৯ ভাদ্র ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ২৪ আগস্ট ২০১৭ , ৭:১৯ পূর্বাহ্ণ

এবার প্রধানমন্ত্রীর শরণাপন্ন হলেন সালমানের মা


গো নিউজ২৪ | বিনোদন প্রতিবেদক আপডেট: ০৭ আগস্ট ২০১৭ সোমবার
এবার প্রধানমন্ত্রীর শরণাপন্ন হলেন সালমানের মা

ঢাকা: একুশ বছর পরে হঠাৎ ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’তে পরিণত হয়েছে দেশের তুমুল জনপ্রিয় চিত্রনায়ক সালমান শাহ্’-এর হত্যাকাণ্ড। কালজয়ী চিত্রনায়ক সালমান শাহ্’র মৃত্যু রহস্য নিয়ে হঠাৎ জট খুলে গেছে মাত্র একটি ভিডিও বার্তায়! আর সেই ভিডিও বার্তাটি সোশাল সাইটে পাঠিয়েছেন সালমানেরই সন্দেহভাজন খুনীদের একজন সুলতানা রুবি। আর এমন ভিডিওচিত্রটি দেখার পর ছেলে হত্যার বিচার নিয়ে উদগ্রীব হয়ে আছেন সালমানের মা নীলা চৌধুরী। আর এবার তিনি সোজা দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শরণাপন্ন হলেন।   

বহুদিন ধরে ছেলের খুনের বিচার নিয়ে আইন আদালতেই বেশীর ভাগ সময় পড়েছিলেন সালমানের মা নীলা চৌধুরী। ছেলে হত্যার কোনো কুলকিনারা খুঁজে পাচ্ছিলেন না। কিন্তু এবার সালমান খুনের সন্দেহভাজন আসামি সুলতানা রুবি নিজেই একটি ভিডিও বার্তা প্রকাশ করলে সালমান খুনের সমস্ত জট খুলে যায়। ধরে প্রাণ ফিরে পান সত্যের পক্ষে সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়া মা নীলা চৌধুরী। ফের জেগে ওঠেন সালমানের মা। আর এই ভিডিও বার্তাটি নিয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করলেন। 

ফেসবুকে নীলা চৌধুরী সালমান খুনের স্বীকারোক্তিমূলক ভিডিও প্রধানমন্ত্রীকে দেখার অনুরোধ জানিয়ে এবং ছেলেকে খুনের সুষ্ঠু বিচার দাবী করে নীলা চৌধুরী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, একজন সর্বশান্ত জননী আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। একবার ভিডিওটি দেখুন(সুলতানা রুবির ভিডিও বার্তা)। ইমনের(সালমান) বিচার হলেও আমি আর কোনোদিন ইমনকে পাবো না। কিন্তু আপনার সরকার কলঙ্কমুক্ত হবে। আল্লাহ আমাকে সাহায্য করেছেন, আপনিও আমাকে সাহায্য করুন সত্য উদঘাটনের। আমি কৃতজ্ঞ থাকবো। 

এরআগে সালমানের ভক্ত, অনুরাগী ও দেশবাসীর কাছে সালমান শাহ্’র মা অনুরোধ জানিয়ে বলেছিলেন, প্রিয় দেশবাসী। আমাকে সাহায্য করুন। দেখুন, রুবি সুলতানার স্বীকারোক্তি। কিভাবে সালমানকে হত্যা করা হয়েছে। যেভাবে পারেন এফবিআইকে জানান, বাংলাদেশের সকল চ্যানেলকে অনুরোধ করছি রুবির স্বীকারোক্তিটা চালিয়ে দেন। এরপর তিনি আরো বলেন, প্রিয়জন, খেয়াল রাখবেন এই নিউজের পর অনেকে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করার চেষ্টা করবে। শ্বান্তভাবে কাজ করবে। এরপর তিনি সালমানের স্ত্রী সামিরা যেনো দেশ থেকে পালিয়ে যেতে না পারে সে দিকেও আইনের প্রতি দৃষ্টি দেন।

গো নিউজ/এমটিএল