১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ২৫ মে ২০১৭ , ১১:১৩ পূর্বাহ্ণ

চীন পাখিদের জন্য ‘বিমানবন্দর’ বানাচ্ছে 


গো নিউজ২৪ | গো নিউজ ডেস্ক আপডেট: ০৪ মার্চ ২০১৭ শনিবার
চীন পাখিদের জন্য ‘বিমানবন্দর’ বানাচ্ছে 

ডেস্ক: পরিযায়ী পাখিরা যেন দীর্ঘপথ পাড়ি দেয়ার ফাঁকে বিশ্রাম নিতে পারে সেজন্য এই ‘বিমানবন্দর’ তথা অভয়ারণ্য তৈরি করবে চীন৷ সম্প্রতি এই অভয়ারণ্যের নকশা প্রকাশ করা হয়েছে৷

বিশ্রামাগার:
চীনের বন্দরনগরী তিয়ানজিনে পরিযায়ী পাখিদের জন্য অভয়ারণ্য তৈরি করা হচ্ছে৷ অঞ্চলটি ‘ইস্ট এশিয়ান-অস্ট্রেলেশিয়ান ফ্লাইওয়ে’র মধ্যে অবস্থিত৷ পরিযায়ী পাখিরা বিশ্বের যে নয়টি ফ্লাইওয়ে ব্যবহার করে, এটি তার একটি৷ প্রতিবছর ৫০ মিলিয়ন পরিযায়ী পাখি এই ফ্লাইওয়ে 

বলা হচ্ছে, এটি হবে পাখিদের জন্য তৈরি বিশ্বের প্রথম বিমানবন্দর৷ একটুখানি কল্পনার আশ্রয় নিয়ে উপরের নকশাটি দেখলে বুঝতে পারবেন, পাখিদের জন্য টেক অফ আর ল্যান্ডিংয়ের ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে সেখানে৷ প্রায় ৫০ প্রজাতির (যাদের কয়েকটি বিলুপ্তির মুখে) পরিযায়ী জলচর পাখি সেখানে আশ্রয় নেবে বলে আশা করা হচ্ছে৷
পাখিদের জন্য আবাসস্থল

অভয়ারণ্যটি ৬১ হেক্টর জায়গার উপর গড়ে তোলা হবে৷ সেখানে পাখিদের আশ্রয় নেয়ার জন্য বেশ কিছু ব্যবস্থা রাখা হবে৷ পাখিগুলো প্রধানত জলচর হওয়ায় সেখানে থাকবে লেক, থাকবে ঘাসের মতো ছোট উদ্ভিদের সমারোহ ইত্যাদি৷ এছাড়া প্রায় ২০ হেক্টর এলাকা জুড়ে থাকবে বন৷

টারমিনাল:
যেহেতু বিমানবন্দর তাই টারমিনালতো থাকবেই৷ কিন্তু সেখানে থাকবে না কোনো চেক-ইন কাউন্টার বা ডিউটি-ফ্রি শপ৷ এর পরিবর্তে ‘লিনগাঙ বার্ড স্যাংচুয়ারি’র টার্মিনাল থেকে পর্যটকরা পাখি দেখতে পারবেন৷

গবেষণা কেন্দ্র:
‘ওয়াটার প্যাভিলিয়ন’ নামে একটি গবেষণা কেন্দ্র থাকবে ওই অভয়ারণ্যে৷ এর মাধ্যমে পাখি বিষয়ক গবেষণায় নিজের নাম প্রতিষ্ঠা করতে চায় চীন৷ এছাড়া সেখানে হাঁটা ও সাইকেল চালানোর পথও তৈরি করা হবে৷

পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ এগোলে ২০১৮ সালে অভয়ারণ্য প্রতিষ্ঠার কাজ শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে৷ 
সূত্র: ডিডাব্লিউ

গোনিউজ২৪/এম