১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, বুধবার ২৪ মে ২০১৭ , ৭:৩৭ অপরাহ্ণ

পহেলা জুলাই থেকে নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর: অর্থমন্ত্রী


গো নিউজ২৪ | গো নিউজ ডেস্ক আপডেট: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ সোমবার
পহেলা জুলাই থেকে নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর: অর্থমন্ত্রী

ঢাকা: আগামী পহেলা জুলাই থেকে নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

তিনি বলেছেন, “নতুন ভ্যাট আইন নিয়ে ব্যবসায়ীদের যেসব আপত্তি ছিল তার বেশকিছু আমলে নেয়া হয়েছে।  বাকি আপত্তি নিয়ে একটি যৌথ কমিটি কাজ করছে। কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে নতুন আইন নির্দিষ্ট দিনেই কার্যকর হবে, এর ব্যত্যয় হবে না।”

সোমবার সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বাংলাদেশে সফররত আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) একটি প্রতিনিধিদল দেখা করে। আইএমএফের চার সদস্যের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন সংস্থাটির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মিটসুহিরো ফুরুসাওয়া। পরে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন অর্থমন্ত্রী।

আইএমএফের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠক প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, “প্রতিনিধিদলটি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছে। তারা বলেছে, দেশ ভালোভাবে এগোচ্ছে। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। তারা নতুন ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে গৃহীত পদক্ষেপ সম্পর্কে জানতে চেয়েছে। আমি তাদের বিস্তারিত অবহিত করেছি।”

অর্থমন্ত্রী বলেন, “শুধু আইএমএফকে খুশি করার জন্য নয়, নতুন ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন হলে ভ্যাট আদায় ব্যবস্থা অনেক সহজ হবে। হয়রানি কমবে। পাশাপাশি রাজস্ব আদায় বাড়বে। তবে হ্যাঁ, ব্যবসায়ীরা যেসব বিষয়ে দাবি তুলেছে, সেগুলো বিবেচনায় নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এনবিআর এবং ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছিল। তারা বেশ কয়েকবার বৈঠক করেছে। খুব শিগগির তাদের প্রতিবেদন পাওয়া যাবে বলে আশা করছি।”

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী, আগামী ১ জুলাই থেকে নতুন ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন হবে।  এ বিষয়ে গত একবছর ধরে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে এনবিআরের টানাপোড়েন চলছে।  ব্যবসায়ীরা প্যাকেজ ভ্যাট অব্যাহত রাখার দাবিতে কর্মসূচিও পালন করেছে।

সূত্র জানায়, নতুন ভ্যাট আইন অনেক বেশি সহজ ও সাবলীল। এ আইন বাস্তবায়ন হলে ভ্যাট ফাঁকি দেয়া অনেক কমে যাবে। কোনো ব্যবসায়ীকে ভ্যাট দিতে এনবিআরের অফিসে যেতে হবে না। এনবিআরের কর্মকর্তারাও ব্যবসায়ীদের হয়রানি করবেন না।

ওই সূত্র আরো জানায়, ৩০ লাখ টাকার কম বিক্রিতে কোনো ব্যবসায়ীকে ভ্যাট দিতে হবে না। ৩০ লাখ থেকে ৮০ লাখ টাকা পর্যন্ত বিক্রিতে ৩ শতাংশ হারে টার্নওভার দিতে হবে। ৮০ লাখের বেশি বিক্রিতে ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট প্রযোজ্য হবে। ভ্যাটের বিভিন্ন পর্যায়ের পরিবর্তে একটি সার্বজনীন অবস্থা তৈরি হবে বলে সূত্র জানায়।

এর আগে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান এক অনুষ্ঠানে জানিয়েছিলেন, সম্পূর্ণ অনলাইন ভিত্তিক নতুন ভ্যাট আইন আগামী ১ জুলাই থেকে বাস্তবায়ন হবে। তিনি বলেন, “আইনটি বাস্তবায়ন হলে ব্যবসায়ী ও ভোক্তাদের স্বার্থ সংরক্ষণের পাশাপাশি মূল্য সংযোজন কর (মূসক) থেকে রাজস্ব আদায় কয়েক গুণ বেড়ে যাবে। ”

এতে প্রথম বছরই মোট কর জিডিপি ১ দশমিক ৫ শতাংশ বাড়বে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

নজিবুর রহমান বলেন, “দেশের উন্নয়নে রাজস্ব আহরণ প্রবৃদ্ধির কোনো বিকল্প নেই। মানুষকে সচেতন করা ও উদ্বুদ্ধ করার মাধ্যমেই রাজস্ব আহরণ বাড়ানো যায়। ১৯৯১ সালের ভ্যাট আইনটি বেশ জটিল হওয়ায় তা বর্তমান প্রেক্ষাপটের সঙ্গে মানানসই ছিল না। ব্যবসা ও রাজস্ববান্ধব পরিবেশ তৈরিতে নতুন আইনটি প্রণয়ন করা হয়। তবে ব্যবসায়ীদের ভুল বোঝাবোঝি ও নানা দাবির কারণে তার বাস্তবায়ন দেরি হচ্ছে।”

এনবিআর সূত্রে জানা গেছে, এরই মধ্যে তথ্যভাণ্ডার সমৃদ্ধকরণ, সবকিছু অনলাইন ভিত্তিক করা ও কর্মকর্তাদের দক্ষতা উন্নয়নসহ এনবিআর সব প্রস্তুতি নিয়েছে। ব্যবসায়ী-আইনজীবী ও সাংবাদিকসহ সব অংশীজনের সঙ্গে আলোচনা করেই নতুন ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন করা হবে।

সূত্র জানায়, নতুন ভ্যাট আইনে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ভ্যাট নেয়া হলেও তা সম্পূর্ণভাবে ভোক্তারাই প্রদান করবেন। ভ্যাট নিবন্ধনের পর ব্যবসায়ীরা স্বনির্ধারণীর মাধ্যমে যে বিক্রয় দেখাবেন, তার ওপরই ভ্যাট নেয়া হবে। সব ভ্যাট অনলাইনে আদায়ের জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এতে হয়রানি কমে যাওয়ার পাশাপাশি রাজস্ব আহরণ কয়েক গুণ বাড়বে।

গোনিউজ২৪/এম

অর্থনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত