১১ শ্রাবণ ১৪২৪, বুধবার ২৬ জুলাই ২০১৭ , ৪:২৮ অপরাহ্ণ

নাবালিকা তিন ছাত্রীকে শারীরিক হেনস্থা করল শিক্ষক


গো নিউজ২৪ | আন্তর্জাতিক ডেস্ক আপডেট: ২১ এপ্রিল ২০১৭ শুক্রবার
নাবালিকা তিন ছাত্রীকে শারীরিক হেনস্থা করল শিক্ষক

তিন নাবালিকা ছাত্রীকে যৌন হেনস্থার অভিযোগে অভিযুক্ত এক শিক্ষককে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের মেন হোস্টেল থেকে গ্রেফতার করল পুলিশ। মণি বিশ্বাস নামে অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে বুধবার রাতে গড়ফা থানার পুলিশ হোস্টেল থেকে গ্রেফতার করেছে। গড়ফা থানা এলাকার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির তিন ছাত্রীকে যৌন হেনস্থার অভিযোগ দায়ের করেছেন তাদের অভিভাবকেরা।

পুলিশ জানিয়েছে, নদিয়ার ধুবুলিয়ার বাসিন্দা মণি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছিল। সে গড়ফার ঝিল রোডে আদর্শ বালিকা বিদ্যায়তনের শিক্ষক। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তৃতীয় শ্রেণির তিন ছাত্রীকে বেশ কিছুদিন ধরে যৌন হেনস্থা করছিল। ওই ঘটনার কথা বাড়িতে জানালে খুব খারাপ হবে বলে ভয়ও দেখাচ্ছিল অভিযুক্ত শিক্ষক। কিছুদিন যাওয়ার পরেই ওই ছাত্রীরা বাড়িতে বিষয়টি জানায়। 

অভিভাবকেরা মণির কাছে জানতে চান, কেন সে এই ধরনের আচরণ করছে। তখন মণি ধুবুলিয়ার বাড়ির বিষয়টি চেপে গিয়ে অভিভাবকদের হুমকি দেয়, সে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের হোস্টেল থাকে। স্থানীয় ছেলে। তাই তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করলে খুব একটা সুবিধা হবে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা তার সঙ্গে রয়েছে। পুলিশও কিছুই করবে না দাবি করে সে। কিন্তু বুধবার অভিভাবকেরা থানায় অভিযোগ দায়ের করলে গড়ফা থানার পুলিশ যাদবপুর থানার সঙ্গে যৌথভাবে হোস্টেল হানা দিয়ে মণিকে গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে শিশু যৌন হেনস্থা প্রতিরোধ আইনে এবং হুমকি দেওয়ার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশের এক আধিকারিক জানান, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের হোস্টেলে বহিরাগতদের আনাগোনা নিয়ে তাঁরা বারেবারেই অভিযোগ করেছেন। তা সত্ত্বেও কর্তৃপক্ষ বিষয়টিতে নজর দেন না। অন্যদিকে, বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রের খবর, ওই অভিযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে গণিত নিয়ে স্নাতকোত্তরস্তরে পড়াশোনা করছে। সেই সূত্রেই সে হস্টেলে থাকছিল।

গো নিউজ ২৪