৫ আশ্বিন ১৪২৪, বুধবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ৫:০৩ অপরাহ্ণ

খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনের বক্তব্য দেয়ার সময় বাড়ল


গো নিউজ২৪ আপডেট: ০৫ জানুয়ারি ২০১৭ বৃহস্পতিবার
খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনের বক্তব্য দেয়ার সময় বাড়ল

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ও জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনের অসমাপ্ত বক্তব্য দেয়ার জন্য আগামী ১২ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত। 

খালেদা জিয়ার সময়ের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার  পুরান ঢাকার বকশীবাজারের কারা অধিদপ্তরের প্যারেড মাঠে অস্থায়ীভাবে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৩-এর বিচারক আবু আহমেদ জমাদার এ আদেশ দেন। এর আগে ২২ ডিসেম্বর একই কারণে সময়ের আবেদন দাখিল করলে আদালত তা মঞ্জুর করে  ৫ জানুয়ারি অসমাপ্ত বক্তব্য দেয়ার জন্য নতুন দিন ধার্য করেন।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ও জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থন করতে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা ২৫ মিনিটে পুরান ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ আদালতে উপস্থিত হন। শুনানিকালে খালেদা জিয়া আদালতে উপস্থিত ছিলেন। এর আগে সকাল ১০টা ২০ মিনিটে রাজধানীর গুলশানের বাসভবন থেকে খালেদা জিয়া রওনা হন।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০০৫ সালে কাকরাইলে সুরাইয়া খানমের কাছ থেকে শহীদ জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট এর নামে ৪২ কাঠা জমি কেনা হয়। কিন্তু জমির দামের চেয়ে অতিরিক্ত এক কোটি ২৪ লাখ ৯৩ হাজার টাকা জমির মালিককে দেওয়া হয়েছে বলে কাগজপত্রে দেখানো হয়, যার কোনো বৈধ উৎস ট্রাস্ট দেখাতে পারেনি। জমির মালিককে দেওয়া ওই অর্থ ছাড়াও ট্রাস্টের নামে মোট তিন কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা অবৈধ লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে।

২০১০ সালের ৮ আগস্ট জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে অর্থ লেনদেনের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়াসহ চারজনের নামে তেজগাঁও থানায় দুর্নীতির অভিযোগে এ মামলা করেছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক হারুন-অর রশিদ। ওই মামলার অন্য আসামিরা হলেন, খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, হারিছের তখনকার সহকারী একান্ত সচিব ও বিআইডাব্লিউটিএ'র নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান।
 

গো নিউজ ২৪/ এস কে /বিএস