১০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, শুক্রবার ২৪ নভেম্বর ২০১৭ , ৭:০২ অপরাহ্ণ

ইবির আবাসিক হলে বিষাক্ত সাপ, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা


গো নিউজ২৪ | কুষ্টিয়া প্রতিনিধি আপডেট: ০৩ নভেম্বর ২০১৭ শুক্রবার
ইবির আবাসিক হলে বিষাক্ত সাপ, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্বাবদ্যালয়ে (ইবি) সাপের উপদ্রব আজ প্রথম নয়, মাঝে মাঝেই এমন ঘটনা ঘটে থাকে। এবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আবাসিক হলে বিষাক্ত গোখরা সাপের সন্ধান পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার হলের দেশীয় ব্লকের ৩১৮নং কক্ষ থেকে একটি সাপ বের হয়। এতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের পার্থ শারথীয় রায় নামে এক আবাসিক শিক্ষার্থী জানায়, সকালে ঘুম থেকে উঠে ওয়াস রুম থেকে ফ্রেস হয়ে আবার কক্ষে প্রবেশের সময় দরজা খুললে দরজা থেকে সাপটি নিচে পড়ে রুমের ভেতরে পালিয়ে যায়। এসময় পার্থ আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে রুমের সকলকে সবাইকে বাহিরে আসতে বলে। এরপর কক্ষের ভেতর হতে বের করে সাপটি মেরে ফেলে।

গোখরা সাপটি প্রায় আড়াই ফুট লম্বা। সাপ দেখে ঐ রুমে থাকা সাব্বির ও তুহিন নামের দুই শিক্ষার্থী ভয়ে জীর্ণ-শীর্ণ হয়ে যায়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি হলের চারপাশে অস্বাভাবিক জঙ্গল থাকায় সাপের উপদ্রপ বেড়েই চলছে। এ নিয়ে চরম আতঙ্কে রয়েছে হলের আবাসিক শিক্ষর্থীরা।

শিক্ষার্থীদের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যদি এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ না নেয় তাহলে যে কোন সময় সাপের কামড়ে বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই শিক্ষার্থীরা প্রশাসনের নিকট ঝোঁপঝাড় পরিষ্কারসহ সাপ নিধনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণের দাবি জানায়।

এ বিষয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট প্রফেসর ড. শাহাদৎ হোসেন আজাদ বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু হলের অধিকাংশ এলাকায় কবরস্থানের উপর প্রতিষ্ঠিত। ফলে কবরস্থানের কিছু কিছু গর্ত এখনো রয়ে গেছে। আর একারণেই মাঝে মাঝে সাপের উপদ্রপ দেখা যায়। তবে আমরা খুব দ্রুত কার্বলিক এসিড দিয়ে সাপ মারার পদক্ষেপ নেব।

গোনিউজ২৪/কেআর