৭ ভাদ্র ১৪২৪, মঙ্গলবার ২২ আগস্ট ২০১৭ , ৮:৪২ অপরাহ্ণ

প্রতি ৩ সেকেন্ডে গৃহহীন হয় একজন মানুষ


গো নিউজ২৪ | আন্তর্জাতিক ডেস্ক আপডেট: ১৯ জুন ২০১৭ সোমবার
প্রতি ৩ সেকেন্ডে গৃহহীন হয় একজন মানুষ

যুদ্ধ এবং নিপীড়নের কারণে বাধ্য হয়ে গৃহত্যাগের ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলেছে বিশ্বজুড়ে। ধারাবাহিক তৃতীয় বছরের মতো বাড়ছে এই সংখ্যা। এতে এ পর্যন্ত গৃহহীন হয়েছে ৬৫ কোটি ৬০ লাখ মানুষ, যা ব্রিটেনের মোট জনসংখ্যার চেয়েও বেশি।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিয়ষক সংস্থা ইউএনএইচসিআর’র সর্বশেষ প্রতিবেদন মতে, ২০১৬ সালে প্রতি তিন সেকেন্ডে ঘরবাড়ি ছাড়তে বাধ্য হয়েছে একজন মানুষ। ২০১৫ সালের চেয়ে ওই বছর তিন লাখ বেশি মানুষ গৃহহীন হয়েছে।

প্রতিবেদন অনুসারে, শরণার্থী সংখ্যা সবচেয়ে বেশি ছিল ২০১৬ সালে। ওই বছর গৃহহীন হয়েছে ২২ কোটি ৫০ লাখ মানুষ। এদের বেশিরভাগই এসেছে সিরিয়া, আফগানিস্তান এবং দক্ষিণ সুদান থেকে। শরণার্থীদের অর্ধেকই শিশু।

এর বাইরে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়েছে ২৮ লাখ মানুষ। এর মধ্যে জার্মানিতে আবেদন পড়েছে ৭ লাখ ২২ হাজার ৪০০টি। এরপরেই আছে যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি এবং তুরস্ক। এছাড়া অভিভাবকহীন শিশুদের থেকে আবেদন পড়েছে ৭ হাজার।

গৃহহীনদের একটি বড় অংশই তাদের বাড়ি ছাড়ে কিন্তু সীমান্ত পাড়ি দিয়ে কাঙ্ক্ষিত দেশে যেতে পারে না। গৃহহীনদের এই সংখ্যাকে অগ্রহণযোগ্য বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপ্পো গ্র্যান্ডি।

বর্তমানে শরণার্থী আশ্রয়দানে শীর্ষ দেশ তুরস্ক। এ পর্যন্ত তারা আশ্রয় দিয়েছে প্রায় ২৫ লাখ শরণার্থী। তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে আছে পাকিস্তান। তারা আশ্রয় দিয়েছে প্রায় ১৬ লাখ শরণার্থী। তৃতীয় অবস্থান লেবাননের। তারা নিয়েছে ১১ লাখ শরণার্থী।

এছাড়া ৯ লাখ ৮০ হাজার শরণার্থী আশ্রয় দিয়ে চার নম্বরে আছে ইরান। পঞ্চম স্থানে আছে ইথিওপিয়া (প্রায় ৭ লাখ ৪০ হাজার), ষষ্ঠ অবস্থানে জর্দান (৬ লাখ ৬০ হাজার), সপ্তম কেনিয়া (সাড়ে ৫ লাখ), অষ্টম উগান্ডা (৪ লাখ ৮০ হাজার), নবম কঙ্গো (৩ লাখ ৮০ হাজার) এবং দশম শাদ (৩ লাখ ৭০ হাজার)।

গো নিউজ২৪/ আরএস