১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, বুধবার ২৪ মে ২০১৭ , ৬:৩৪ পূর্বাহ্ণ

তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পেলে অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা


গো নিউজ২৪ আপডেট: ১০ জানুয়ারি ২০১৭ মঙ্গলবার
তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পেলে অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ জানিয়েছেন পাঠ্যপুস্তকে ভুলত্রুটির বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পেলে অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী। তিনি আরও বলেন, মানুষের ভুলত্রুটি হতেই পারে। তবে কিছু ভুল হওয়া উচিত ছিল না। এই ভুলের জন্য বিচার হওয়া উচিত। যাঁরা ভুল করেছেন, তাঁরা রেহাই পাওয়ার যোগ্য নন।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, সারাদেশে সময়মতো পাঠ্যবই মুদ্রণ করে সরবরাহ করা অনেক বড় সাফল্য। এর মধ্যে কিছু ভুল ত্রুটি হতেই পারে। শিক্ষকরা এগুলো সংশোধন করে ব্যবস্থা নেবেন। তবে পাঠ্যবইয়ে বড় ধরনের ত্রুটি কোনওভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

মন্ত্রী বলেন, ‘দুটি বড় ভুল চিহ্নিত করে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) দুই কর্মকর্তাকে ওসডি করা হয়েছে। এনসিটিবিও ভুলত্রুটি খুঁজে বের করতে কমিটি গঠন করেছে। পাঠ্যবইয়ে ভুলের জন্য কে বেশি দায়ী, আর কে কম দায়ী, সেটা তদন্তে বেরিয়ে আসবে। তদন্ত অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এসময় তিনি গণমাধ্যমে আলোচিত তিনটি ভুলের কথা স্বীকার করে নেন। তৃতীয় শ্রেণির ‘আদর্শ ছেলে’ কবিতা, একই শ্রেণির ধর্ম বইয়ের পেছনে ‘ ইংরেজিতে আঘাত অর্থে Hurt কে Heart লেখা বড় ভুল হিসেবে স্বীকার করে নেন তিনি। আর প্রথম শ্রেণির ‘আমার বাংলা বই’য়ের প্রচ্ছদে ছাগলের আম খাওয়ার ছবিকে ভুল হিসেবে স্বীকার করলেও এটি ‘অতটা অস্বাভাবিক নয়’ মন্তব্য করে তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের পর এটি বাদ দেওয়া যায় কিনা সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন নাহিদ।

প্রসঙ্গত, গত ১ জানুয়ারি ৪ কোটি ৩৩ লাখ ৫৩ হাজার ২০১ জন শিক্ষার্থীর হাতে এবার ৩৬ কোটি ২১ লাখ ৮২ হাজার বই আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে দেওয়া হয়। এরপর বিভিন্ন গণমাধ্যমে পাঠ্যবইয়ের ভুল নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

গো-নিউজ২৪/বিএস