২৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, সোমবার ১১ ডিসেম্বর ২০১৭ , ৩:২৫ অপরাহ্ণ

দেশে ফিরেই মনের কথা জানালেন সোহেল তাজ


গো নিউজ২৪ | নিজস্ব প্রতিবেদক আপডেট: ০৫ ডিসেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার
দেশে ফিরেই মনের কথা জানালেন সোহেল তাজ

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যুর পর অনেকেই আকাঙ্খা করছেন সোহেল তাজ ঢাকা উত্তরের হাল ধরবেন।। অনেকেই সোহেল তাজকে তরুণদের আইডল হিসেবে ধরেন। সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে তিনি যুব সমাজের আস্থা অর্জন করেছিলেন। তাই অনেকেই চাচ্ছেন সোহেল তাজ আবার রাজনীতিতে আসুক। কিন্তু সোহেল কী বলছেন এ ব্যাপারে।

সোহেল তাজ যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরে সোমবার গ্রামের বাড়ি গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার দরদরিয়ায় আসেন। তিনি প্রয়াত মা সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীনের নামে প্রতিষ্ঠিত হাসপাতালে মা ও শিশু কার্ড বিতরণী এবং স্মার্ট এমসিএইচ সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যারের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেন।
 
পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সোহেল তাজ বলেন, ‘আলোচনা তো, আলোচনা হতেই পারে। কিন্তু এই মুহূর্তে রাজনীতি না, আমি অনুষ্ঠানটা অ্যাটেন্ড করতে এসেছি। আমার মায়ের নামের ক্লিনিকের (সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীন ১০ শয্যা মা ও শিশুকল্যাণ কেন্দ্র, দরদরিয়া, কাপাসিয়া, গাজীপুর) মহতী উদ্যোগ যাতে সাকসেসফুল হয়।’

কাপাসিয়ার বাসিন্দাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কাপাসিয়াবাসী আমাকে যেভাবে ভালোবাসা দিয়ে, আন্তরিকতা দিয়ে, স্নেহ দিয়ে বরণ করে নিয়েছে আমি তো তাদেরই সন্তান। আমি মানুষের মাঝে আছি, থাকব সব সময়। সব সময় পাবেন আপনারা। আমি আছি কাপাসিয়ার মানুষের সাথে।’

নতুন প্রজন্মের কাছে আকাঙ্ক্ষা জানতে চাইলে সোহেল তাজ বলেন, ‘আমার একটাই চাহিদাই থাকবে, নতুন প্রজন্ম যাতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে বাংলাদেশ এবং দেশের মানুষের জন্য কিছু করতে পারে। নীতি ও আদর্শ যেন বুকে ধারণ করে প্রত্যেকটা পদক্ষেপ নেয় এবং তাদের সার্বিক কাজ যেন সেই চেতনাকে ধারণ করে ধাবিত হয় সেটাই আমার আকাঙ্ক্ষা। এবং সেটাই আমি আশা করব।’

এর আগে জেলা পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর আয়োজিত অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বক্তব্য দেন সোহেল তাজ। অনুষ্ঠানে বিপুলসংখ্যক মানুষ উপস্থিত হয়ে ধৈর্য ধারণ করে বক্তব্য শোনায় তিনি তাদের ধন্যবাদ জানান।

সোহেল তাজ বলেন, ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামসহ দেশ, জাতি ও সমাজের জন্য আমার পিতা তাজউদ্দীন আহমদ ও মা সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীনের অনেক অবদান রয়েছে। আমার পরিবার এলাকার গরিব, দুঃখী মানুষের ভাগ্যোন্নয়নের জন্য চেষ্টা করে চলেছে। আমি যতদিন প্রতিনিধি ছিলাম, আমিও আপ্রাণ চেষ্টা করেছি।’

সাংসদ সিমিন হোসেন রিমি জানান, গত দেড় বছর যাবৎ চেষ্টা চালিয়ে দরিদ্র, অসহায় গর্ভবতী মায়েদের গর্ভ পূর্ববর্তী, চলতি ও পরবর্তী সেবা প্রদানের জন্য এ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এতে গর্ভবতী মাদের প্রসব পূর্ববর্তী, প্রসবকালীন ও প্রসব পরবর্তী স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের উদ্দেশে এ কার্ডটি করা হয়েছে। এর মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা, ওষুধ সরবরাহসহ মোট ২৭টি সেবা দেওয়া হবে।

কাপাসিয়া উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন স্থানীয় সংসদ সদস্য বঙ্গতাজকন্যা সিমিন হোসেন রিমি। পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপপরিচালক লাজু শামসাদ হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ও মহাপরিচালক কাজী মোস্তফা সারোয়ার, উন্নয়ন সরবরাহ বিভাগের যুগ্ম সচিব ও পরিচালক এ কে এম মাহবুবুর রহমান, এমসিএইচ পরিচালক ডা. মোহাম্মদ শরীফ, কেন্দ্রীয় পণ্যাগারের অতিরিক্ত পরিচালক মো. তসলিম উদ্দিন খান, গাজীপুরের সিভিল সার্জন ডা. সৈয়দ মো. মঞ্জুরুল হক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মাকছুদুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রেজাউর রহমান লস্কর মিঠু প্রমুখ। এ সময় গর্ভবতী মা ও শিশুদের স্বাস্থ্যসেবার জন্য সফটওয়্যার কার্যক্রমের উদ্বোধন ও কার্ড বিতরণ করা হয়।


গো নিউজ২৪/এবি