৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ১:১৫ অপরাহ্ণ

এইচআইভি রোগীদের আয়ু ১০ বছর বৃদ্ধি


গো নিউজ২৪ | নিউজ ডেস্ক আপডেট: ১৬ মে ২০১৭ মঙ্গলবার
এইচআইভি রোগীদের আয়ু ১০ বছর বৃদ্ধি

ইউরোপ ও আমেরিকায় এই গবেষণায় 88 হাজারেরও বেশি এইচআইভি রোগীর তথ্য অন্তর্ভুক্ত ছিল। গবেষকরা বলেছেন, ১৯৯০ সালের মাঝামাঝি সময়ে এইডস প্রতিরোধের ওষুধ সহজলভ্য হওয়ায় এক দশকে ইউরোপ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এইচআইভি সংক্রমিত মানুষের আয়ুষ্কাল বৃদ্ধি পেয়েছে।

দ্য ল্যান্সেট এইচআইভির এক গবেষণায় বলা হয়েছে, ২০০৮ সাল থেকে শুরু হওয়া চিকিৎসায় এখন ৭৮ বছর বয়স পর্যন্ত আয়ুষ্কাল প্রত্যাশা করা যায়, যা অসংক্রমিত ব্যক্তিদের কাছাকাছি।

ফ্রান্সে এইডস-সৃষ্টিকারী ভাইরাসে সংক্রমিত মানুষ বাদে "সাধারণ জনসংখ্যার" আয়ুষ্কাল পুরুষের ৭৯ বছর এবং নারীর ৮৫ বছর। আর তা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পুরুষের ৭৮ বছর এবং নারীর ৮২ বছর।

২০০৮ সালে ও এর পরে যারা এন্টিরেট্রোভাইরাল ট্রিটমেন্ট (এআরটি) গ্রহণ করেছিল তারা এখন দীর্ঘ ও স্বাস্থ্যকর জীবন পাড় করছে। আধুনিক ওষুধগুলোর কম পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া, এইচআইভির উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থা এর মূল কারণ।

 "এইচআইভি পজিটিভ মানুষরা বৃদ্ধ বয়সে বসবাস করবে এমন ধারণার সঙ্গে ডাক্তাররা এইচআইভিতে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য আরও দৃঢ়ভাবে পরীক্ষা করছে"। হৃৎরোগ, হেপাটাইটিস সি এবং ক্যান্সারও গবেষণায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

"এইচআইভি নিয়ে বাস করা মানুষের জীবনযাত্রার তথ্য ও জ্ঞান সাধারণ মানুষকে এইচআইভি পরীক্ষা করতে এবং তাৎক্ষণিকভাবে ঝুঁকি এড়াতে প্ররোচিত করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে"।

এটি "এইচআইভি সংক্রামিত মানুষের লজ্জা কমাতে পারে এবং তাদের বীমা বা কর্মসংস্থান লাভ করতে সাহায্য করতে পারে"। 

গবেষণায় বলা হয়, এআরটি, এইচআইভি ভাইরাসকে সরিয়ে দেয় এবং এটি ১৯৯৬ সালে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। এটা রোগ নিরাময় করে না, কিন্তু আয়ুষ্কাল বাড়াতে পারে।

এ ব্যাপারে, ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের সুপারিশ করে বলছে, রোগ নির্ণয়ের পরে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এআরটি শুরু করা উচিৎ। কিন্তু, চিকিৎসা সবসময় সহজলভ্য বা সাশ্রয়ী না হওয়ায় দরিদ্র দেশগুলির অনেকেই রোগ নির্ণয়ে খুব দেরি করে। যা মোটেই করা উচিৎ নয়। সূত্র: এনডিটিভি,

সম্পাদনায়: পাপলু রহমান


গো নিউজ২৪/পিআর