিতে ও বৈশাখী টিভিতে কাজ করেছেন তিনি।

এ বিষয়ে টিভি চ্যানেলটির সিইও এবং প্রধান সম্পাদক মঞ্জুরুল আহসান বুলবুলের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার কোনও মন্তব্য নেই। যিনি (মানব সম্পদ প্রধান মো. আতিকুর রহমান) ঐ বিজ্ঞপ্তি স্বাক্ষর করেছেন, তাকেই জিজ্ঞেস করুন।’

একুশে টেলিভিশনের মানব সম্পদ প্রধান মো. আতিকুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘দেখুন এটা আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এখানে অনেকেই আসবেন, অনেকেই চলে যাবেন- এটাই তো স্বাভাবিক। ফলে এই বিষয়টি আলাদা করে বাইরে শেয়ার করার কারণ নেই।’

প্রসঙ্গত,একজন মডেল ও অভিনেত্রী হিসেবেও জনপ্রিয়তা রয়েছে ফারহানা নিশোর। ফারহানা নিশো একজন সংবাদ পাঠিকা হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করে বর্তমানে মিডিয়ার আলোচিত নারী। লবিং আর করপোরেট ভাষা রপ্ত করে নিজেকে তিনি একজন মডেল ও অভিনেত্রী হিসেবেও প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছেন।

তার সংবাদ পাঠ শুরু হয় ২০০৩ সালে। সংবাদ পাঠিকা হিসেবে যোগদান করা ফারহানা নিশো বন্ধ হয়ে যাওয়া ‘চ্যানেল ওয়ান’-এ অনুষ্ঠান বিভাগের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তখন তারেক জিয়াসহ নানা অঙ্গণের প্রভাবশালী মানুষের সাথে ঘনিষ্ট সম্পর্কে জড়িয়ে নিজেকে আলোচনায় আনেন।

চ্যানেল ওয়ান বন্ধ হয়ে গেলে তিনি বৈশাখীতে যোগ দেন এজিএম বিজনেস ডেভলপমেন্ট ও সিনিয়র নিউজ প্রেজেন্টার হিসেবে। অবশ্য এর আগে তিনি গ্রামীণফোন, ওয়ারিদের মতো করপোরেটবান্ধব প্রতিষ্ঠানগুলোতেও কাজ করেছেন।

অভিযোগ রয়েছে, বৈশাখী টিভিতে চাকরি নিয়ে এখানেও তিনি লবিং আর করপোরেট বাণিজ্য জমিয়ে তুলেন। সর্বশেষ বৈশাখী টিভির হেড অব করপোরেট অ্যাফেয়ার্সে দায়িত্বরত ছিলেন ফারহানা নিশো।

এর আগে যমুনা টিভিতে জ্যেষ্ঠ সংবাদ উপস্থাপক এবং গাজী টিভিতে ‘আজকের অনন্যা’ অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করছিলেন তিনি । এছাড়াও চ্যানেল ওয়ান ও বৈশাখী টিভির করপোরেট অ্যাফেয়ার্স বিভাগের প্রধান হিসেবেও কাজ করেছেন দীর্ঘদিন।

২০০৩ সালে এনটিভিতে সংবাদ উপস্থাপক হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু হলেও মাঝে গ্রামীণফোনের টেকনিক্যাল ডিভিশন ও ওয়ারিদ টেলিকমে প্রোজেক্ট ম্যানেজমেন্ট বিভাগেও কাজ করেন এই উপস্থাপিকা ।


গো নিউজ২৪/এএইচ