১১ শ্রাবণ ১৪২৪, বুধবার ২৬ জুলাই ২০১৭ , ৬:৪৬ পূর্বাহ্ণ

এভাবেও কেউ দাম্পত্য জীবন কাটায়!


গো নিউজ২৪ | অনলাইন ডেস্ক আপডেট: ০৭ জুলাই ২০১৭ শুক্রবার
এভাবেও কেউ দাম্পত্য জীবন কাটায়!

হৃদয় দিয়ে ভালবাসা যায় ঠিকই৷ কিন্তু, দাম্পত্যজীবনে সেই ভালবাসার প্রকাশের অন্যতম মাধ্যম শরীর৷ তাই স্বামী-স্ত্রীর সুস্থ ও স্বাভাবিক যৌন সম্পর্ক দাম্পত্যকে আরও মধুর করে তোলে৷ 

কিন্তু, জানেন কী, এর উলটোটাও সম্ভব৷ মানে দাম্পত্য আছে, কিন্তু যৌনতা নেই৷ সম্প্রতি জাপানে এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, সেখানকার প্রায় অর্ধেক বিবাহিত দম্পতি একমাসেরও বেশি সময়ে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হননি৷ অদূর ভবিষ্যতে যে তাঁরা যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হবেন, এমন আশাও করেন না তাঁরা৷ 

বস্তুত, সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, জাপানে এখন রেকর্ড সংখ্যক বিবাহিত দম্পত্তি এমনই ‘সেক্সলেস ম্যারেজ’ বা যৌনতাহীন দাম্পত্য জীবন কাটাচ্ছেন৷ 

জানা গিয়েছে, জাপানে ১৬ থেকে ৪৯ বছর বয়সী নাগরিকদের ওপর একটি সমীক্ষা চালিয়েছে সেদেশের ফ্যামিলি প্ল্যানিং অ্যাসোসিয়েশন৷ এই সমীক্ষায় নিজেদের মতামত জানিয়েছেন ১২০০ মানুষ৷ সাতচল্লিশ শতাংশ বিবাহিত পুরুষ ও মহিলা বলেছেন, তাঁরা সেক্সলেস ম্যারেজ বা যৌনতাহীন দাম্পত্যজীবন কাটাচ্ছেন৷ 

প্রসঙ্গত, দাম্পত্য জীবনে যৌনতা নিয়ে ২০০৪ সালে প্রথম সমীক্ষা হয় জাপানে৷ সেবার দেখা গিয়েছিল, সূর্যোদয়ের দেশে ৩১.৯ শতাংশ দম্পতির ব্যক্তিগত জীবনে যৌনতার স্বাদ থেকে বঞ্চিত৷ 

জাপানের ফ্যামিলি প্ল্যানিং অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি কুনিও কিটামুরি বলেছেন, গত কয়েক বছরে জাপানে এই সেক্সলেস ম্যারেডের প্রবণতা কয়েক গুণ বেড়ে গিয়েছে৷

যদিও সমীক্ষায় উঠে আসা তথ্য বিশেষ  গুরুত্ব দিতে নারাজ বিশেষজ্ঞদের একাংশ৷ তাদের দাবি, শুধু জাপানেই নয়, সারা বিশ্বেই এখন উন্নত দেশগুলিতে মানুষের কর্মব্যস্ততা বেড়েছে৷ তাই পরিবারকে আর সময় দিতে পারছেন না তাঁরা৷ 

যার প্রভাব পড়ছে যৌনজীবনেও৷ জাপানের ফ্যামিলি প্ল্যানিং অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি কুনিও কিটামুরিও জানিয়েছেন, জাপানের প্রায় ৩০ শতাংশ পুরুষ জানিয়েছেন, সারাদিনের পরিশ্রমের পর তাঁরা এতটাই ক্লান্ত হয়ে পড়েন, যে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ার উৎসাহ পান না৷


গো নিউজ২৪/এএইচ