১২ বৈশাখ ১৪২৪, মঙ্গলবার ২৫ এপ্রিল ২০১৭ , ৪:৩০ অপরাহ্ণ

ইরি বোরো ক্ষেতে নেক ব্লাস্ট রোগ: কৃষকরা দিশেহারা


গো নিউজ২৪ | আসাদুজ্জামান সাজু, লালমনিরহাট
|
ইরি বোরো ক্ষেতে নেক ব্লাস্ট রোগ: কৃষকরা দিশেহারা

লালমনিরহাটে ইরি-বোরো ধান ক্ষেতে এবার হঠাৎ করে নেক ব্লাস্ট রোগ ছড়িয়ে পড়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। জেলার ৫ উপজেলার অনেক এলাকায় ইতোমধ্যে এ রোগ ছড়িয়ে পড়েছে।

হাতীবান্ধা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন বলেন, নেক ব্লাস্ট ছত্রাক জাতীয় রোগ। বৈরী আবহাওয়ার কারণেই এ রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। এ রোগ আক্রান্ত হলে ধানের ৭০ ভাগ পর্যন্ত ক্ষতি হয়ে যায়। ব্লাস্ট রোগ প্রথমত ধান গাছের পাতায় চোখের মত দাগ হয়ে আক্রান্ত করে। পরে গিট, গোড়া ও দানায় আক্রান্ত করে। পাতার রং সাদা হয়ে যায় ও ভিজা দাগ ধরে। ধানের শীষের চিটা হয় এবং ধান গাছ মারা যায়। 

তিনি বলেন, ধান ক্ষেতে প্রচুর পানি ধরে রাখার পাশাপাশি ধানের শীষ বের হওয়ার আগেই জমিতে ফিলিয়া, এমিস্টার টপ, ট্রপার, নাটিভো জাতীয় তরল কীটনাশক ব্যবহার করলে ধান ক্ষেত রক্ষা করা অনেকটা সম্ভব।

হাতীবান্ধা উপজেলার সানিয়াজান ইউনিয়নে চর এলাকার আজিজুল ইসলাম বলেন, আমার হাইব্রীড জাতের ২ বিঘা ইরি-বোরো ক্ষেতে নেক ব্লাস্ট আক্রমণের ভয়ে কৃষি বিভাগের পরামর্শে ঔষুধ প্রয়োগ করেছি। এখন পরিস্থিতি অনেকটা স্থিতিশীল রয়েছে।

হাতীবান্ধা উপজেলার সিঙ্গিমারী গ্রামের আলতাব হোসেন বলেন, আমার ২৮ জাতের ধান ক্ষেতের শীষ মরে যাচ্ছে। কৃষি বিভাগের পরামর্শে ঔষুধ প্রয়োগ করেছি। এখন পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণ হয়নি।

লালমনিরহাট কৃষি বিভাগের উপ-পরিচালক বিদু ভূষণ রায় বলেন, নেক ব্লাস্ট রোগ প্রতিরোধে চাষীদের ছত্রাক জাতীয় ঔষধ স্প্রে করার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। আমরা নিয়মিত মাঠ পরিদর্শনসহ কৃষকদের লিপলেট বিতরণ করছি, ভয়ের কোনো কারণ নেই। পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণে আছে।

গো নিউজ২৪/এএইচ